লকডাউনে পুলিশি তৎপরতা। ছবি- রয়টার্স।
লকডাউনে পুলিশি তৎপরতা। ছবি- রয়টার্স।

বাইরে ফ্রি ম্যাসাজের ডান্ডা ঘুরছে, লকডাউনে অনুরাগীদের সতর্ক করলেন চাহাল

যুজবেন্দ্র যখন বার্তা দিচ্ছেন সমর্থকদের, তাই তাতে রুক্ষ উপদেশ ছাড়াও মুচমুচে কিছু যে থাকবেই, সেটা বুঝতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

সচিন তেন্ডুলকর থেকে বিরাট কোহলি, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় থেকে রোহিত শর্মা, বীরেন্দ্র সেহওয়াগ, যুবরাজ সিং, শিখর ধাওয়ানের মতো ভারতীয় ক্রিকেটের বর্তমান ও প্রাক্তন তারকারা অনুরাগীদের বার বার অনুরোধ করেছেন লকডাউনের সময় বাড়িতে থাকার। করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতার কথা প্রত্যেকেই স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন দেশবাসীকে এবং সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মেনে চলতে বলেছেন।

ক্রিকেটপ্রেমীদের একই অনুরোধ করলেন টিম ইন্ডিয়ার তারকা স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল। তবে যেহেতু যুজবেন্দ্র বার্তা দিচ্ছেন সমর্থকদের, তাই তাতে রুক্ষ উপদেশ ছাড়াও মুচমুচে কিছু যে থাকবেই, সেটা বুঝতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

BCCI-এর অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলে চাহাল টিভি এপিসোড অনুরাগীদের বিশেষ প্রিয়। লকডাউনের সময় হোম কোয়ারান্টাইনে থাকা যুজবেন্দ্র অনুরাগীদের উপহার দিলেন চাহাল টিভির হোম এপিসোড, যা ভারতীয় বোর্ড পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ায়। নিজের ভিডিও বার্তায় যুজবেন্দ্র সকলকে সতর্ক করেন নিজস্ব ভঙ্গিতে। তিনি জানান, লকডাউনের সময় বাইরে ফ্রি ম্যাসাজের ডান্ডা ঘুরছে, কারও যদি প্রয়োজন হয়, তবে তিনি বাড়ির বাইরে বেরোতে পারেনন। ফ্রি ম্যাসাজ না চাইলে বাড়িতে থাকাই শ্রেয়।

নতুন এপিসোডে চাহাল বলেন, 'হ্যালো বন্ধুরা, আমি ফিরে এলাম। তবে এবার বাড়ি থেকে। আপনারা আমাকে মিস করছিলেন, আমিও করছিলাম। তাই ভাবলাম একটা এপিসোড বাড়ি থেকেই বানিয়ে ফেলি। আমি বাড়িতে কী কী করি, সেটা আপনাদের জানাই। খাই, ঘুমোই, সবার সঙ্গে সময় কাটাই এবং আমার কুকুরদের সঙ্গে খেলা করি। আপনারা বাড়িতে কী করেন, সেটা কমেন্ট করে অবশ্যই জানাবেন।'

এর পর চাহাল দুই পোষ্যের সঙ্গে সবার পরিচয় করিয়ে দেন। মা ও বোনের সঙ্গেও আলাপ করিয়ে দেন। বাবা যে কাজে ব্যস্ত রয়েছেন, সেটাও জানাতে ভোলেননি তিনি। পরে তিনি কোথায় কোথায় বসে সময় কাটান, সেই জায়গাগুলোকেও চিনিয়ে দেন। শেষে বলেন, 'আপনারাও দয়া করে লকডাউনের সময় বাড়িতে থাকুন। বাইরে বেরোবেন না। কারণ, এটা খুব গুরুতর বিষয়। বাইরে যাবেন, তো ফ্রি ম্যাসাজের ডান্ডা ঘুরছে। যদি প্রয়োজন হয় তবে দয়া করে বাইরে যাবেন। নাহলে বাড়িতে থাকুন। মস্করা করলাম বটে, তবে এটা খুবই গুরুতর বিষয়। আপনারা বাড়িতে থাকলে তাড়াতাড়ি লকডাউন উঠে যাবে। সেটা আমাদের জন্যও ভালো, আপনাদের জন্য এবং আপনাদের পরিবারের জন্যও ভালো। তাই দয়া করে বাড়িতে থাকুন।'

বন্ধ করুন