বাংলা নিউজ > ময়দান > প্লেয়ার, ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি এড়াতে উদ্যোগী BCCI
বিসিসিআই কর্তাদের সঙ্গে বিরাট কোহলি।
বিসিসিআই কর্তাদের সঙ্গে বিরাট কোহলি।

প্লেয়ার, ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি এড়াতে উদ্যোগী BCCI

  • প্লেয়ার এবং টিম ম্য়ানেজমেন্ট প্রায়ই অভিযোগ করে থাকে, বিভিন্ন ক্ষেত্রেই বিসিসিআই-এর সঙ্গে যোগাযোগের ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়। যে কারণে গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টের আগে বা প্লেয়ার নির্বাচনের ক্ষেত্রে সব সময়ে স্বচ্ছতা থাকে না।

বেশির ভাগ সময়েই প্লেয়ার, টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের মধ্যে যোগাযোগের অভাব থাকে। যার জেরে দূরত্ব তৈরি হয়। আর এর প্রভাব কিন্তু খেলায় পড়ে। সে সমস্যা এড়াতে বিসিসিআই দুই বছরের ব্লু প্রিন্ট তৈরি করে ফেলেছে। যাতে প্লেয়ার, টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি এড়ানো যায়।

বুধবার বিসিসিআই-এর এক কর্তা এক সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘বিভিন্ন মাধ্যমের মারফত বার্তাগুলি পৌঁছানো হত। যাতে সমস্যা আরও জটিল হত। সেই কারণে বোর্ড এমন একটি ব্যবস্থা তৈরি করতে চাইছে, যাতে টিম ম্যানেজমেন্ট এবং প্লেয়ারদের বার্তা দেরী না করে, সঠিক সময়ে সরাসরি উচ্চ  পর্যায়ে পৌঁছে যায়।’

প্লেয়ার এবং টিম ম্য়ানেজমেন্ট প্রায়ই অভিযোগ করে থাকে, বিভিন্ন ক্ষেত্রেই বিসিসিআই-এর সঙ্গে যোগাযোগের ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়। যে কারণে গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টের আগে বা প্লেয়ার নির্বাচনের ক্ষেত্রে সব সময়ে স্বচ্ছতা থাকে না। উদাহরণস্বরুপ ২০১৯ বিশ্বকাপে অম্বাতি রাইডুর দল থেকে বাদ পড়ার ঘটনা উল্লেখ করা যেতে পারে।

সম্প্রতি ইংল্যান্ড-ভারত টেস্ট সিরিজের আগে শুভমন গিলের চোটের পর বিকল্প নিয়েও একটি মতান্তর তৈরি হয়েছিল প্লেয়ার, টিম ম্যানেজমেন্ট এবং নির্বাচকদের মধ্যে। নির্বাচকেরা জানিয়েছিলেন, গিলের পরিবর্ত প্লেয়ার ইংল্যান্ডে রয়েছে। নতুন করে পরিবর্তের দরকার নেই। কিন্তু বিরাট কোহলি এবং রবি শাস্ত্রীর আবার দাবি ছিল, গিলের পরিবর্ত হিসেবে ওপেনার প্রয়োজন রয়েছে। শেষ পর্যন্ত অবশ্য অন্য প্লেয়ারদের চোট হওয়ায় পরে পৃথ্বী শ' এবং সূর্যকুমার যাদবকে ইংল্যান্ডে পাঠানো হয়। এ রকমই বিভিন্ন ছোটখাটো ঝামেলা মেটানোর জন্য নতুন পরিকল্পনা করেছেন বিসিসিআই কর্তারা।

বন্ধ করুন