বাড়ি > ময়দান > কভার চুঁইয়ে পিচে জল, বাতিল গুয়াহাটি টি-২০, ক্ষুব্ধ বিসিসিআই
ম্যাচ শুরু করার প্রচেষ্টা
ম্যাচ শুরু করার প্রচেষ্টা

কভার চুঁইয়ে পিচে জল, বাতিল গুয়াহাটি টি-২০, ক্ষুব্ধ বিসিসিআই

রবিবার একটা বল না খেলেই পরিত্যক্ত হয়ে গেল গুয়াহাটিতে ভারত-শ্রীলঙ্কা প্রথম টি-২০। পিচ শুকিয়ে ফেলার জন্য একটা সময় হেয়ার ড্রায়ারেরও ব্যবহার করা হয়।কিন্তু যেভাবে কভার চুঁইয়ে জল পিচে পড়ে ম্যাচ বাতিল হল, সেটা ভালো চোখে দেখছে না বিসিসিআই।

রবিবার কানায় কানায় ভর্তি বর্ষাপারা স্টেডিয়ামের দর্শকদের হতাশ করে একটা বল না খেলেই বাতিল হয়ে গেল ভারত-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ। কভার চুঁইয়ে জল পড়ে ভণ্ডুল হল ম্যাচ। এতেই ক্ষুব্ধ বিসিসিআই। প্রধান কিউরেটর আশিষ ভৌমিকের রিপোর্টের অপেক্ষায় তারা।

বিসিসিআই সূত্রের দাবি, অভিজ্ঞতার অভাবেই এই রকম ভুল হয়েছে। ভৌমিকও কতটা এই ম্যাচের আয়োজন করার জন্য প্রস্তুত ছিলেন, সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। বিসিসিআই সূত্রের মতে এটা লোধা কমিশন রিপোর্টের একটা নেতিবাচক প্রভাব। অনেক সংগঠনই নতুনদের শেখাতে পারেনি, তাই কিছু ভুলত্রুটি থেকে যাচ্ছে। তবে শেষপর্যন্ত এর দায় বিসিসিআই সিইও রাহুল জোহরির ওপর বর্তায়, বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্তা জানিয়েছেন। তাঁর মতে, এটা অন্তত নিশ্চিত করা উচিত যে ন্যূনতম পরিকাঠামোটা খেলার সময় আছে।

আরেক কর্তার মতে, দর্শকরা নিশ্চয়ই খুব হতাশ হয়েছেন, কারণ পিচ ছাড়া বাকি মাঠটি শুকনো ছিল। প্রয়োজনে অভিজ্ঞ অফিশিয়ালদের উপদেষ্টা হিসাবে নিয়োগ করা উচিত বলেও মনে করেন তিনি। তবে বিসিসিআই কর্তারা আশাবাদী যে সৌরভের নেতৃত্বাধীন টিম খুব দ্রুতই সমস্ত ক্রিকেট অ্যাসোসিয়শনের সঙ্গে বসবে, যাতে সাধারণ মানুষের কোনও অসুবিধা না হয়।

তবে যেভাবে আশিষ ভৌমিকের দল ম্যাচ আয়োজন করতে ব্যর্থ হল, তা নিয়ে বিসিসিআই কোনও পদক্ষেপ নেবে কিনা, সেটা এখনও স্পষ্ট নয়। জিএম ক্রিকেট অপারেশনস সাবা করিম জানিয়েছেন যে তাঁরা ভৌমিকের রিপোর্টের অপেক্ষা করছেন। তার পরেই এই বিষয়ে কিছু বলতে পারবেন।






"



বন্ধ করুন