বাংলা নিউজ > ময়দান > অধিনায়ক হিসেবে কোহলির বড় রেকর্ড ভাঙলেন বাবর আজম, লিখলেন নয়া ইতিহাস

অধিনায়ক হিসেবে কোহলির বড় রেকর্ড ভাঙলেন বাবর আজম, লিখলেন নয়া ইতিহাস

বাবর আজম এবং বিরাট কোহলি।

বুধবার মুলতানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ানডে-তে রান তাড়া করার সময়ে ১০৭ বলে ১০৩ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন বাবর। যা দলের জয়ের ভিত গড়ে দেয়। পাশাপাশি অধিনায়ক হিসেবেও হাজার রান পূর্ণ করেন তিনি। এ দিন হাজার রান করতে তাঁর প্রয়োজন ছিল ৯৮ রান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম একদিনের ম্যাচেই একেবারে চেনা ছন্দে বাবর আজম। নিজের মেজাজেই দুরন্ত সেঞ্চুরি হাঁকালেন। সেই সঙ্গে অধিনায়ক হিসেবে ভাঙলেন বিরাট কোহলির রেকর্ড। করলেন নয়া নজির।

বুধবার মুলতানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ানডে-তে রান তাড়া করার সময়ে ১০৭ বলে ১০৩ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন বাবর। যা দলের জয়ের ভিত গড়ে দেয়। পাশাপাশি অধিনায়ক হিসেবেও হাজার রান পূর্ণ করেন তিনি। এ দিন হাজার রান করতে তাঁর প্রয়োজন ছিল ৯৮ রান। ৯৬ থেকে চার মেরে সেঞ্চুরির পাশাপাশি হাজারের মাইলস্টোনও স্পর্শ করেন বাবর আজম

অধিনায়ক হিসেবে হাজার রান পূরণ করতে বাবরের লেগেছে মাত্র ১৩ ইনিংস। ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক বিরাট কোহলির লেগেছিল ১৭ ইনিংস। সেক্ষেত্রে কোহলিকে ছাপিয়ে পাক অধিনায়ক বাবর অনেক তাড়াতাড়ি এই নজির করে ফেললেন। এ ছাড়াও অধিনায়ক হিসেবে হাজার রান পূরণ করতে এবি ডি ভিলিয়ার্সের ১৮, কেন উইলিয়ামসনের ২০ ও অ্যালেস্টার কুকের ২১ ইনিংস লেগেছিল।

অধিনায়ক হিসেবে ১৩ ম্যাচে বাবরের সেঞ্চুরিই ৬টি। তাঁর ওয়ানডে কেরিয়ার সেঞ্চুরির সংখ্যা এখন ১৭টি।

আরও পড়ুন: প্রথম প্লেয়ার হিসেবে WC Super League-এ হাজার রান পার বাবরের, ধারেকাছে নেই কোহলি

বিরাট কোহলি এখনও সেঞ্চুরির খোঁজে হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ২০১৯-এর নভেম্বর থেকে কোহলির ব্যাটে শতরানের দেখা নেই। অন্যদিকে পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম একের পর এক সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে রেকর্ড গড়ে চলেছেন।

ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম ওয়ান ডে ম্যাচে অধিনায়কোচিত শতরান করেন বাবর আজম। তিনি ৯টি বাউন্ডারির সাহায্যে ১০৭ বলে ১০৩ রান করে আউট হন। এই নিয়ে টানা তিনটি ওয়ান ডে ম্যাচে শতরান করলেন বাবর। এর আগে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজের শেষ ২টি ওয়ান ডে ম্যাচেও সেঞ্চুরি করেছিলেন পাক অধিনায়ক।

বুধবার টসে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথমে ব্য়াট করে ৮ উইকেটে ৩০৫ রান করে। শাই হোপ ১৩৪ বলে ১২৭ রান করে। শামারাহ ব্রুক ৭০ রান করেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাবরের সেঞ্চুরি, ইমাম উল হকের ৬৫, মহম্মদ রিজওয়ানের ৫৯ এবং খুশদিল শাহের ঝড়ো ২৩ বলে ৪১ রানের হাত ধরে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় পাকিস্তান। তারা ৫ উইকেটে ৩০৬ রান করে। ৪ বল বাকি থাকতে ৫ উইকেটে ম্যাচটি তারা জিতে যায়।

বন্ধ করুন