বাংলা নিউজ > ময়দান > বার্সেলোনা থেকে নাপোলি, বোকা জুনিয়র্স থেকে সেভিয়া, মর্মাহত মারাদোনার সমস্ত ক্লাব
বিশ্বকাপের গ্যালারিতে মারাদোনা। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)
বিশ্বকাপের গ্যালারিতে মারাদোনা। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

বার্সেলোনা থেকে নাপোলি, বোকা জুনিয়র্স থেকে সেভিয়া, মর্মাহত মারাদোনার সমস্ত ক্লাব

  • ফুটবলার জীবনে যে সব ক্লাবের হয়ে মাঠে নেমেছেন দিয়েগো, কিংবদন্তির মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করে তারা।

দিয়েগো মারাদোনার মৃত্যুতে শুধু ফুটবলমহলেই নয়, শোকের ছাড়া ক্রীড়াবিশ্বে। বরং বলা ভালো যে, মারাদোনার প্রয়াণে শোকাহত তাঁর বিশ্বজোড়া কোটি কোটি অনুরাগী।

স্বাভাবিকভাবেই ক্রীড়াবিশ্বে শোকবার্তার ঝড় বইছে। মারাদোনা চলে যাওয়ায় নিজেদের বেদনা প্রকাশ করেছে তাঁর সমস্ত ক্লাব, যাদের হয়ে তিনি ফুটবলের জাদুতে সম্মহিত করেছেন সারা বিশ্বকে।

১৯৭৬ থেকে ১৯৮১ পর্যন্ত মারাদোনা আর্জেন্তিনোস জুনিয়র্সের হয়ে মাঠে নামেন। কিংবদন্তির মৃত্যুতে তাঁর প্রথম ক্লাব টুইট করে, ‘দিয়েগো চিরন্তন। তোমাকে আমরা চিরকাল ভালোবাসব।’

১০৯৮-১৯৮২ ও ১৯৯৫-১৯৯৭ পর্যন্ত দু'দফায় বোকা জুনিয়র্সের হয়ে মাঠে নামেন মারাদোনা। বোকা জুনিয়র্স সোশ্যাল মিডিয়ার শোকবার্তায় লেখে, ‘অনন্ত ধন্যবাদ, চিরন্তন দিয়েগো।’

১৯৮২-১৯৮৪ পর্যন্ত বার্সেলোনার জার্সিতে মাঠে নামেন দিয়েগো। বার্সা একাধিক টুইটে নিজেদের বেদনা প্রকাশ করে। তারা লেখে, ‘দিয়েগো মারাদোনার মৃত্যুতে এফসি বার্সেলোনা গভীর শোক প্রকাশ করছে। ১৯৮২-১৯৮৪ পর্যন্ত আমাদের হয়ে মাঠে নামা ফুটবলার তথা বিশ্বফুটবলের একজন আদর্শ। চিরশান্তিতে থাকো। সবকিছুর জন্য ধন্যবাদ দিয়েগো।’

১৯৮৪-১৯৯১ পর্যন্ত নাপোলির জার্সিতে মাঠে নামেন মারাদোনা। নাপোলির প্রতি দিয়েগোর বাড়তি টানের কথা সকলের জানা। স্বাভাবিকভাবেই আর্জেন্তাইন কিংবদন্তির মৃত্যুতে মর্মাহত নাপোলি। তারা টুইট করে, ‘সবাই অপেক্ষা করছে আমরা কী বলি তা জানার। যে যন্ত্রণা আমরা অনুভব করছি, তা প্রকাশ করার শব্দ কোথায়? এখন কাঁদার সময়। পরে শব্দ খোঁজা যাবে।’

১৯৯২-৯৩ মরশুমে দিয়েগো সেভিয়ার জার্সি গায়ে চাপান। লা লিগা ক্লাব সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখে, ‘সমগ্র ফুটবলবিশ্বের একজন অবিসংবাদিত নায়ক। ফুটবল খেলাটা যাঁদের পেয়ে ধন্য, তেমনই এক মহান খেলোয়াড়। আমরা অত্যন্ত সৌভাগ্যবান যে, সেভিয়ায় তোমাকে পেয়েছি। দিয়েগো মারাদোনা চিরকালীন।’

বোকা জুনিয়র্সে ফিরে যাওয়ার আগে ১৯৯৩-৯৪ মরশুমে নিউওয়েলস ওল্ড বয়েজের হয়ে মাঠে নামেন মারাদোনা। দিয়েগোর মৃত্যুর পর তারা টুইট করে, ‘কিছু বলার ভাষা নেই।’

উল্লেখ্য, বুধবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হন দিয়েগো মারাদোনা। মৃত্যকালে তাঁর বয়স হয়েছিল মাত্র ৬০ বছর। মস্তিষ্কে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ায় অস্ত্রোপচারের পর গত ১১ নভেম্বর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন। এদিন হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার পর খবর দেওয়া হয় হাসপাতালে। কিছুক্ষণের মধ্যেই অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছেও যায়। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ফুটবলের রাজপুত্র।

বন্ধ করুন