বাংলা নিউজ > ময়দান > প্রবাসী বাঙালি চ্যাম্পিয়ন পেল উইম্বলডন, জুনিয়র খেতাব জিতলেন সমীর
সমীর বন্দ্যোপাধ্যায়।
সমীর বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রবাসী বাঙালি চ্যাম্পিয়ন পেল উইম্বলডন, জুনিয়র খেতাব জিতলেন সমীর

সেন্টার কোর্টে নজির তৈরি করলেন প্রবাসী বাঙালি সমীর বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রবাসী বাঙালি চ্যাম্পিয়ন পেল উইম্বলডন। নজির তৈরি করে জুনিয়র উইলম্বডন খেতাব জিতলেন মার্কিন নাগরিক সমীর বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইনালে এক ঘণ্টা ২২ মিনিটে ভিক্টর লিলভকে ৭-৫, ৬-৩ গেমে উড়িয়ে দিলেন তিনি। জয়র পর সমীর বলেন, 'এটা দুর্দান্ত হবে। এটা খেতাব আমার কেন্দ্রবিন্দু হবে। আমি এটার দিকে তাকিয়ে খেলা চালিয়ে চালিয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রাণিত হতে থাকব। আশা করছি, পেশাদার হিসেবে এখানে ফিরে আসতে পারব।'

রবিবার ফাইনালে শুরুটা দারুণ করেছিলেন ১৭ বছরের সমীর। ৫-২ গেমে এগিয়েছিলেন। কিন্তু আচমকা খেই হারিয়ে ফেলেন। দশম গেমে ফল ৫-৫ দাঁড়ায়। শেষপর্যন্ত স্নায়ু ধরে রেখে ৭-৫ গেমে প্রথম সেট বের করে নেন সমীর। দ্বিতীয় সেটে স্বদেশীয় ভিক্টরকে দাঁড়াতেই দেননি সমীর। ৬-৩ গেমে উড়িয়ে দেন। তাঁর জয়ের পর উইম্বলডনের তরফে টুইটারে লেখা হয়, ‘নামটা মনে রাখবেন - সমীর বন্দ্যোপাধ্যায়। ছেলেদের সিঙ্গলস ফাইনালে ভিক্টর লিলভকে হারিয়ে প্রথম গ্র্যান্ডস্ল্যাম সিঙ্গলস খেতাব জিতলেন মার্কিন।’

তবে সমীরের সেই খেতাব জয় একেবারেই অপ্রত্যাশিত ছিল না। গত বছর থেকেই ভালো ফর্মে ছিলেন। ২০২০ সালে ক্লে কোর্টে চারটি খেতাব জিতেছিলেন। রবিবারের জুনিয়র উইম্বলডন ধরে জুনিয়র পর্যায়ে সবমিলিয়ে ষষ্ঠ খেতাব জিতেছেন সমীর। যদিও নিজের কেরিয়ারে দ্বিতীয় গ্র্যান্ডস্ল্যামে নামা সমীর স্বপ্নে ভাবেননি যে উইম্বলডন খেতাব জিতবেন। যিনি জুনিয়র সার্কিটের সবথেকে বড় মঞ্চে একটি ম্যাচে জয়ের লক্ষ্য নিয়েছি নেমেছিলেন। তাও সঙ্গে ছিলেন না তাঁর কোচ কার্লোস এস্তেবান। সমীরের কথায়, 'সত্যি বলতে আমি মনেপ্রাণে শুধুমাত্র একটি রাউন্ড জিততে চেয়েছিলাম। ফ্রেঞ্চ ওপেন আমার জন্য কঠিন ছিল। আমি ভালো খেলেয়োড়ের কাছে হেরেছিলাম। তাই আমার প্রত্যাশা বেশি ছিল না। যাতে সেই লক্ষ্য পূরণ হলে আমি খুশি থাকতে পারি। কিন্তু এটা আমার সেরা স্বপ্নকেও ছাপিয়ে গিয়েছে।'

বন্ধ করুন