বাড়ি > ময়দান > রাস্তার ধারে সবজি বিক্রি করছেন সোনা জয়ী অ্যাথলিট, খবর পেতেই পৌঁছে গেল সরকারি সাহায্য
রাস্তার ধারে সবজি বিক্রি করছেন গীতা। ছবি- টুইটার।
রাস্তার ধারে সবজি বিক্রি করছেন গীতা। ছবি- টুইটার।

রাস্তার ধারে সবজি বিক্রি করছেন সোনা জয়ী অ্যাথলিট, খবর পেতেই পৌঁছে গেল সরকারি সাহায্য

  • রাজ্য স্তরের প্রতিযোগিতায় ৮টি স্বর্ণপদক জিতেছেন বিএ চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রী।

অভাবের সংসারে থেকে খেলাধুলো ও পড়াশোনা চালানো কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছিল। তাই বাধ্য হয়েই সংসারের জন্য দু'পয়সা রোজগারের উপায় খুঁজে নিতে হয়েছিল রাজ্য স্তরে সোনা জয়ী ঝাড়খণ্ডের অ্যাথলিট গীতা কুমারীকে। 

রামগড় জেলায় রাস্তার ধারে বসে সবজি বিক্রি করছিলেন গীতা। বিষয়টি নজরে পড়তেই এক সমাজকর্মী মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের উদ্যোগেই জেলা শাসকের তরফে সরকারি সাহায্য পৌঁছয় গীতার হাতে।

গীতাকে রাস্তার ধারে বসে সবজি বিক্রি করতে দেখেন সমাজকর্মী যোগীতা ভায়ানা। তৎক্ষণাৎ তিনি টুইট করে মুখ্যমন্ত্রীর সাহায্য প্রাথর্না করেন গীতার জন্য। হেমন্ত সোরেন গীতার পরিবারের কাছে সরকারি সাহায্য পৌঁছে দেওয়ার নির্দেশ দেন বোকারোর ডেপুটি কমিশনারকে। 

রামগড়ের ডিসি সন্দীপ সিং গীতার পরিবারের হাতে ৫০ হাজার টাকার চেক তুলে দেন। সেই সঙ্গে ট্রেনিং চালিয়ে যাওয়ার জন্য গীতাকে প্রতি মাসে ৩ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন।

ডেপুটি কমিশনার পরে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ‘রামগড়ে এমন বহু ক্রীড়াবিদ রয়েছেন, যাঁরা দেশকে সম্মান এনে দিতে পারেন। সরকারি তরফে তাঁদের প্রত্যেকেই সাহায্য করা হবে।’

বিএর চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রী গীতা রাজ্যস্তরের ওয়াকিং কম্পিটিশনে ৮টি সোনা জিতেছেন। কলকাতায় অনুষ্ঠিত একাধিক প্রতিযোগিতাতেও পদক রয়েছে তাঁর।

বন্ধ করুন