বাংলা নিউজ > ময়দান > দোষ স্বীকার করেও পার পেলেন না, সব ধরনের ক্রিকেট থেকে তারকা ক্রিকেটারকে নিষিদ্ধ করল ICC, কম নয় নির্বাসনের মেয়াদ
ব্রেন্ডন টেলর। ছবি- আইসিসি।

দোষ স্বীকার করেও পার পেলেন না, সব ধরনের ক্রিকেট থেকে তারকা ক্রিকেটারকে নিষিদ্ধ করল ICC, কম নয় নির্বাসনের মেয়াদ

  • দুর্নীতি দমনবিধি ও মাদক-বিরোধী নীতিতে দোষি সাব্যস্ত হয়েছেন জিম্বাবোয়ের প্রাক্তন অধিনায়ক।

দেওয়াল লিখনটা পড়তে পেরেছিলেন ব্রেন্ডন টেলর। তাই নিজের অপরাধ বুঝতে পেরে ধরেই নিয়েছিলেন যে, তাঁকে দীর্ঘমেয়াদি নির্বাসনে পাঠাতে পারে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা। শেষমেশ সেই আশঙ্কাই সত্যি প্রমাণিত হয়। জিম্বাবোয়ের প্রাক্তন অধিনায়ককে সাড়ে তিন বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত করে আইসিসি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থার তরফে শুক্রবার বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, জিম্বাবোয়ের তারকা ক্রিকেটার দুর্নীতি দমন বিধি ভঙ্গ করেছেন। সেই সঙ্গে অ্যান্টি-ডোপিং কোড অনুযায়ীও দোষি সাব্যস্ত হয়েছেন টেলর। অন্ততপক্ষে চারটি ক্ষত্রে দুর্নীতি দমনবিধি ভঙ্গ করেছেন তারকা ক্রিকেটার। আলাদাভাবে মাদক-বিরোধী নীতিতেও একটি বিধি ভঙ্গে দোষি সাব্যস্ত হয়েছেন টেলর।

আসলে টেলর ২০১৯ সালের অক্টোবরে এক ভারতীয় বুকির কাছ থেকে স্পট ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন। আইসিসিকে তড়িঘড়ি সে বিষয়ে রিপোর্ট করেননি তিনি। এমনকি সেই বুকির কাছ থেকে ১৫ হাজার মার্কিন ডলার হাতে পেয়েছিলেন টেলর। তাছাড়া বুকিদের সঙ্গে বৈঠকের সময় কোকেন সেবন করেছিলেন বলে নিজেই জানিয়েছেন জিম্বাবোয়ের প্রাক্তন দলনায়ক।

গতবছর সেপ্টেম্বরে জিম্বাবোয়ে বনাম আয়ারল্যান্ড সিরিজের সময় ডোপ টেস্টের জন্য সংগ্রহ করা টেলরের নমুনা পজিটিভ চিহ্নিত হয়। টেলর যদিও কয়েকদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন, কীভাবে বুকিদের ফাঁদে পা দায়িছিলেন তিনি। কেন আইসিসিকে সব কিছু জানাতে দেরি হয়েছিল তাঁর, সে বিষয়েও সাফাই দিয়েছিলেন তারকা ক্রিকেটার।

তাতে অবশ্য চিঁড়ে ভেজেনি। শেষমেশ দীর্ঘমেয়াদি নির্বাসন এড়াতে পারলেন না টেলর। ২০২৫ সালের ২৮ জুলাই টেলরের উপর থেকে নির্বাসন উঠে যাবে। আর কয়েকদিন পরেই ৩৬ বছরে পা দিতে চলা টেলর ততদিনে ৪০ বছরের কাছে পৌঁছে যাবেন। সুতরাং, টেলরের ক্রিকেট কেরিয়ার শেষ হয়ে গেল বলেই মনে করা হচ্ছে।

বন্ধ করুন