বাংলা নিউজ > ময়দান > ইতিহাস গড়লেন বাংলার সায়নী, ইংলিশ চ্যানেল-মলোকাই চ্যানেল সহ জয় করলেন ৪টি চ্যানেল
ইতিহাস গড়লেন বাংলার সায়নী দাস (ছবি:টুইটার)
ইতিহাস গড়লেন বাংলার সায়নী দাস (ছবি:টুইটার)

ইতিহাস গড়লেন বাংলার সায়নী, ইংলিশ চ্যানেল-মলোকাই চ্যানেল সহ জয় করলেন ৪টি চ্যানেল

  • শুধু ভারত নয়, এশিয়া মহাদেশের প্রথম মহিলা সাঁতারু হিসাবে এই প্রথম এমন কীর্তি গড়লেন সায়নী দাস। মলোকাই চ্যানেল জয়ের পর সেখানেই ভারতের জাতীয় পতাকা তুলে ধরেন সায়নী। রটনেস্ট ও ক্যাটলিনা চ্যানেল জয়ের পর ২০১৭ সালে সায়নী ইংলিশ চ্যানেল জয় করেন।

টানা দু’বছর কঠিন অনুশীলন করার পরে অবশেষে সাফল্য পেলেন বাংলার মহিলা সাঁতারু সায়নী দাস। এশিয়ার প্রথম মহিলা সাঁতারু হিসেবে জয় করলেন মলোকাই চ্যানেল। ইংলিশ চ্যানেলের পর এ বার মার্কিন মুলুকের এই বিখ্যাত চ্যানেল জয় করলেন পূর্ব বর্ধমানের সায়নী। শুধু ভারত নয়, এশিয়া মহাদেশের প্রথম মহিলা সাঁতারু হিসাবে এই প্রথম এমন কীর্তি গড়লেন সায়নী। মলোকাই চ্যানেল জয়ের পর সেখানেই ভারতের জাতীয় পতাকা তুলে ধরেন সায়নী। রটনেস্ট চ্যানেল (২০১৬) ও ক্যাটলিনা চ্যানেল (২০১৯) জয়ের আগে ২০১৬ সালে সায়নী ইংলিশ চ্যানেল জয় করেন। এ বার সায়নী মলোকাই চ্যানেল জয় করে ইতিহাস সৃষ্টি করলেন। মহিলা সাঁতারু হিসাবে সায়নী এই নিয়ে চারটি চ্যানেল জয়ের দৃষ্টান্ত তৈরি করলেন।

সায়নী দাস সাঁতারের জগতে  ইতিহাস তৈরি করার পরে তাঁর বাবা রাধেশ্যাম জানিয়েছেন মলোকাই চ্যানেল জয়ের স্বপ্ন নিয়ে সায়নী টানা দু’বছর কঠিন অনুশীলন করেছেন। ২৯ মার্চ মেয়ে সায়নীকে নিয়ে রাধেশ্যাম আমেরিকায় যান। এপ্রিল মাসের প্রথম দু’সপ্তাহের মধ্যে মলোকাইয়ের জলে নামার কথা ছিল। কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার জন্য জলে নামতে পারেননি সায়নী। রাধেশ্যাম বলেন,‘আবহাওয়া প্রতিকূল থাকার সময়ে মলোকাইয়ের জলে সায়নী নামতে না পারলেও অনুশীলন বন্ধ করেনি। আমেরিকার হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে টানা বাইশ দিন সায়নী কঠিন অনুশীলনে চালিয়ে গিয়েছে।’

কালনার বারুইপাড়ার সায়নী দাস ছোট বয়সেই বাবার হাত ধরে সাঁতারের জগতে নামেন। তার পর থেকে কঠিন অনুশীলনের মাধ্যমে সায়নী নিজেকে সাঁতারু হিসেবে গড়ে তুলেছেন। মলোকাই চ্যানেলের গতি প্রকৃতি অনুকূল পরিস্থিতি তৈরি হলে ২৮ এপ্রিল ভারতীয় সময় সকাল ১০টা নাগাদ সায়নী মলোকাইয়ের জলে নামেন। তার পর টানা ১৯ ঘণ্টার বেশি সাঁতার কেটে মলোকাই চ্যানেল জয় করেন। সায়নী জানিয়েছেন, মলোকাই চ্যানেল জয় করার স্বপ্ন ছিল তাঁর। সেই কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পেরে তিনি খুশি।

বন্ধ করুন