বাংলা নিউজ > ময়দান > Australia vs India: ৪৬ বছর আগের ৪২ রানের লজ্জা ছাপিয়ে গেলেন বিরাটরা, ২ ইনিংসে কী কী মিল রয়েছে?
আউট জসপ্রীত বুমরাহ। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
আউট জসপ্রীত বুমরাহ। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

Australia vs India: ৪৬ বছর আগের ৪২ রানের লজ্জা ছাপিয়ে গেলেন বিরাটরা, ২ ইনিংসে কী কী মিল রয়েছে?

  • ৪৬ বছরের ব্যবধানে টেস্টের ইতিহাসে ভারতের দুই সর্বনিম্ন ইনিংসের মধ্যে দুটি অভাবনীয় মিল রয়েছে।

এতদিন লজ্জার স্কোরটা ছিল ৪২। শনিবার দেড় ঘণ্টার একটা স্পেলে সেই লজ্জার স্কোর কমে দাঁড়াল ৩৬। তবে ৪৬ বছরের ব্যবধানে টেস্টের ইতিহাসে ভারতের দুই সর্বনিম্ন ইনিংসের মধ্যে দুটি অভাবনীয় মিল রয়েছে।

এক উইকেটে ন'রান নিয়ে খেলতে নেমে শনিবার অ্যাডিলেডে প্রথম সেশনও পার করতে পারেনি ভারত। প্রথম ধাক্কাটা দিয়েছিলেন প্যাট কামিন্স। তারপর একে একে চেতেশ্বর পূজারা, মায়াঙ্ক আগরওয়াল, বিরাট কোহলি, অজিঙ্কা রাহানেরা প্যাভিলিয়নে ফেরেন। শেষপর্যন্ত ন'উইকেটে ৩৬ রান তুলতে পারে ভারত। কামিন্সের বাউন্সারে হাতে চোট লেগে মাঠের বাইরে বেরিয়ে যান মহম্মদ শামি। তার জেরে অলআউট হতে হয়নি কোহলি বাহিনীকে। 

একইভাবে ১৯৭৪ সালে জুনে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধেও অলআউট হয়নি ভারত। ইংল্যান্ড সফরের দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৪২ রান তুলেছিল। ভাগবত চন্দ্রশেখর অবশ্য ব্যাট করতে পারেননি। তার জেরে ন'উইকেটে সেই ৪২ রান তুলেছিল অজিত ওয়াড়করের ভারত। যে রানটা ৪৬ বছর ধরে ভারতের টেস্ট ইতিহাসে সর্বনিম্ন স্কোর ছিল।

সেখানেই অবশ্যই মিল শেষ হয়নি। ১৯৭৪ সালের সেই ইনিংসে দু'জন পেস বোলারের সামনে বশ্যতা স্বীকার করেছিল ভারত। আট ওভারে ১৯ রান দিয়ে চার উইকেট নিয়েছিলেন জিওফ আর্নল্ড। অপর পেসার আট ওভারে ২১ রান দিয়ে পাঁচ উইকেট তুলেছিলেন ক্রিস ওল্ড। একইভাবে ৪৬ বছর পর অ্যাডিলেডে দিনরাতের টেস্টে দুই অস্ট্রেলিয়ান পেসার- প্যাট কামিন্স এবং জোস হেজেলউডের সামনে আত্মসমর্পণ করেন রাহানেরা। তবে সেই বোলিং ফিগার আরও দুর্ধর্ষ। পাঁচ ওভারে আট রান দিয়ে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন হেজেলউড। চার উইকেট নিয়েছেন কামিন্স। ১০.২ ওভারে দিয়েছেন ২১ রান।

বন্ধ করুন