বাংলা নিউজ > ময়দান > প্যারিসে পিছিয়ে থেকেও প্রথম লেগে পিএসজির বিরুদ্ধে অবিশ্বাস্য জয় পেল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি
জয়ের পথে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি (ছবি: দ্য গুয়ারদিয়ান)
জয়ের পথে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি (ছবি: দ্য গুয়ারদিয়ান)

প্যারিসে পিছিয়ে থেকেও প্রথম লেগে পিএসজির বিরুদ্ধে অবিশ্বাস্য জয় পেল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি

  • প্রতিপক্ষের মাঠে ২-১ গোলে জিতল সিটি। সিটিজেনদের হয়ে গোল দুটি করেন কেভিন ডি ব্রুইনে ও রিয়াদ মাহরেজ। এদিন ঘরের মাঠে একেবারে বর্ণহীন পারফরম্যান্স করেন গত ম্যাচের  নায়ক কিলিয়ান এমবাপে। নেইমার দারুণ দুটি সুযোগ তৈরি করলেও পাননি সাফল্য।

শুভব্রত মুখার্জি: চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে গতবারের চ্যাম্পিয়ান দল বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়ে সেমিফাইনালে প্রবেশ করেছিল নেইমাররা। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে গতবারের রানার্সআপ প্যারিস সাঁ জাঁ (পিএসজি) প্রতিপক্ষ ছিল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। প্যারিসের পার্ক ডি প্রিন্সেস স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুতে পিছিয়ে পরেও ম্যান সিটি। শেষ পর্যন্ত অসাধারণ লড়াই করে জয় ছিনিয়ে নিয়ে  ফাইনালের পথে একধাপ এগিয়ে গেল ম্যাঞ্চেস্টাস সিটি। মার্কুইনেসের গোলে প্রথম অর্ধে এগিয়ে যায় পিএসজি। দ্বিতীয়ার্ধে মাত্র সাত মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে ইস্তানবুলের ফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেল পেপ গুয়ার্দিওয়ালার ছেলেরা।

প্রতিপক্ষের মাঠে ২-১ গোলে জিতল সিটি। সিটিজেনদের হয়ে গোল দুটি করেন কেভিন ডি ব্রুইনে ও রিয়াদ মাহরেজ। এদিন ঘরের মাঠে একেবারে বর্ণহীন পারফরম্যান্স করেন গত ম্যাচের  নায়ক কিলিয়ান এমবাপে। নেইমার দারুণ দুটি সুযোগ তৈরি করলেও পাননি সাফল্য।

খেলার ১৫তম মিনিটেই অ্যাঞ্জেল ডি’মারিয়ার ক্রস থেকে হেড করে পিএসজিকে এগিয়ে দেন অধিনায়ক মার্কুইনেস। পিছিয়ে পড়ার পর আক্রমণের ধার বাড়ায় সিটিজেনরা। ১-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় পিএসজি। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে খেলার গতি কিছুটা কমে। খেলার ৬৪তম মিনিটে ছোট কর্নারে বল ধরে বাঁ দিক থেকে দারুণ এক ক্রস বাড়ান ডি ব্রুইনে। আর এখান থেকেই এক অবাক করা গোলের সাক্ষী থাকে গোটা বিশ্ব। ডি ব্রুইনের ক্রস থেকে বল সবার ওপর দিয়ে গিয়ে এক ড্রপে খানিকটা বাঁক নিয়ে দূরের পোস্ট ঘেঁষে জালে জড়িয়ে যায়। সমতায় ফেরে ম্যান সিটি। গোলরক্ষক নাভাস যেন বলের গতি-প্রকৃতি বুঝতেই পারেননি। ম্যাচের ৭১ মিনিটে ২-১ গোলের ব্যবধানে পিছিয়ে পরে পিএসজি। রিয়াদ মাহারেজের নেওয়া ফ্রি কিকে বল লাফিয়ে ওঠা রক্ষণপ্রাচীরে মাঝখান দিয়ে নিজের ঠিকানা খুঁজে নেয়। পিছিয়ে পড়ার কিছুক্ষণ বাদেই ১০ জনের দলে পরিণত হয় পিএসজি। গুন্দোয়ানকে পিছন থেকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখেন সেনেগালের মিডফিল্ডার ইদ্রিসা গায়া। ১০ জনের দল নিয়ে শেষ পর্যন্ত সিটিকে আর তেমন পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি পিএসজি। ফলে প্যারিস থেকে ২-১ গোলের জয় নিয়ে ফাইনালের পথে এক পা এগিয়ে রাখলে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে ম্যাঞ্চেস্টারের এতিহাদ স্টেডিয়ামে তারা মুখোমুখি হবে আগামী ৫ই মে।

বন্ধ করুন