বাংলা নিউজ > ময়দান > Australia A vs India-পন্ত, বিহারীর জোড়া শতরানের দৌলতে ম্যাচের রাশ ভারতের হাতে
শতরানের পথে পন্ত
শতরানের পথে পন্ত

Australia A vs India-পন্ত, বিহারীর জোড়া শতরানের দৌলতে ম্যাচের রাশ ভারতের হাতে

  • পুরো দিনই অজি তরুণদের নিয়ে ছেলেখেলা করল ভারত

প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিন কুড়িটি উইকেট পড়েছিল। তাই অনেকেই মনে করেছিলেন দ্বিতীয় দিনেও একই ট্রেন্ড চলবে। কিন্তু এদিন রীতিমত অজি তরুণ বোলারদের নিয়ে ছেলেখেলা করলেন ভারতীয়রা। অপরাজিত ১০০ করলেন হনুমা বিহারী ও ঋষভ পন্ত। অর্ধশতরান করলেন শুভমন গিল, মায়াঙ্ক আগরওয়াল। নিশ্চিত ভাবেই অ্যাডিলেডে পিঙ্ক বল টেস্টের আগে প্রস্তুতিতে এই ফর্ম ভারতকে স্বস্তিতে রাখবে। 

এদিন ১৮৮ বলে শতরান করেন হনুমা বিহারী।  দিনের শেষে তিনি অপরাজিত ১০৪ রানে। অজি ভূমে প্রস্তুতি ম্যাচগুলিতে এই প্রথম বড় রান পেলেন তিনি। শতরানের পথে ১৩টি চার মারেন তিনি। ওপর দিকে ক্লান্ত অজি স্পিনারদের ওপর দাপট দেখান ঋষভ পন্ত। তারপর শেষ ওভারে উইল্ডারমুথকে নির্মম প্রহার করে ২২ রান সঞ্চয় করে ৭৩ বলে ১০৩ রানে অপরাজিত থাকলেন ঋষভ পন্ত। তিনি ছয়টি বিশাল ছক্কা ও নয়টি চার মেরেছেন এই ইনিংসে। দিনের শেষে ভারত ৪ উইকেটে ৩৮৬, লিড ৪৭২ রানের। 

এদিন মাত্র তিন রান করে স্টেকেটের বলে সোয়েপসনের হাতে ক্যাচ আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন পৃথ্বী। আগের ম্যাচে ভালো বল করার পর এই ম্যাচে তাঁকে বিশ্রাম দিয়েছিল দল। কিন্তু কনকাশন ইনজুরির জেরে কনকাশন সাব হিসেবে খেলছেন স্টেকেটে।তাতেই এখনও পর্যন্ত নিয়েছেন দুটি উইকেট।

প্রথম ইনিংসেও ভালো খেলেছিলেন। সেই একই ফর্মের ধারা সিডনিতে প্রস্তুতি ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে বজায় রাখলেন শুভমন গিল। মাত্র এক উইকেট হারিয়ে একশো রানের গণ্ডি পেরোয় অতিথিরা। তারপরেই যদিও ব্যক্তিগত ৬৫ রানের মাথায় স্লিপে অ্যাবটের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন শুভমন গিল। পেসারদের সাবলীল ভাবে খেলার পর স্পিনার সোয়েপসনের হাতে আউট হন তিনি। ৭৮ বলে দশটি চারে সাজানো তাঁর এই অনবদ্য ইনিংস। চা পানের বিরতিতে ২৮ ওভার শেষে ভারত করে ১১১-২। 

তারপরেই একই ভাবে খেলে যান বিহারী ও মায়াঙ্ক। ১২০ বলে ৬১ রান করে বাউন্ডারিতে মারতে গিয়ে আউট হন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। এদিন তিনি চারটি চার ও দুটি বিশাল ছয় হাঁকান। উইল্ডারমুথের বলে সাবস্টিটউট রোয়ের হাতে ক্যাচ আউট হন তিনি। ডিনার ব্রেকে ভারত করে ২২২-৩, ৬১ ওভারের শেষে। 

বিরতির পর অবশ্য আউট হন রাহানে। ৩৮ রান করে স্টেকেটের বলে পিছনে ক্যারির হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হয়েছেন অধিনায়ক। এরপরেই বৃষ্টির জন্য সাময়িক বন্ধ থাকে খেলা। তখন ভারতের স্কোর ছিল ২৪৯-৪। তারপরেই খেলা শুরু হতে দাপট দেখান পন্ত। চেনা ছন্দ চার ছয়ের ফুলঝুরি দেখল সিডনি পন্তের ব্যাট থেকে। ম্যাডিসন ও সোয়েপসনকে রীতিমত অবহেলা করে শতরান করলেন ঋষভ। দিনের শেষ ওভারে উইল্ডারমুথকেও পড়ালেন ক্রিকেটের পাঠ। শেষ ২৯ ওভারে ভারত করেছে ১৬৪ রান, কার্যত ওডিআইয়ের রান রেটে। এর মধ্যেও যদিও কেতাবি ধাঁচে নিজের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ২১তম শতরান করলেন বিহারী। কোনও ঝুঁকি ছাড়া গোলাপি বলে ব্যাটিং করে বোঝালেন তিনি টেস্টের জন্য প্রস্তুত। 

অজিদের মধ্যে একটি করে উইকেট নিয়েছেন সোয়েপসন ও উইল্ডারমুথ। তবে স্টেকেটে ও সাদারল্যান্ড ছাড়া কেউই ভারতীয় ব্যাটারদের থেকে সমীহ আদায় করতে পারেননি। প্রথম দিনে পিচে যে ঝাঁঝ ছিল, সেটা কিছুটা হলেও দ্বিতীয় দিনে অনুপস্থিত ছিলে। কিন্তু অনেকাংশে বোলারদেরও এদিন ছন্নছাড়া লাগে ভারতীয় ব্যাটারদের দাপটের সামনে। 

 

বন্ধ করুন