বাংলা নিউজ > ময়দান > বৃষ্টি হলেও ভারতের T20 ম্যাচ করতে প্রস্তুত, আত্মবিশ্বাসী অসম ক্রিকেট

বৃষ্টি হলেও ভারতের T20 ম্যাচ করতে প্রস্তুত, আত্মবিশ্বাসী অসম ক্রিকেট

আত্মবিশ্বাসী অসম ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন (PTI)

বৃষ্টির কারণে যাতে করে ম্যাচের সময় কোন নষ্ট না হয় তার দিকে বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে। বাইরে থেকে আলাদা করে পিচের কভার আনার পাশাপাশি গোটা মাঠকেই যাতে করে কভার করা যায় সেইরকম ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।

শুভব্রত মুখার্জি: ঘরের মাটিতে ভারতীয় দলের অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজ সবেমাত্র শেষ হয়েছে। ২-১ ফলে সিরিজ জিতেছে রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দল। এবার তাদের পরবর্তী প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা দল। ঘরের মাটিতে প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে টি-২০ ফর্ম্যাটের সিরিজ খেলবে ভারতীয় দল। দুর্গাপুজোর সপ্তমীর দিনে অর্থাৎ ২ অক্টোবর অসমে মুখোমুখি হবে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই ম্যাচের সময়তে রয়েছে বৃষ্টির ভ্রুকুটি। তবে সেইসব নিয়ে চিন্তা করতে মানা করছেন অসম ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের (এসিএ) এক সিনিয়র কর্তা। তাদের মতে বৃষ্টির কথা মাথায় রেখে এসিএ'র তরফ থেকে সবরকম প্রস্তুতি সারা হয়ে গিয়েছে।

বৃষ্টির কারণে যাতে করে ম্যাচের সময় কোন নষ্ট না হয় তার দিকে বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে। বাইরে থেকে আলাদা করে পিচের কভার আনার পাশাপাশি গোটা মাঠকেই যাতে করে কভার করা যায় সেইরকম ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। ঠিক যেমনটি রয়েছে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে। উল্লেখ্য অসমের বর্ষাপাড়া স্টেডিয়ামে দীর্ঘ দুই বছর পরে ফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচের আসর বসতে চলেছে। শেষবার ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসে হওয়ার কথা ছিল ভারত বনাম শ্রীলঙ্কার ম্যাচ। তবে প্রবল বৃষ্টির কারণে সেই ম্যাচ সম্পূর্ণভাবে বাতিল করতে হয়েছিল। ফলে সেই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার অত্যন্ত সাবধানী পদক্ষেপ নিচ্ছে এসিএ। বলা ভালো তারা চেষ্টার কোনও খামতি রাখতে রাজি নন।

সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে এসিএর সেক্রেটারি দেবজিত সাইকিয়া জানিয়েছেন '২ অক্টোবরের আবহাওয়ার পূর্বাভাস ভালো রয়েছে। বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। তবে শীতকালের মাঝেও গুয়াহাটিতে বৃষ্টি হয়েছিল। আর সেই কারণেই ২০২০ সালের ম্যাচ আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। সেই কারণেই যেহেতু আবহাওয়া কারও নিয়ন্ত্রণে নেই ফলে আমাদের আরও একটু সতর্ক থাকতে হবে। যদি বৃষ্টি হয় তার জন্য আমরা সবরকমভাবে প্রস্তুত। ২ অক্টোবরের প্রস্তুতি আমাদের সারা হয়ে গিয়েছে।' এসিএ আমেরিকা থেকে দুটি খুব হাল্কা ওজনের পিচ কভার এনেছে। সেই প্রসঙ্গে এসিএ সেক্রেটারি বলেন 'এই কভারগুলো এটা নিশ্চিত করে যাতে করে আর্দ্রতা বল জল কভারের মধ্যে দিয়ে চুঁইয়ে পিচে না আসতে পারে।'

১৬ সেপ্টেম্বর মাঠ ইতিমধ্যেই বিসিসিআইয়ের প্রধান পিচ প্রস্তুতকারকের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। গোটা মাঠ সহ পিচ এখন তাদের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। এসিএ আশা করছে সম্পূর্ণ দর্শক পূর্ণ স্টেডিয়ামেই তারা ম্যাচটি আয়োজন করতে পারবে। প্রথম পর্যায়ের অনলাইন টিকিট বিক্রিও শুরু হয়েছে। যা ইতিমধ্যেই সাড়া ফেলে দিয়েছে। ২৬ তারিখ থেকে ফের ম্যাচের টিকিট অনলাইনে ছাড়া হবে। ম্যাচের দিন দুর্গাপুজা এবং গান্ধীজয়ন্তী থাকায় বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন,পুলিশ এবং অন্যান্য এজেন্সির সঙ্গে ম্যাচ নিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি বৈঠকও সেরে ফেলেছে এসিএ।

বন্ধ করুন