বাংলা নিউজ > ময়দান > আমার বউ মনে করে না ‘আমার সবকিছু বড়’- ভোর চারটের সময় ম্যাচ জিতে রসিকতা মারের

আমার বউ মনে করে না ‘আমার সবকিছু বড়’- ভোর চারটের সময় ম্যাচ জিতে রসিকতা মারের

অ্যান্ডে মারে।

মারে-কোকিনাকিসের লড়াই শুরু হয়েছিল অস্ট্রেলীয় সময় বৃহস্পতিবার। আর খেলা শেষ হয় পরের দিন। ৫ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটের ম্যারাথন লড়াইয়ে শেষ হাসি হাসেন মারেই। গ্র্যান্ড স্ল্যামের ইতিহাসে অন্যতম দীর্ঘ ম্যাচ ছিল এটি।

দেওয়ালে পিঠ ঢেকে যাওয়া অবস্থা থেকে একেবারে স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন। এমন লড়াই তো সুপারস্টাররাই করে থাকেন। প্রথম দু'টি সেট দেখে সকলে ধরেই নিয়েছিল, রাফায়েল নাদালের পর ফের ইন্দ্রপতন হতে চলেছে। দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নিতে চলেছেন অ্য়ান্ডে মারেও। কিন্তু সে রকম কিছু হল না। তৃতীয় সেট থেকে দুরন্ত প্রত্যাবর্তন। আর তার পর ৫ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট লড়াই শেষে খেলার ফল মারের পক্ষে ৪-৬, ৬-৭ (৪-৭), ৭-৬ (৭-৫), ৬-৩, ৭-৫। নিজের ক্যারিয়ারের দীর্ঘতম ম্যাচ খেললেন অ্যান্ডি মারে।

অস্ট্রেলিয়ার থানাসি কোকিনাকিসের বিরুদ্ধে শুরু থেকে বেশ বেকায়দায় ছিলেন মারে। প্রথম সেট কোকিনাকিস সহজেই জিতে যান। মারে বেশ কিছু আনফোর্সড এরর করেন। তারই খেসারত দিতে হয়। ৬-৪-এ কোকিনাকিস প্রথম সেট জেতার পর, দ্বিতীয় সেটে চলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। টাইব্রেকারে দ্বিতীয় সেট গড়ালে, বাজিমাত করেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা।

আরও পড়ুন: প্রবল গরমে অসুস্থ বল-গার্ল, ১০টি ম্যাচ স্থগিত করে দিতে হয়

তবে প্রথম দু'সেট হারলেও, হাল ছাড়েননি মারে। তৃতীয় সেটও গড়ায় টাইব্রেকারে। এ বার বাজিমাত করেন মারে। নিজের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে কোকিনাকিসকে পিছনে ফেলেন তিনি। চতুর্থ সেটে দু’বার প্রতিপক্ষের সার্ভিস ভেঙে সহজে জিতে যান মারে। পঞ্চম সেটে মারে কিছুটা নড়বড় করছিলেন। কিন্তু কোকিনাকিসও বেশ কিছু ভুল করে বসেন। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ৭-৫ সেট জিতে ম্যাচ পকেটে পুড়ে ফেলেন মারে।

মারে-কোকিনাকিসের লড়াই শুরু হয়েছিল অস্ট্রেলীয় সময় বৃহস্পতিবার। আর খেলা শেষ হয় পরের দিন। ৫ ঘণ্টা ৪৫ মিনিটের ম্যারাথন লড়াইয়ে শেষ হাসি হাসেন মারেই। গ্র্যান্ড স্ল্যামের ইতিহাসে অন্যতম দীর্ঘ ম্যাচ ছিল এটি।

আরও পড়ুন: কেরিয়ারের শেষ গ্রান্ডস্ল্যামের প্রথম পরীক্ষায় পাশ, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ডে সানিয়া

দীর্ঘ লড়াইয়ের পর মেলবোর্নে সকাল ৪টের পরে ম্যাচ শেষ করা সত্ত্বেও ৩৫ বছরের তারকা ছিলের রসিকতার মেজাজে। তাঁর স্ত্রী-কে জড়িয়েই কিছু রসিকতা করেন মারে। তিন বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম চ্যাম্পিয়ন স্বীকার করে নেন যে, লড়াই কঠিন ছিল। এবং তিনি ম্যাচেপর বলেনও, ‘এটি আশ্চর্যজনক ছিল যে, আমি ম্যাচকে ঘুরিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছি।’ সেই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘ম্যাচ চলার সঙ্গে সঙ্গে আমি আরও ভালো খেলতে শুরু করি এবং হ্যাঁ আমার হৃদয় বড়।’

সঞ্চালক জন ফিটজেরাল্ড মজা করে মারেকে বলেছিলেন, ‘আমি যদি বলি, তোমার সব কিছুই অনেক বড়!’ প্রাক্তন এক নম্বর তারকা উত্তরটাও দেন মজা করে। বলেন, ‘আমি নিশ্চিত নই যে আমার স্ত্রী সম্মত হবেন।’ ফিটজেরাল্ড পরে কৌতুক করে বলেন যে, মারে একজন ‘অদ্ভূত লোক’। পাল্টা মারের জবাব, ‘আমার স্ত্রী-ও তা বলে!’

বন্ধ করুন