বাংলা নিউজ > ময়দান > ভনকে এ বার ‘মানসিক রোগী’ বলে আক্রমণ করলেন প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার সলমন বাট
সলমন বাট এবং মাইকেল ভন তরজা চলছেই।
সলমন বাট এবং মাইকেল ভন তরজা চলছেই।

ভনকে এ বার ‘মানসিক রোগী’ বলে আক্রমণ করলেন প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার সলমন বাট

  • ভন এবং সলমন বাটের মধ্যে কাদা ছোঁড়াছুড়ি চলছেই। এই ঝামেলাটি শুরু হয়েছিল, ভন নিউজিল্যান্ডের এক সংবাদমাধ্যমে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে অকারণে অক্রমণ করে বসার পর থেকে। বিরাটের পাশে দাঁড়িয়ে ভনকে পাল্টা খোঁচা দিয়েছিলেন সলমন বাট।

মাইকেল ভন আর সলমন বাট তরজা চলছেই। আরও একবার ভনকে এক হাত নিলেন সলমন বাট। পরিষ্কার বলে দিলেন, প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়কের মানসিক সমস্যা রয়েছে।

ঝামেলার সূত্রপাত ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে নিয়ে। কিন্তু এই ঝামেলার মাঝে বিরাট আর এখন কোথাও নেই। বরং প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়ক এবং প্রাক্তন পাকিস্তানের ক্রিকেটার একে অপরের দিকে কাদা ছোঁড়াছুড়িই করে চলেছেন।

২০১০ সালে ম্যাচ গড়াপেটায় জড়িয়ে পড়ার প্রসঙ্গ টেনে সলমন বাটকে কুৎসিত ভাবে আক্রমণ করেন ভন। এর পর প্রাক্তন পাক ক্রিকেটারও চুপ করে বসে থাকেননি। তিনি পরিষ্কার বলে দেন, ‘এটা মানসিক সমস্যা।’

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সলমন বাট রবিবার রাতে বলেন, ‘আমি এই নিয়ে বিশদে কিছু বলতে চাই না। আমি শুধু বলতে চেয়েছিলাম, ও ভুল প্রসঙ্গে কথা বলেছে। তার জন্য এই রকম প্রতিক্রিয়ার কোনও যৌক্তিকতা নেই। এটা খুবই নিম্ন মানের এবং রুচিহীন। যদি ও অতীত আঁকড়ে বসে থাকতে চায়, নিশ্চয়ই এই নিয়ে কথা বলতে পারে। তবে এটা একটা অসুস্থতা। একই জায়গায় একটা জিনিসের মধ্যেই আটকে থাকে, সহজে সেটা বের হতে না চাওয়া, এটা কিছু মানুষের মানসিক সমস্যা। তাঁরা মানসিক ভাবে অতীতে বাঁচে। এতে আমার কিছু যায় আসে না।’

বাট আরও বলেছেন, ‘আমরা দু'জন অসাধারণ প্লেয়ারকে নিয়ে কথা বলছিলাম। এই প্রসঙ্গটিকে অন্য দিকে নিয়ে যাওয়ার কোনও দরকার ছিল না। তবে ও সেই পথটা বেছে নিয়েছে। যে বছরের ও উল্লেখ করেছে, সেটা নিয়ে ও বসে থাকতে পারে, তবে ওটা আমার কাছে অতীত এবং সেই সময়টাও পার হয়ে গিয়েছে। তবে এই ঘটনা আসল সত্যটিকে বদলে দেবে না, যে বিষয়ে আমরা কথা বলেছিলাম। ও যদি কিছু পরিসংখ্যান, কিছু যুক্তি, নিজের কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করত তবে আরও ভাল হত। আমরাও কিছু শিখতে পারতাম।’

এর সঙ্গেই তিনি যোগ করেছেন, ‘ও যদি ক্রিকেট সম্পর্কে যুক্তি দিয়ে আমাকে ভুল প্রমাণ করত বা নিজেকে সঠিক প্রমাণ করার চেষ্টা করত, তবে ভাল হত। কিন্তু ও সেটা করেনি। নিম্ন রুচির পরিচয় দেওয়াটাকেই বেছে নিয়েছে।’

এই ঝামেলাটি শুরু হয়, ভন নিউজিল্যান্ডের এক সংবাদমাধ্যমে ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে অকারণে অক্রমণ করে বসার পর থেকে। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালের আগে বিরাট এবং উইলিয়ামসনের তুলনা টানতে গিয়ে, ভন বলেছিলেন, ‘উইলিয়ামসন ভারতীয় হলে ওকেই সেরা ক্রিকেটার বলা হত। কিন্তু ও তো ভারতের ক্রিকেটার নয়। আবার এই নিয়ে কিছু বললে, সোশ্যালমিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যাবে। বিরাটকেই সেরা ক্রিকেটার বলতে হবে। এতে বেশি লাইক পড়ব। ফলোয়ারের সংখ্যা বাড়বে। তবে আমার মতে, ক্রিকেটের সব ফর্ম্যাট মিলিয়ে কেন উইলিয়ামসনই সেরা। যে ভাবে ও খেলে, ঠান্ডা মাথা, ভদ্র ব্যবহার, নিজের কৃতিত্ব নিয়ে ওকে বরাবর চুপ থাকতেই দেখেছি।’

এরই পরিপ্রেক্ষিতে বিরাটের পাশে দাঁড়িয়ে ভনকে খোঁচা মেরেই সলমন বাট আবার বলেন, ‘এই দু'জনের (বিরাট কোহলি এবং কেন উইলিয়ামসন) তুলনা কে করছে? মাইকেল ভন, ও ইংল্যান্ডের অসাধারণ একজন অধিনায়ক ছিলেন, কিন্তু ব্য়াটিংয়ের ক্ষেত্রে সেই মানটা ছিল না। ও ভাল টেস্ট ব্যাটসম্যান ছিল, কিন্তু ভন কখনও একদিনের ক্রিকেটে কোনও শতরান করেনি। একজন ওপেনার হওয়ার পরও যদি শতরান না থাকে, এর পর আর আলোচনার কোনও বিষয়ই থাকতে পারে না।’

এই আক্রমণটা আর ভন নিতে পারেননি। ম্যাচ গড়াপেটার প্রসঙ্গ টেনে এনে কুৎসিত ভাবে সলমন বাটকে আঘাত করেন প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়ক। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লেখেন, ‘এটা একেবারেই সত্যি (তাঁর ওয়ান ডে ক্রিকেটে সেঞ্চুরি নেই) সলমন, তবে তুমি এটা বলতে ভুলে গিয়েছ যে, আমি ম্যাচ গড়াপেটা করিনি বা আমাদের মহান খেলাটাকে অন্যদের মতো কলুষিত করিনি।’

বন্ধ করুন