বাংলা নিউজ > ময়দান > রুঢ় সঞ্চালক বীরুর বাপ হোতা হ্যায় উক্তি নিয়ে প্রশ্ন করতেই মেজাজ হারালেন শোয়েব - video

রুঢ় সঞ্চালক বীরুর বাপ হোতা হ্যায় উক্তি নিয়ে প্রশ্ন করতেই মেজাজ হারালেন শোয়েব - video

শোয়েব আখতার।

সেহওয়াগ বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে স্বীকার করেছিলেন যে, ভারত বনাম পাকিস্তানের একটি ম্যাচে শোয়েব আখতারকে ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। তখন তিনি মন্তব্য করেছিলেন যে, ‘বাবা বাবাই হয়, আর ছেলে ছেলেই।’ পাকিস্তানি তারকাকে একই কথা মনে করিয়ে দেওয়ায় ক্ষেপে গিয়ে সঞ্চালককে ধুইয়ে দেন শোয়েব আখতার।

দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যে ব্লকবাস্টার ২০২২ এশিয়া কাপ ম্যাচ শুরুর আগে রবিবার একজন ভারতীয় সাংবাদিকের সঙ্গে শোতে আলোচনার সময়ে রাগে ফেটে পড়েন প্রাক্তন পাকিস্তানি ক্রিকেটার শোয়েব আখতার, যখন শোয়েব আখতারকে বিখ্যাত ‘বাপ বাপ হোতা হে’ মন্তব্য সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, যেটি ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ কোনও একটি ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের সময় করেছিলেন।

সেহওয়াগ বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে স্বীকার করেছিলেন যে, ভারত বনাম পাকিস্তানের একটি ম্যাচে শোয়েব আখতারকে ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। তখন তিনি মন্তব্য করেছিলেন যে, ‘বাবা বাবাই হয়, আর ছেলে ছেলেই।’ ভারতীয় সাংবাদিক পাকিস্তানি প্রবীণকে একই কথা মনে করিয়ে দিয়েছিলেন, তবে শোয়েব আখতার সেই প্রসঙ্গ বলেন যে, বিষয়টি মোটেও এ রকম কিছু নয় এবং সেওয়াগ যদি সত্যি বলতেনও, তবে তাঁকে ছাড়তেন না শোয়েব।

আরও পড়ুন: বাবর কেন অধিনায়কত্ব করছেন, বুঝতে পারছি না- ক্ষোভ উগড়ে দিলেন শোয়েব

সাংবাদিক আখতারকে প্রশ্ন করেন, ‘সবাই জানেন বীরু আপনাকে বলেছিল, বাবাই বাবা, আর ছেলে ছেলেই। এ বাইরে আর কোনও ঘটনা মনে থাকলে বলুন।’ এই বিষয়ে শোয়েব আখতার বলেন, ‘প্রথমত, ও যদি আমার সামনে এই কথা বলত, তা হলে ও বাঁচত না। ও কখন এবং কোন সময়ে বলেছিল, তা আমি জানি না। এমন কী আমি নিজেও একবার ওকে জিজ্ঞেস করেছিলাম। এমন কিছু ছিল কি না।’

আরও পড়ুন: অন্যরা আমাকে খেলতে না পারলেও, সচিন ভয় পেত না- স্বীকার করেই নিলেন শোয়েব

শোয়েব যোগ করেছেন, ‘ও সরাসরি কথা বলেনি। দ্বিতীয়টি হল, আপনি অনুষ্ঠান করবেন। আপনাকে অবশ্যই কথা বলতে হবে। এটি একটি খুব আনন্দের উপলক্ষ, কিন্তু কাজ সম্মানের যোগ্য হওয়া উচিত। আমি সবাইকে সম্মান করি। ভারতের একটি বিশাল ফ্যান ফলোয়িং আছে। এবং আমি সব সময়ে চেষ্টা করি,এমন কিছু না করতে, যাতে দুই দেশের মধ্যে দূরত্ব বাড়ে। কারণ আমি চাই সেই দূরত্ব কমুক। আমি এটা মোটেও পছন্দ করি না।’

পাকিস্তানের প্রাক্তন তারকা এখানেই থামেননি। তিনি আরও বলেন, ‘কে কী বলেছে বাদ দিয়ে, আসুন ক্রিকেটে ফিরে আসি। অনেক ভালো জিনিস আমরা করতে পারি। আমি আপনাকে অনুরোধ করছি। ঠিক তেমনই। এটি এমন একটি বিষয়, যেটা একই জিনিসের বারবার পুনরাবৃত্তি হলে ভালো লাগে না।’ প্রসঙ্গত এই প্রথম নয় যে, শোয়েব আখতার সেহওয়াগের বক্তব্য অস্বীকার করেছেন। তিনি এর আগেও বলেছেন যে, বীরু যদি এমন কথা বলতেন তবে তিনি রক্ষা পেতেন না।

বন্ধ করুন