বাংলা নিউজ > ময়দান > BAN vs ZIM: টি-২০ সিরিজ হারের পর জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ১ম ওয়ানডেতেও হার টাইগারদের
জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ১ম ওয়ানডেতে হার টাইগারদের। ছবি টুইটার

BAN vs ZIM: টি-২০ সিরিজ হারের পর জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ১ম ওয়ানডেতেও হার টাইগারদের

  • জিম্বাবোয়ের দুই ব্যাটার সম্পন্ন করেন শতরান । মাত্র ৮১ বলে সেঞ্চুরি করেন সিকান্দার রাজা। ইনোসেন্ট কাইয়া সেঞ্চুরি করেন ১১৫ বলে। তাদের চতুর্থ উইকেট জুটিতে ১৭২ বলে ওঠে ১৯২ রান। মোসাদ্দেকের বলে ১২২ বলে ১১০ রান করা কাইয়া আউট হন।

শুভব্রত মুখার্জি: জিম্বাবোয়ের মাটিতে টি-২০ সিরিজ হারের পর ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ও হারের মুখ দেখল বাংলাদেশ দল। পূর্ণশক্তির দল নিয়ে ও জিম্বাবোয়ের বিপক্ষে টাইগারদের এই হার লজ্জার। আফ্রিকার এই দেশটির বিরুদ্ধে টানা ১৯টি ওয়ানডে ম্যাচে অপরাজেয় থাকার পর অবশেষে হারের মুখ দেখল বাংলাদেশ। ওয়ানডেতে শক্তিশালী দল হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশকে ৫ উইকেটে হারিয়ে দিল জিম্বাবোয়ে। তাও ৩০৪ রানের বড় লক্ষ্য তাড়া করে জয়।

আরও পড়ুন: CWG 2022: ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে পরীক্ষা চলবে, ইঙ্গিত রমেশ পাওয়ারের

একমাত্র শাকিব ছাড়া এদিন পূর্ণশক্তির দল নিয়ে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। অন্যদিকে চোটের কারণে ম্যাচে খেলতেই পারেননি জিম্বাবোয়ে অধিনায়ক তথা তাদের সেরা ব্যাটার ক্রেগ আরভাইন। চোটের কারণেই দলে নেই পেসার ব্লেসিং মুজারবানি এবং অলরাউন্ডার শন উইলিয়ামস। তাদের অনুপস্থিতিতে এদিন ম্যাচের নায়ক হয়ে গেলেন সিকান্দার রাজা এবং ইনোসেন্ট কাইয়া।

জয়ের জন্য ৩০৪ রান তাড়া করতে নেমে এদিন জিম্বাবোয়ে প্রথমেই দুই উইকেট হারায়। ৬ রানে পতন হয় ২ উইকেটের। রেজিস চাকাভাকে (২) বোল্ড করে দেন মুস্তাফিজ। শরীফুলের বলে আউট হন তারিশাই মুশকান্দা (৪)। এরপর ইনোসেন্ট কাইয়া এবং ওয়েসলি মাধেভেরে দুজনে ৪২ রানের জুটি গড়েন। দ্বিতীয় রান নিতে গিয়ে ভুল বোঝাবুঝিতে রানআউট হয়ে যান মাধেভেরে (১৯)।এরপর অলরাউন্ডার সিকান্দার রাজাকে সঙ্গী করে জুটি বাঁধেন কাইয়া। ইনোসেন্ট কাইয়া ৬৬ বলে সম্পন্ন করেন কেরিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতরান। ৫৭ বলে কেরিয়ারের ২১তম অর্ধশতরান করেন রাজা।

জিম্বাবোয়ের দুই ব্যাটার সম্পন্ন করেন শতরান । মাত্র ৮১ বলে সেঞ্চুরি করেন সিকান্দার রাজা। ইনোসেন্ট কাইয়া সেঞ্চুরি করেন ১১৫ বলে। তাদের চতুর্থ উইকেট জুটিতে ১৭২ বলে ওঠে ১৯২ রান। মোসাদ্দেকের বলে ১২২ বলে ১১০ রান করা কাইয়া আউট হন।এরপর রাজার সঙ্গী হন লুকি জঙ্গুই। দুজনের ৪২ রানের জুটিতে জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে জিম্বাবোয়ে। ১৮ বলে ২৪ রান করে আউট হন জঙ্গুই। জয়ের জন্য তখনো প্রয়োজন ছিল ১৭ বলে ৮ রান। ১০৯ বলে অপরাজিত ১৩৫ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করেন সিকান্দার রাজা। ১০ বল বাকি থাকতে ম্যাচ জেতে জিম্বাবোয়ে।

এদিন টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ২ উইকেটে ৩০৩ রানের বিশাল স্কোর গড়ে বাংলাদেশ। প্রথম চার ব্যাটার অর্ধশতরান করেন। লিটন দাসের কেরিয়ারের ৭ম সেঞ্চুরি প্রায় নিশ্চিত মনে হচ্ছিল। এই সময়তে পেশিতে টান লাগায় ৮১* রানে অপরাজিত থেকেই তাকে স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়তে হয়। তামিম করেন ৮৮ বলে ৬২ রান।প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ওয়ানডেতে ৮ হাজার রানের মাইলফলক পেরিয়ে যান তিনি।

বাংলাদেশের ওপেনিং জুটিতে ওঠে ১১৯ রান। এনামুল হক বিজয় তিন বছর পর ওয়ানডে দলে ফিরেই ৬২ বলে ৭৩ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন। মুশফিকুর রহিম ৪৮ বলে ৫২* রানের অপরাজিত এক ইনিংস খেলেন। মাহমুদুল্লাহ অপরাজিত থাকেন ২০ রানে। তবে বড় রান করেও শেষ পর্যন্ত জয়ের মুখ দেখা হল না বাংলাদেশের।

বন্ধ করুন