বাংলা নিউজ > ময়দান > ভিভোর বদলে IPL-এর টাইটেল স্পনসর টাটা, বাড়তি কত টাকা আয় হবে BCCI-এর?
আইপিএলের নতুন টাইটেল স্পনসর। (সৌজন্যে আইপিএল)
আইপিএলের নতুন টাইটেল স্পনসর। (সৌজন্যে আইপিএল)

ভিভোর বদলে IPL-এর টাইটেল স্পনসর টাটা, বাড়তি কত টাকা আয় হবে BCCI-এর?

  • ২০২৪-২৮ এই সময়ের জন্য ফের নয়া টাইটেল স্পন্সরের জন্য দরপত্র আহ্বান করবে বিসিসিআই।

শুভব্রত মুখার্জি

আইপিএলের নতুন টাইটেল স্পনসর হিসেবে টাটা গোষ্ঠীর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বিসিসিআই। ফলে ভিভোর সঙ্গে বিসিসিআইয়ের দীর্ঘদিনের সম্পর্ক আপাতত শেষ হয়েছে। আর এই নয়া চুক্তির মধ্যে দিয়ে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বিসিসিআইয়ের কোষাগারে ঢুকতে চলেছে অতিরিক্ত ১৩০ কোটি টাকা।

প্রসঙ্গত ২০২৩ সাল পর্যন্ত ভিভোর সঙ্গে বিসিসিআইয়ের চুক্তি ছিল। তবে ২০২০ সালে এই সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছে যায় ভারত ও চিন দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের অবনতি হওয়ার কারণে। ২০২০ মরশুমে আমীরশাহিতে অনুষ্ঠিত আইপিএলে ভিভো টাইটেল স্পনসর হিসেবে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়। বর্তমান মরশুমে আইপিএলে আরও দুটি নয়া ফ্রাঞ্চাইজি যোগ দিয়েছে। ফলে সামনের দুই মরশুমে বিসিসিআইয়ের ভিভোর থেকে ৯৯৬ কোটি টাকা আয় হত। প্রথম মরশুমে বিসিসিআইকে ৪৮৪ কোটি এবং দ্বিতীয় মরশুমে ৫১২ কোটি টাকা ভিভোর তরফে অফার ছিল।

উল্লেখ্য এর আগে দুই মরশুমে ৪৪০ কোটি টাকা বিসিসিআইকে দেওয়ার কথা ছিল ভিভোর। চুক্তি থেকে সাবলীলভাবে বেরিয়ে যেতে এবং অ্যাসাইনমেন্ট ফি-সহ বিসিসিআইকে ভিভোকে দিতে হবে ৪৫০ কোটি টাকা। রাইটস ফি হিসেবে টাটার তরফে প্রতি মরশুমে ৩৩৫ কোটি টাকা বিসিসিআইকে দেওয়া হবে। ফলে মোট ১১২৪ কোটি টাকা আয় হতে চলেছে বিসিসিআইয়ের।

টাটার তরফে পাঁচ বছরের চুক্তি করার বিষয়ে আগ্রহ দেখানো হয়েছে। তবে বিসিসিআইয়ের তরফে নয়া টেন্ডার আহ্বান করার কথা রয়েছে। ২০২৪-২৮ এই সময়ের জন্য নয়া টাইটেল স্পনসরের জন্য দরপত্র আহ্বান করবে বিসিসিআই। উল্লেখ্য ভিভোরও আগে আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ছিল ডিএলএফ গোষ্ঠী।

বন্ধ করুন