বাংলা নিউজ > ময়দান > 'কনকাশন'-র প্রথম সুবিধা পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া, এখন ‘কান্নাকাটি’ কেন? তোপ সেহওয়াগের
বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার এবং ফেসবুক)
বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার এবং ফেসবুক)

'কনকাশন'-র প্রথম সুবিধা পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া, এখন ‘কান্নাকাটি’ কেন? তোপ সেহওয়াগের

  • অস্ট্রেলিয়াকে পালটা খোঁচা দিয়ে বিরাট কোহলিদের পাশে দাঁড়ালেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ।

শুভব্রত মুখার্জি

ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে ক্রিকেট ম্যাচ মানেই উত্তেজনার পারদ চড়চড় করে বেড়ে যায়। মাঠে স্লেজিং থেকে বিপক্ষকে সবরকম ভাবে চাপে ফেলার কৌশল খোঁজার চেষ্টায় থাকে সবপক্ষ। করোনা পরবর্তীতে ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়ার প্রথম টি-টোয়েন্টিতে বিতর্ক শুরু হয়েছে 'কনকাশন সাব' নিয়ে।

রবীন্দ্র জাদেজার 'কনকাশন' বদলি হয়ে মাঠে নামা যুজবেন্দ্র চাহাল ৩ উইকেট নিয়ে ভারতকে ১১ রানের জয় এনে দেন। এতে বিতর্কে ঘৃতাহুতি হয়। অলরাউন্ডার জাদেজার জায়গায় স্পেশালিস্ট স্পিনার চাহালকে নামানোর তীব্র প্রতিবাদ করতে দেখা যায় অজি শিবিরকে। কোচ জাাস্টিন ল্যাঙ্গার ম্যাচ রেফারি ডেভিড বুনের সঙ্গে কথাও বলেন। 

ম্যাচের পর অজি অল-রাউন্ডার মোজেস হেনরিকসও ভারতীয় দলের বিরুদ্ধে 'কনকাশন সাব' নিয়মের অপব্যবহারের অভিযোগ তোলেন। তিনি বলেন 'হেলমেটে বল লাগায় জাদেজার কনকাশন সাব নামানো যেতেই পারে। জাদেজা একজন অল-রাউন্ডার। চাহাল একজন বিশেষজ্ঞ স্পিনার। কনকাশনের ক্ষেত্রে একই রকম ক্রিকেটারদের সাব হিসেবে নামানো যায়? এক্ষেত্রে জাদেজা আর চাহাল কীভাবে একই রকম ক্রিকেটার হলো সেটা বুঝতে পারছি না।'

এবার এই ইস্যুতে অস্ট্রেলিয়াকে পালটা খোঁচা দিয়ে বিরাট কোহলিদের পাশে দাঁড়ালেন বীরেন্দ্র সেহওয়াগ। তিনি বলেন, 'আমাদের জায়গা থেকে সিদ্ধান্তটা সঠিক। জাদেজা খেলার মতো ফিট ছিল না। বল করতে পারত না। কনকাশন হতে কতক্ষণ সময় লাগে? ২৪ ঘণ্টা সময়ও লাগে। ভারত সুযোগের সদ্ব্যবহার করেছে। ড্রেসিংরুমে এসে হেলমেট খোলার পর বোঝা যায় অবস্থা কতটা গুরুতর। অনেক সময় মাথা ঘোরে। আমি অনেকবারই হেলমেটে আঘাত পেয়েছি। আমি জানি কেমন লাগে। আমাদের সময় এমন নিয়ম ছিল না। (স্টিভ) স্মিথ মাথায় আঘাত পাওয়ার পর বদলি হিসেবে (মার্নাস) লাবুশেনে নেমে রান করেছে। অজিরাই তো এই নিয়মের প্রথম সুবিধাভোগী। এ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ানদের কান্নাকাটি করার কি আছে?'

বন্ধ করুন