এভাবেই চোট পেয়েছিলেন শামসুদ্দিন
এভাবেই চোট পেয়েছিলেন শামসুদ্দিন

দুই প্রান্তেই এক আম্পায়ার, সাক্ষী থাকল রঞ্জি ফাইনাল!

শামসুদ্দিন অসুস্থ হয়ে পড়ায় এই বিপত্তি।

কোনও পাড়ার ম্যাচ বা প্রদর্শনী টুর্নামেন্ট নয়। ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় মঞ্চ রঞ্জি ট্রফির ফাইনাল । সেখানেই দুই প্রান্ত থেকে আম্পায়ারিং করলেন একই ব্যক্তি! মঙ্গলবার এমনই বিরল ঘটনার সাক্ষী থাকল রাজকোট বাংলা বনাম সৌরাষ্ট্রের ম্যাচ চলাকালীন।

ফাইনালের দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনে দুই প্রান্ত থেকেই আম্পায়ারিং করেন কেএন অনন্তপদ্মমনবন। এর কারণ প্রথম দিন বাংলার এক ফিল্ডারের থ্রো গায়ে লাগায় অসুস্থ হয়ে পড়েন আরেক আম্পায়ার সি শামসুদ্দিন। তাঁর ডাক্তারি পরীক্ষার পর তাঁকে দশ দিন বিশ্রাম নিতে উপদেশ দেওয়া হয়েছে। তাই এই ম্যাচে আর আম্পায়ারিং করবেন না শামসুদ্দিন। তাঁর পরিবর্ত হিসাবে মুম্বইয়ের যশবন্ত বার্দেকে তলব করেছে বিসিসিআই। মঙ্গলবার রাতে তাঁর রাজকোটে আসার কথা। বুধবার থেকে তিনি আম্পায়ারিং করবেন।

কিন্তু মঙ্গলবার শামসুদ্দিনের অনুপস্থিতিতে বেকায়দায় পড়ে যান উদ্যোক্তারা। প্রথম সেশনে দুদিক থেকেই অনন্তপদ্মনবন আম্পায়ারিং করছিলেন। স্কোয়ার লেগে ছিলেন স্থানীয় আম্পায়ার পীযূষ কক্কর। তিনি স্থানীয় বলে বিসিসিআই নিয়ম অনুযায়ী প্রধান আম্পায়ারের দায়িত্ব পালন করতে পারেননি।

তৃতীয় আম্পায়ার এস রবি নিজের দায়িত্ব ছেড়ে আসতে পারেননি কারণ এই ম্যাচে ডিআরএসের ব্যবস্থা আছে। লাঞ্চের পর তৃতীয় আম্পায়ার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন শামসুদ্দিন। তখন মাঠে আসেন রবি।বুধবার থেকে যদিও ফের তৃতীয় আম্পায়ারের ভূমিকায় দেখা যাবে রবিকে।


বন্ধ করুন