বাংলা নিউজ > ময়দান > দলের হয়ে রান করা ও প্রতিনিধিত্ব করা সবসময় স্পেশাল: সাব্বিনেনি মেঘানা

দলের হয়ে রান করা ও প্রতিনিধিত্ব করা সবসময় স্পেশাল: সাব্বিনেনি মেঘানা

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের জার্সিতে স্মৃতি মান্ধানার সঙ্গে সাব্বিনেনি মেঘানার ফাইল ছবি (AP)

ম্যাচ শেষে মেঘানা জানান, ‘খুব খুশি। কারণ দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা, দেশের হয়ে রান করা সবসময় স্পেশাল। আমি উইকেটের বিষয়ে খুব একটা ভাবিনি। নিজের যে জায়গাটা শক্তির জায়গা তার উপর ভরসা করেই খেলেছি। নিজের শক্তিকেই আমি ব্যাক করেছি। শেফালি আমাকে খুব সহায়তা করেছে।’

শুভব্রত মুখার্জি: যে কোন ক্রীড়িবিদের কাছেই দেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করা অত্যন্ত গর্বের বিষয়। বড় মঞ্চে দেশের হয়ে পারফরম্যান্স করে দেশকে কাঙ্ক্ষিত জয় এনে দেওয়াটা যে কোন ক্রীড়াবিদের কাছেই স্বপ্নের। ক্রিকেটও তার ব্যতিক্রম নয়। চলতি মহিলা এশিয়া কাপের ম্যাচে মালয়েশিয়ার বিরুদ্ধে দলের বড় জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করার পরে ঠিক সেই কথাটাই জানিয়েছেন ভারতের ওপেনার সাব্বিনেনি মেঘানা। ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। আর ম্যাচ শেষে তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য দলের হয়ে রান করা ও প্রতিনিধিত্ব করা সবসময় স্পেশাল।

ম্যাচ শেষে মেঘানা জানান, ‘খুব খুশি। কারণ দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা, দেশের হয়ে রান করা সবসময় স্পেশাল। আমি উইকেটের বিষয়ে খুব একটা ভাবিনি। নিজের যে জায়গাটা শক্তির জায়গা তার উপর ভরসা করেই খেলেছি। নিজের শক্তিকেই আমি ব্যাক করেছি। শেফালি আমাকে খুব সহায়তা করেছে। দীর্ঘ সময় পরে এটাই আমার প্রথম ম্যাচ ছিল। সেই কারণে ওর সমর্থন আর এই পার্টনারশিপ গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

আরও পড়ুন… ‘বৃষ্টি আসবে জানতাম, লক্ষ্য ছিল প্রথম পাঁচ ওভার দ্রুত শেষ করা,’ হরমনপ্রীত কউর

মহিলা এশিয়া কাপের ম্যাচে সোমবার মুখোমুখি হয়েছিল ভারত এবং মালয়েশিয়া। সিলেটে এই ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে বড় স্কোর করতে সমর্থ হয় ভারতীয় দল। এই বড় স্কোরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন ওপেনার ব্যাটার সাব্বিনেনি মেঘানা। রেলওয়েজের হয়ে খেলা এই ক্রিকেটার ২০১৬ সালে ও মহিলা এশিয়া কাপ জয়ী দলের সদস্যা ছিলেন। সেবার টি-২০ ফর্ম্যাটে খেলা হয়েছিল এই টুর্নামেন্ট। ঘরোয়া ক্রিকেটে অন্ধ্রপ্রদেশ এবং পশ্চিমাঞ্চলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন… চোখে অপারেশন এবি-র, তাহলে কি আর ব্যাট ধরবেন না RCB লেজেন্ড?

এ দিন ভারতের হয়ে ইনিংস সূচনা করেন শেফালি বর্মা এবং সাব্বিনেনি মেঘানা। ওপেনিং জুটিতে ১১৬ রান তুলে ফেলে ভারত। মাত্র ১৩.৫ ওভারেই ১১৬ রান তোলার পর ভাঙে শেফালি-মেঘানা জুটি। ৫৩ বলে ৬৯ রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন মেঘানা। নিজের ইনিংসে তিনি হাঁকান ১১ টি চার এবং ১ টি ছয়‌। দুরাইসিঙ্গামের বলে মাহিরা ইসমাইলের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়ে যান। শেফালি বর্মা ৩৯ বলে ৪৬ রান করেন। ব্যাট হাতে এদিন আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলেন বাংলার রিচা ঘোষ। ১৯ বলে ৩৩ রান করে অপরাজিত থেকে যান তিনি। ভারত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮১ রান করতে সমর্থ হয়। রান তাড়া করতে নামা মালয়েশিয়া দল ৫.২ ওভারে ১৬/২ অবস্থায় পৌঁছানোর পরে বৃষ্টির কারণে খেলা পরিত্যক্ত হয়ে যায়। ফলে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে ৩০ রানে জয় পায় ভারতীয় দল।

বন্ধ করুন