বাংলা নিউজ > ময়দান > কলকাতা বিমানবন্দরে CISF-এর সংবর্ধনা টোকিও অলিম্পিক্সে পদকজয়ী লভলিনাকে
ছবি : সিআইএসএফ (CISF)
ছবি : সিআইএসএফ (CISF)

কলকাতা বিমানবন্দরে CISF-এর সংবর্ধনা টোকিও অলিম্পিক্সে পদকজয়ী লভলিনাকে

  • শনিবার মহাত্মা গ্যালারিতেও যান লভলিনা বড়গোহাঁই। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ডিআইজি-সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

শনিবার কলকাতা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেন টোকিও অলিম্পিক্সে ব্রোঞ্জ পদকজয়ী লভলিনা বড়গোহাঁই। প্রখ্যাত ভারতীয় বক্সারকে সংবর্ধনা দিল কলকাতা বিমানবন্দরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিআইএসএফ। আর তাঁর এই আগমন উপলক্ষ্যে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সিআইএসএফ-এর এএসজি ইউনিট। বিমানবন্দরের সুরক্ষার দায়িত্বে থাকা উচ্চপদস্থ কর্তারা শনিবার উপস্থিত ছিলেন।

শনিবার মহাত্মা গ্যালারিতেও যান লভলিনা। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ডিআইজি-সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। পুষ্পস্তবক অর্পনের মাধ্যমে মহাত্মা গান্ধীকে শ্রদ্ধা জানান তাঁরা। প্রসঙ্গত, শনিবার জন্মদিন ছিল লাভলিনারও। সকলের উপস্থিতিতে লভলিনা কেক কাটেন। শনিবার সিআইএসএফ-এর মহিলা কর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন। সিআইএসএফ কর্মীদের সঙ্গে চলে কথোপকথন।

অসমের গোলাঘাট জেলায় জন্ম বছর ২৪-এর লভলিনার। ২০১৮ সালে AIBA মহিলাদের ওয়ার্ল্ড বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জ জেতেন তিনি। গত বছর অর্জুন পুরস্কার জেতেন লভলিনা। টোকিও থেকে ভারতে ফিরে লভলিনা বলেছেন, ‘পরিবারের থেকে আট বছর দূরে ছিলাম। পরিবারের সমস্যার সময়ে পাশে থাকতে পারিনি। দূরে থেকে শুধু জানতে পেরেছি। কিছুই করতে পারিনি। এটাই আমার জীবনে সবচেয়ে বড় আত্মত্যাগ।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘এ ছাড়াও আমার বয়সে অনেক ভাল লাগা থাকে। যেগুলো আমাকে ত্যাগ করতে হয়েছিল। যেমন ফাস্টফুড খাওয়া একেবারে বন্ধ করে দিয়েছিলাম। এবং গত আট বছর ধরে আমি ট্রেনিং থেকে কোনও ছুটি নেওয়ার কথা ভাবিনি। টানা আট বছর ধরে প্রতিটি দিন ট্রেনিং করেছি।’

বন্ধ করুন