উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমনাকের ২০২০ সংস্করণে বর্ষসেরা পুরুষ ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন বেন স্টোকস  (AFP)
উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমনাকের ২০২০ সংস্করণে বর্ষসেরা পুরুষ ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন বেন স্টোকস (AFP)

কোহলিকে ছাপিয়ে উইজডেনের বর্ষসেরা ক্রিকেটার ইংল্যান্ডের বেন স্টোকস

  • গত তিন বছর লাগাতার এই শিরোপা পেয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট তারকা বিরাট কোহলি, কিন্তু উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমনাকের ২০২০ সংস্করণে বর্ষসেরা পুরুষ ক্রিকেটার নির্বাচিত হলেন বেন স্টোকস।

বিরাট কোহলির হ্যাটট্রিকের পর উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমনাকের ২০২০ সংস্করণে পুরুষ ক্রিকেটার সেরা মুখ নির্বাচিত হলেন ইংলিশ ক্রিকেট তারকা বেন স্টোকস। ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জয়ের নায়ককেই বেছে নেওয়া হল বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম প্রসিদ্ধ এই পুরস্কারের যোগ্য দাবিদার হিসাবে। ২০১৯ সালটা দুর্দান্ত কেটেছে ইংল্যান্ডের এই অল রাউন্ডারের। বিশ্বকাপের পাশাপাশি অ্যাসেজেও অনবদ্য বেন স্টোকস। মূলত তাঁর অতিমানবীয় ইনিংসের জেরেই হে়ডিংলি টেস্টে নিশ্চিত জয় থেকে বঞ্চিত থাকে অস্ট্রেলিয়া। ২০০৫ সালে অ্যান্ড্রু ফ্লিনটপের পর দীর্ঘ ১৫ বছরে এই প্রথম কোনও ব্রিটিশ ক্রিকেটারের ঝুলিতে গেল এই খেতাব।

উইজডেন সম্পাদক লরেন্স বুথ বেন স্টোকসের এই কীর্তি সম্পর্কে জানিয়েছেন, ‘স্টোকস কয়েক সপ্তাহের মধ্যে দুই দফায় জীবনের সেরা পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন। প্রথমটি, তার বিস্ময়কর প্রতিভা ও কিছুটা ভাগ্যের সমন্বয়ে বিশ্বকাপ ফাইনালে। রান তড়া করবার সময় ইংল্যান্ডের রক্ষাকর্তা ছিলেন স্টোকস, এরপর সুপার ওভারেও ১৫ রান তুলে দলকে জেতান।এরপর, অ্যাসেজের তৃতীয় টেস্টে হেডিংলিতে খেলেন অসাধারণ এক ইনিংস। মূলত তাঁর অপরাজিত ১৩৫ রানে ভর করেই এক উইকেটে ম্যাচ জেতে ইংল্যান্ড’।

ক্রিকেটের বাইবেল খ্যাত উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমান্যাকের ১৫৭তম সংস্করণে মহিলা ক্রিকেটের লিডিং তারকা নির্বাচিত হয়েছে অজি তারকা এলিসা পেরি। পেরিসহ উইসডেন বর্ষসেরা পাঁচ ক্রিকেট তারকার তালিকায় রয়েছেন- প্যাট কামিন্স (অস্ট্রেলিয়া), এলিসা পেরি(অস্ট্রেলিয়া), মারনাস ল্যাবুশেন, জোফ্রা আর্চার (ইংল্যান্ড) এবং সিমন হার্মার (দক্ষিণ আফ্রিকা)।


বিশ্বকাপ ও অ্যাসেজে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য এই তালিকায় রয়েছেন আর্চার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকেই নজর কেড়েছেন তিনি। বিশ্বকাপে ২০ টি ও অ্যাসেজে চার টেস্ট খেলে ২২ টি উইকেট নিয়েছেন জোফ্রা আর্চার। অন্যদিকে টেস্ট ক্রিকেটের পয়লা নম্বরের বোলার প্যাট কামিন্সও অ্যাসেজে অনবদ্য পারফরম্যান্স দেন। পাঁচ টেস্টে তাঁর শিকার সংখ্যা ২৯। পাশাপাশি বিশ্বকাপেও ১৪টি উইকেট নিয়েছেন প্যাট কামিন্স। অ্যাসেজে মাত্র সাড়ে তিনখানা টেস্ট ম্যাচ খেলেই ৩৫৩ রান করে ল্যাবুশেন, তাঁর ব্যাটিং গড় ছিল ৫০.৪২।

বিশ্বকাপ ও অ্যাশেজের পারফরম্যান্স মিলিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজের প্রথম মৌসুমে বর্ষসেরা পাঁচ ক্রিকেটারের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছেন আর্চার। বিশ্বকাপে এই ফাস্ট বোলার নিয়েছিলেন ২০ উইকেটে, অ্যাশেজে চার টেস্ট খেলে ২২টি।

সিমন হার্মারকে সেরার স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে কাউন্টি ক্রিকেটে এসেক্সের হয়ে অসাধারণ প্রদর্শনের জন্য। এলিসা পেরি, মহিলা ক্রিকেটের অন্যতম রোল মডেল। চোটের জন্য বিশ্বকাপে মাঝপথে ছিটকে গেলেও অ্যাসেজ জয়ে টিম অস্ট্রেলিয়ার প্রধান অস্ত্র ছিলেন পেরি।

উইজডেনের চলতি এডিশনে লিডিং টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটার’ নির্বাচিত হয়েছেন ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল।


বন্ধ করুন