বাংলা নিউজ > ময়দান > AICF-র সচিব দাবা খেলোয়াড়দের 'তথ্য পাচার করেছেন',মোদীর কাছে অভিযোগ অতনু লাহিড়ির
অতনু লাহিড়ি। (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)
অতনু লাহিড়ি। (ছবি সৌজন্য সংগৃহীত)

AICF-র সচিব দাবা খেলোয়াড়দের 'তথ্য পাচার করেছেন',মোদীর কাছে অভিযোগ অতনু লাহিড়ির

  • আবারও অন্তর্কলহ শুরু হয়েছে সর্বভারতীয় দাবা ফেডারেশনে।

অলিম্পিকের আবহের মধ্যেই বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়ে উঠল সর্বভারতীয় দাবা ফেডারেশন (এআইসিএফ)। শনিবার সচিব ভরত সিং চৌহানের বিরুদ্ধে বিশ্বনাথন আনন্দ, কোনেরু হাম্পি, সূর্যশেখর গঙ্গোপাধ্যায়ের মতো খেলোয়াড়দের ব্যক্তিগত তথ্য পাচার-সহ একগুচ্ছ অভিযোগ তুললেন এআইসিএফের যুগ্ম-সচিব অতনু লাহিড়ি। যাবতীয় ‘প্রমাণ’-সহ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছেও অভিযোগ করেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার কলকাতার প্রেস ক্লাবে সাংবাদিক বৈঠকে প্রাক্তন কমনওয়েলথ গেমস চ্যাম্পিয়ন অতনু দাবি করেন, সর্বভারতীয় দাবা ফেডারেশনে নথিভুক্ত লক্ষাধিক খেলোয়াড়ের ব্যক্তিগত তথ্য পাচার করেছেন ভরত। সেই তালিকায় আনন্দ, হাম্পি, সূর্যশেখর, দিব্যেন্দু বড়ুয়ার মতো তারকা খেলোয়াড়রাও আছেন বলে অভিযোগ করেছেন জাতীয় দাবা সংস্থার যুগ্ম-সচিব। তাঁর দাবি, সেইসব তথ্যের দেওয়ার জন্য একটি সংস্থার সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছেন ভরত। যে সংস্থার নিজস্ব কোনও ওয়েবসাইট নেই। পাশাপাশি ওই সংস্থার সঙ্গে যোগ থাকা অপর একটি সংস্থা সর্বভারতীয় দাবা ফেডারেশনের হয়ে দাবা খেলোয়াড়দের থেকে রেজিস্ট্রেশন ফি নিতে শুরু করে। যে বিষয়ে ঘুণাক্ষরেও জানতেন না ফেডারেশনের আধিকারিকরা।

শুধু তাই নয়, অতনুর অভিযোগ, সর্বভারতীয় দাবা ফেডারেশনের তহবিল থেকে ভরত তিন কোটি টাকা সরিয়ে দিয়েছেন। সেই টাকা দিয়ে নয়াদিল্লিতে ভরত নিজের শহরে একটি অস্থায়ী অনুশীলনের জায়গা তৈরি করছেন বলে অভিযোগ করেছেন। অতনু জানান, বিভিন্ন দলিল, নথি-সহ ৫০ পাতার একটি পিডিএফ প্রধানমন্ত্রীকে মেল করেছেন। একটি অডিয়ো ক্লিপও পাঠানো হয়েছে। সেইসঙ্গে নয়া কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুরকেও প্রমাণ-সহ যাবতীয় অভিযোগের বিষয়ে জানানো হবে বলে দাবি করেছেন অতনু।

বন্ধ করুন