বাংলা নিউজ > ময়দান > Aus vs Ind: হেডিংলের 'ভূত' গাব্বায়, পন্তের ইনিংস দেখে স্টোকসের ইনিংস মনে পড়ল ল্যাঙ্গারের
ব্রিসবেনে ঋষভ পন্ত এবং হেডিংলেতে বেন স্টোকস। (ছবি সৌজন্য, টুইটার @BCCI এবং রয়টার্স) 
ব্রিসবেনে ঋষভ পন্ত এবং হেডিংলেতে বেন স্টোকস। (ছবি সৌজন্য, টুইটার @BCCI এবং রয়টার্স) 

Aus vs Ind: হেডিংলের 'ভূত' গাব্বায়, পন্তের ইনিংস দেখে স্টোকসের ইনিংস মনে পড়ল ল্যাঙ্গারের

  • বাঁ-হাতি মারকুটে ব্যাটসম্যানরা কি অস্ট্রেলিয়ার কাছে আতঙ্কের হয়ে দাঁড়াচ্ছেন?

বাঁ-হাতি মারকুটে ব্যাটসম্যানরা কি অস্ট্রেলিয়ার কাছে আতঙ্কের হয়ে দাঁড়াচ্ছেন? নাকি সেটা শুধু কাকতলীয় যে ব্রিসবেনের ঋষভ পন্তের মধ্যে হেডিংলেতে বেন স্টোকসের 'ভূত' দেখছেন অস্ট্রেলিয়ানরা?

সে যাই হোক, স্টোকসের সেই অপরাজিত ১৩৫ রানের ইনিংসের ফলে অস্ট্রেলিয়ানদের যে দগদগে ঘা হয়েছিল, তাতে প্রলেপ ফেলেছিল অ্যাসেজ জয়। কিন্তু পন্তের ইনিংসের ক্ষত যে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটে আগামিদিনে আরও গভীর হয়ে থাকবে, তা যেন অজিদের হেড কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গারের কথায় স্পষ্ট।

মঙ্গলবার ব্রিসবেনে রোহিত শর্মা, মায়াঙ্ক আগরওয়াল ছাড়া মোটের উপর সব ভারতীয় ব্যাটসম্যানই গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলেছেন। ৯১ রান করে শুভমন গিল ভারতের শুরুটা শুধু দারুণ করেননি, বরং দলকে জেতার স্বপ্ন দেখিয়েছেন। শরীরে একাধিক আঘাত সত্ত্বেও দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই করেছেন চেতেশ্বর পূজারা। কিন্তু শেষের দিকে অজিদের ডেরায় গিয়ে তাঁদের উপর ছড়ি ঘোরানোর কাজটা করেছেন পন্ত। তাঁর অপরাজিত ৮৯ রানের সৌজন্যেই ৩২ বছর পর গাব্বায় হারের মুখ দেখতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে। জয়সূচক শটও এসেছে তাঁর ব্যাট থেকেই। যিনি চাপের খোলসে ঢুকে না গিয়ে নিজের ছন্দ ধরে রেখেছেন। আক্রমণাত্মক খেলায় অজি বোলারদের মাথার উপর চেপে বসতে দেননি।

ম্যাচের শেষে পন্তের সেই ইনিংসের প্রশংসা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার হেড কোচও। তিনি বলেন, 'সত্যি বলতে পন্তের ইনিংস দেখে আমার বেন স্টোকসের হেডিংলের ইনিংসটার ঝলক মনে পড়ছিল। ও (পন্ত) ক্রিজে এল। ও প্রায় ভয়ডরহীন ছিল। সেজন্য ওর তুমুল প্রশংসা প্রাপ্য। একটা অবিশ্বাস্য ইনিংস খেলেছে।

'সিরিজের প্রেক্ষাপটে ২০১৯ সালে স্টোকসের ইনিংসের সঙ্গে পন্তের ইনিংসের মিল না থাকলেও অস্ট্রেলিয়াকে স্রেফ দমিয়ে দেওয়ার নিরিখে দুই ইনিংসের নিঃসন্দেহে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। ২০১৯ সালের অ্যাসেজে তৃতীয় টেস্টে কার্যত হারের মুখে দাঁড়িয়েছিল ইংল্যান্ড। নবম উইকেট যখন পড়েছিল, তখনও প্রায় ৮০ রান দরকার ছিল স্টোকসদের। সেখান থেকে জ্যাক লিচকে সঙ্গে করে অবিশ্বাস্য অপরাজিত ১৩৫ রানের ইনিংস খেলেছিলেন স্টোকস। তার ফলে সিরিজ ১-১ করেছিল ইংল্যান্ড। পরে অবশ্য অ্যাসেজ জিতে কিছুটা সেই হারের দুঃখ ভুলিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু পন্তের ইনিংসে তো সিরিজও হাতছাড়া হয়েছে। সঙ্গে কাটা ঘায়ে নুনের ছিটের মতো যুক্ত হয়েছে ৩২ বছর পর গাব্বায় হার। সেই জ্বালা কীভাবে মেটাবে অস্ট্রেলিয়া? আদৌও মিটবে তো?

বন্ধ করুন