বাড়ি > ময়দান > সাত বছরের নির্বাসন কাটিয়ে রঞ্জি দলে ফিরতে চলেছেন বিতর্কিত শ্রীসন্ত
এস শ্রীসন্ত। ছবি- টুইটার।
এস শ্রীসন্ত। ছবি- টুইটার।

সাত বছরের নির্বাসন কাটিয়ে রঞ্জি দলে ফিরতে চলেছেন বিতর্কিত শ্রীসন্ত

  • ২০১৩ সালে আইপিএলে স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে দিল্লি পুলিশ গ্রেফতার করে টিম ইন্ডিয়ার প্রাক্তন পেসারকে।

দীর্ঘ সাত বছর পর অবশেষে মাঠে ফিরতে চলেছেন এস শ্রীসন্ত। কেরল ক্রিকেট সংস্থার তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, সেপ্টেম্বরে প্রাক্তন ভারতীয় পেসারের উপর থেকে নির্বাসন উঠে গেলে তাঁর নাম রঞ্জি ট্রফির জন্য রাজ্য দলে বিবেচনা করা হবে। যদিও এক্ষেত্রে শ্রীসন্তকে নিজের ফিটনেসের প্রমাণ দিতে হবে এবং ফর্মের নিরিখেই ঢুকতে হবে দলে।

২০১৩ সালে স্পট ফিক্সিংয়ের দায়ে দিল্লি পুলিশ গ্রেফতার করে রাজস্থান রয়্যালসের তিন ক্রিকেটার এস শ্রীসন্ত, অজিত চান্ডেল ও অঙ্কিত চহ্বনকে। বিসিসিআই ক্রিকেট থেকে আজীবন নির্বাসিত করে কেরলের পেসারকে। 

২০১৫ সালে দিল্লির বিশেষ আদালত শ্রীসন্তকে সমস্ত অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়। ২০১৮ সালে কেরল হাইকোর্ট শ্রীসন্তের উপর থেকে নির্বাসন তুলে নেওয়ার নির্দেশ দেয়। যদিও সেই রায় আটকে যায় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে। শীর্ষ আদালত বিসিসিআইকে অনুরোধ করে শ্রীসন্তের জন্য নতুন করে শাস্তিবিধান করতে।

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ পাওয়ার পর বিসিসিআইয়ের ন্যায়পাল ডিকে জৈন শ্রীসন্তের উপর থেকে আজীবন নির্বাসনের শাস্তি তুলে নিয়ে তা ৭ বছর করেন, যা শেষ হচ্ছে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে।

তাঁকে রঞ্জি দলের জন্য বিবেচনা করা হবে, একথা ঘোষণা করার পরেই কেরল ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনকে কৃতজ্ঞতা জানান শ্রীসন্ত। ৩৭ বছর বয়সী প্রাক্তন ভারতীয় পেসার বলেন, ‘আমাকে সুযোগ দেওয়ার জন্য চিরকার ঋণী থাকব কেসিএ'র কাছে। আমি নিজের ফিটনেস প্রমাণ করব এবং মাঠে আবার ঝড় তুলব। সময় এসেছে সমস্ত বিতর্ককে পিছনে ফেলে আসার।’

নির্বাসিত হওয়ার আগে ভারতের হয়ে ২৭টি টেস্টে ৮৭টি উইকেট নেন শ্রীসন্ত। ৫৩টি ওয়ান ডে ম্যাচে তাঁর উইকেট সংখ্যা ৭৫। দেশের হয়ে ১০টি আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচে মাঠে নেমে শ্রীসন্ত ৭টি উইকেট নিয়েছেন। তিনি ২০১১ সালে বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের সদস্য ছিলেন।

বন্ধ করুন