বাংলা নিউজ > ময়দান > ২০১৬ বিশ্বকাপের পর T20-তে নিউজিল্যান্ড এবং বাংলাদেশ ওপেনারদের লজ্জার নজির
নিউজিল্যান্ডকে হারাল বাংলাদেশ।
নিউজিল্যান্ডকে হারাল বাংলাদেশ।

২০১৬ বিশ্বকাপের পর T20-তে নিউজিল্যান্ড এবং বাংলাদেশ ওপেনারদের লজ্জার নজির

  • বুধবার নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনার টম ব্লান্ডেল এবং রাচিন রবীন্দ্র যথাক্রমে ২ এবং ০ রান করেছেন। এ দিকে বাংলাদেশের মহম্মদ নইম এবং লিটন দাস দু'জনেই ১ রান করে করেছেন।

বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের মধ্যে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এক অদ্ভূত নজির হল। যদিও সেই নজির লজ্জার। দুই দলের চার ওপেনারই পাঁচের উপর রানই করতে পারেননি। যেটা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ইতিহাসে লজ্জার নজির। তবে এই ঘটনা এই নিয়ে দ্বিতীয় বার ঘটল।

এর আগে ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে এমনই লজ্জার নজির গড়েছিল ইংল্যান্ড এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দুই দলের ওপেনারদের কারও রানই পাঁচের উপর পৌঁছয়নি। সে বার ইংল্যান্ডের জেসন রয় এবং অ্যালেক্স হ্যালস যথাক্রমে ০ এবং ১ রান করেছিলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই ওপেনার জনসন চার্লস এবং ক্রিস গেইল করেছিলেন যথাক্রমে ১ এবং ৪ রান।

বুধবার নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনার টম ব্লান্ডেল এবং রাচিন রবীন্দ্র যথাক্রমে ২ এবং ০ রান করেছেন। এ দিকে বাংলাদেশের মহম্মদ নইম এবং লিটন দাস দু'জনেই ১ রান করে করেছেন।

এ দিন মীরপুরে প্রথমে ব্যাট করে নিউজিল্যান্ড ১৬.৫ ওভারে মাত্র ৬০ রানে অল-আউট হয়ে যায়। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ১৮ রান করে সংগ্রহ করেন ক্যাপ্টেন টম লাথাম ও হেনরি নিকোলস। বাকিরা কেউই দু'অঙ্কের রানে পৌঁছতে পারেননি। টম ব্লান্ডেল ২, রাচিন রবীন্দ্র ০, উইল ইয়ং ৫, কলিন ডি'গ্র্যান্ডহোম ১, কল ম্যাককঞ্চি ০, ডাগ ব্রেসওয়েল ৫, আজাজ প্যাটেল ৩, ব্লেয়ার টিকনার অপরাজিত ৩ ও জেকব ডাফি ৩ রান করেন।

বাংলাদেশের হয়ে মুস্তাফিজুর ১৩ রানে ৩টি উইকেট নেন। ২টি করে উইকেট নিয়েছেন শাকিব আল হাসান, নাসুম আহমেদ ও মহম্মদ সইফুদ্দিন। ১টি উইকেট মেহেদি হাসানের।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ১৫ ওভারে ৩ উইকেটের বিনিময়ে ৬২ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়। ২৫ রান করেন শাকিব। মুশফিকুর ১৬ ও মাহমুদুল্লাহ ১৪ রানে অপরাজিত থাকেন। ১টি করে উইকেট নেন রবীন্দ্র, ম্যাককঞ্চি ও আজাজ প্যাটেল।

বন্ধ করুন