বাংলা নিউজ > ময়দান > এনসিএতে পুরুষ এবং মহিলা বিভাগে ১০জন করে পেসার, স্পিনারকে চুক্তিবদ্ধ করার ভাবনা বিসিসিআইয়ের

এনসিএতে পুরুষ এবং মহিলা বিভাগে ১০জন করে পেসার, স্পিনারকে চুক্তিবদ্ধ করার ভাবনা বিসিসিআইয়ের

বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (AFP)

এবার এনসিএর জন্য ভবিষ্যত রূপরেখা নিয়ে বিসিসিআইয়ের তরফে ভাবনা চিন্তাও শুরু করা হয়েছে

শুভব্রত মুখার্জি: বেঙ্গালুরুতে বিমানবন্দরের কাছেই বিসিসিআই গড়ে তুলছে তাদের নতুন ন্যাশনাল ক্রিকেট অ্যাকাডেমি। যার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ইতিমধ্যেই হয়ে গিয়েছে। যার ছবি সহ বিবরণ প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, সেক্রেটারি জয় শাহ ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়াতে আপলোড করেছেন। এবার এনসিএর জন্য ভবিষ্যত রূপরেখা নিয়ে বিসিসিআইয়ের তরফে ভাবনা চিন্তাও শুরু করা হয়েছে। যার অন্যতম হল কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকে ক্রিকেটারদের বাইরেও পুরুষ ও মহিলা উভয় বিভাগেই ১০ জন করে প্রতিভাবান পেসার এবং স্পিনারকে আলাদা করে চুক্তিবদ্ধ করা।

আলাদাভাবে চিহ্নিত করা এই ক্রিকেটারদের গ্রুম করা হবে অ্যাকাডেমিতে। এই ভাবনার বাস্তবায়ন করবে সিনিয়র, জুনিয়র নির্বাচক কমিটি, এনসিএ প্রধান ভিভিএস লক্ষ্মণ, বোলিং কোচ ট্রয় কুলি। তারা প্রতিভা অন্বেষণ করে তাদেরকে গ্রুম করবেন। বয়সের কোন বাধ্যবাধকতা থাকবে না এই নির্বাচনে। ১৭ বছর বয়সির সামনে যতটা সুযোগ থাকবে একজন ২৫ বছর বয়সির সামনেও ঠিক ততটাই সুযোগ থাকবে। চুক্তির অর্থ নির্দিষ্ট না হলেও যা খবর তাতে করে বার্ষিক ৫০ লক্ষ টাকায় হতে পারে এই চুক্তি। বোর্ডের তরফে ইতিমধ্যেই 'ইমার্জিং' ক্রিকেটারদের নিয়ে প্রোগ্রাম চালু হয়েছে। যাতে করে অনুর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে খেলার পরে ক্রিকেটাররা দিক ভ্রষ্ট না হন।

প্রসঙ্গত পেসারদের ক্ষেত্রে একই ধরনের প্রোগ্রাম ইতিমধ্যেই করেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। এনসিএ এই ক্রিকেটারদের উন্নতি পর্যবেক্ষণে রাখবে। তাদের ক্যারিয়ার পথ ঠিক করবে। পরবর্তীতে অলরাউন্ডার এবং উইকেট রক্ষকদের ও এই প্রোগ্রামের অন্তর্ভুক্ত করা হবে। ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে এনসিএর নয়া ক্যাম্পাস ৪০ একর জমিতে ১৮ মাসের মধ্যে গড়ে তোলার পরিকল্পনা করেছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড।

বন্ধ করুন