বাংলা নিউজ > ময়দান > ভারতের সঙ্গে অজিদের পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ, উত্তেজিত পন্টিং

ভারতের সঙ্গে অজিদের পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ, উত্তেজিত পন্টিং

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়ার সিরিজের সংখ্যা নিয়ে মুখ খুললেন রিকি পন্টিং

আইসিসি রিভিউতে পন্টিং বলেছেন, ‘আমি মনে করি অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতের দর্শকরা এবং সম্ভবত সারা বিশ্বের যে কেউ এই খেলাকে ভালোবাসেন, তারা অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতের মধ্যে আরও বেশি টেস্ট ম্যাচ দেখতে পছন্দ করবেন। উদ্যোগ এবং আরও গুরুত্বপূর্ণ, আমি মনে করি সমস্ত খেলোয়াড়রা সত্যিই এটি উপভোগ করবে।’

ভারতীয় পুরুষ দল আইসিসির ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রাম অর্থাৎ এফটিপি-র অংশ হিসাবে আগামী পাঁচ বছরে অর্থাৎ মে ২০২৩ থেকে এপ্রিল ২০২৭ পর্যন্ত ১৩৮টি দ্বিপাক্ষিক আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলবে। এই চক্রের মধ্যে রয়েছে দুটি আইসিসি পুরুষদের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ,আইসিসি টুর্নামেন্ট এবং দ্বিপাক্ষিক ও তিন-দেশীয় সিরিজ।ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার বর্ডার গাভাসকর ট্রফিতে চার ম্যাচের পরিবর্তে পাঁচটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

বর্ডার-গাভাসকর ট্রফিকে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ করার আইসিসির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক রিকি পন্টিং। তিনি বিশ্বাস করেন যে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সমর্থকরা দুই দলের মধ্যে আরও বেশি টেস্ট ম্যাচ দেখতে পছন্দ করবেন।

আরও পড়ুন… Virat Kohli Debut: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৫ বছরে পা দিলেন কোহলি, জেনে নিন অভিষেক ম্যাচের আজানা কথা

২০০৪ সালে ভারতের অস্ট্রেলিয়া সফরের পর থেকে বর্ডার-গাভাসকর ট্রফিতে খেলা হয় চার টেস্ট ম্যাচের সিরিজ। তবে,২০১০-১১ সালে মাত্র দুটি টেস্ট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। যাইহোক,আইসিসি কর্তৃক ঘোষিত নতুন ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রামটি আইসিসি ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের আসন্ন চক্রের প্রতিটিতে পাঁচ ম্যাচের বর্ডার-গাভাসকর ট্রফি সিরিজ খেলা দেখতে পাবে।

আইসিসি রিভিউতে রিকি পন্টিং বলেছেন,‘আমি মনে করি অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতের দর্শকরা এবং সম্ভবত সারা বিশ্বের যে কেউ এই খেলাকে ভালোবাসেন,তারা অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতের মধ্যে আরও বেশি টেস্ট ম্যাচ দেখতে পছন্দ করবেন। তাই আমি মনে করি এটি একটি দুর্দান্ত ম্যাচ। উদ্যোগ এবং আরও গুরুত্বপূর্ণ,আমি মনে করি সমস্ত খেলোয়াড়রা সত্যিই এটি উপভোগ করবে।’

আরও পড়ুন… ধোনি-কোহলির তুলনা টেনে ক্যাপ্টেন রোহিতের পাশে দাঁড়ালেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

রিকি পন্টিং আরও বলেছেন,‘অস্ট্রেলিয়া-ভারত সিরিজের বিষয় হল যে আমরা যে কন্ডিশনে খেলি তা অনেক আলাদা এবং এত বৈপরীত্য। ভারত যখন অস্ট্রেলিয়ায় আসে তখন তারা দ্রুত,বাউন্সি উইকেট পায়,যা ফাস্ট বোলারদের পক্ষে যায়। এবং তারপরে যখন অস্ট্রেলিয়া ভারতে যায় প্রচুর স্পিন এবং প্রচুর রিভার্স সুইং বোলিং পায়। তাই আমি মনে করি এটি এমন একটি শর্ত যা খেলোয়াড়দের সত্যিই পছন্দ এবং ভক্তরাও দেখতে পছন্দ করবে।’

বন্ধ করুন