বাংলা নিউজ > ময়দান > নিজের ইনিংসে নজর, দলের জয়ে নয়, শেষ পর্যন্ত ব্যাট করেও দলকে জেতাতে পারলেন না বাবর আজম
বাবর আজম। ছবি- পিএসএল।
বাবর আজম। ছবি- পিএসএল।

নিজের ইনিংসে নজর, দলের জয়ে নয়, শেষ পর্যন্ত ব্যাট করেও দলকে জেতাতে পারলেন না বাবর আজম

  • একা দশ ওভারের বেশি ব্যাট করেন পাক অধিনায়ক। তবু জয় অধরা।

২৪ বলে ৪৪ রানের একটা আগ্রাসী ইনিংস ৬৩ বলে অপরাজিত ৮৫ রানের থেকেও কতটা কার্যকরী, সেটা বোঝা গেল পাকিস্তান সুপার লিগে। করাচি কিংসের হয়ে বাবর আজম ওপেন করতে নেমে একপ্রান্ত আঁকড়ে পড়ে থাকলেন। তবু মুলতান সুলতানসের ঝুলিয়ে দেওয়া লক্ষ্যমাত্র পার করাতে পারলেন না নিজের দলকে। ফলে ম্যাচে হারের মুখ দেখতে হয় করাচিকে।

আবু ধাবিতে ম্যাচ ছিল মুলতান ও করাচির মধ্যে। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মুলতান নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ১৭৬ রান তোলে। রিলি রসৌ ৭টি বাউন্ডারির সাহায্যে ২৪ বলে ৪৪ রান করেন। খুশদিল শাহ ৩টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৩২ বলে ৪৪ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এছাড়া মহম্মদ রিজওয়ান ২৩ বলে ২৯, শোয়েব মাকসুদ ১৪ বলে ৩১ ও সোহেল তনভীর ১৪ বলে ১৪ রান করেন। ৩ ওভারে ১২ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট নেন থিসারা পেরেরা।

টি-২০ ক্রিকেটে ১৭৭ রান তুলে ম্যাচ জেতা খুব কঠিন নয়। বিশেষ করে বাবর আজমের মতো ব্যাটসম্যান যখন ইনিংসের ওপেন করতে নেমে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন। একা সামলান ১০ ওভারের বেশি। বাবর ৫টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৬৩ বলে ৮৫ রান করেন। করাচি আটকে যায় ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৬৪ রানে। ওয়ালটন ৩৫ রানের যোগদান রাখেন। বাকিরা বলার মতো রান করতে পারেননি।

ইমরান খান ২৮ রানে ৩টি ও ইমরান তাহির ২৭ রানে ২টি উইকেট নেন। ১২ রানের ব্যবধানে ম্যাচ জেতে করাচি। ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন রিলি রসৌ।

বন্ধ করুন