বাংলা নিউজ > ময়দান > বিচক্ষণের মতো ইনিংস ডিক্লেয়ার করে কাউন্টিতে ড্র হতে চলা ম্যাচ জিতে নিল গ্ল্যামারগন
নর্থইস্টের ব্যাটে দাপুটে জয় গ্ল্যামারগনের। ছবি- টুইটার।

বিচক্ষণের মতো ইনিংস ডিক্লেয়ার করে কাউন্টিতে ড্র হতে চলা ম্যাচ জিতে নিল গ্ল্যামারগন

  • একাই চারশো রান করে ম্যাচের নায়কের মর্যাদা আদায় করে নেন স্যাম নর্থইস্ট।

যে পিচে একদল প্রথম ইনিংসে প্রায় ৬০০ রান তোলে এবং পালটা ব্যাট করতে নেমে অপর দল তুলে ফেলে প্রায় ৮০০ রান, সেখানে হাফ-দিনে প্রতিপক্ষের ১০টি উইকেট তুলে নেওয়ার ভাবনা খুব বেশি ক্যাপ্টেনের মাথায় আসবে বলে মনে হয় না। তবে ঠিক তেমনটাই ভেবেছিলেন গ্ল্যামারগনের অধিনায়ক ডেভিড লয়েড। বৃহত্তর স্বার্থের কথা মাথায় রেখেই তিনি ৪০০ টপকে যাওয়া ব্যাটসম্যানকে থামিয়ে দেন মাঝপথেই। শেষমেশ সেই সিদ্ধান্তের জন্যই ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়ে গ্ল্যামারগন।

গ্রেস রোডে গ্ল্যামারগনের বিরুদ্ধে কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচে টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নামে লেস্টারশায়ার। তারা প্রথম ইনিংসে ১৪৮ ওভার ব্যাট করে ৫৮৪ রান তোলে। ১৫৬ রান করেন উইয়ান মাল্ডার।

পালটা ব্যাট করতে নেমে গ্ল্যামারগন তাদের প্রথম ইনিংসে রানের পাহাড়ে চড়ে। তারা চতুর্থ দিলের লাঞ্চে প্রথম ইনিংস ডিক্লেয়ার করে ৫ উইকেটে ৭৯৫ রান তুলে। স্যাম নর্থইস্ট তখন ব্যক্তিগত ৪১০ রানে ব্যাট করছিলেন। ১৯১ রানে নট-আউট ছিলেন ক্রিস কুক। তার আগে কলিন ইনগ্রাম আউট হন ১৩৯ রান করে।

আরও পড়ুন:- লারার পরে এবার একাই ৪০০ নর্থইস্টের, কাউন্টিতে ইতিহাস গ্ল্যামারগনের ব্যাটসম্যানের

এমন ব্যাটিং স্বর্গে শেষ দিনের শেষ ২টি সেশনে লেস্টারকে অল-আউট করার কথা ভাবা মুশকিল। তাই গ্ল্যামারগন অনায়াসে ব্যাটিং জারি রাখতে পারত। সেক্ষেত্রে কুক ডাবল সেঞ্চুরি করার সুযোগ পেতেন। নর্থইস্ট ৫০০ রানে পৌঁছনোর লক্ষ্যে লড়াই চালাতে পারতেন। তবে গ্ল্যামারগন ব্যাট ছেড়ে দেয় ২১১ রানের লিড নিয়ে।

আরও পড়ুন:- প্রথম ম্যাচেই ৭ উইকেট, কাউন্টিতে কেন্টকে জেতালেন ভারতীয় তারকা

মাত্র ৬৫ ওভারের খেলা বাকি ছিল। স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচ ড্র হতে চলেছে বলে ধরে নিয়েছিলেন সকলেই। তবে ছবিটা বদল যায় লেস্টার ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারাতে থাকায়। শেষমেশ তারা দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৯.৪ ওভারে ১৮৩ রানে অল-আউট হয়ে যায়। ৫.২ ওভার বাকি থাকতে এক ইনিংস ও ২৮ রানে ম্যাচ জিতে নেয় গ্ল্যামারগন। দ্বিতীয় ইনিংসে লেস্টারের হয়ে সব থেকে বেশি ৫৯ রান করেন মাল্ডার।

বন্ধ করুন