গনগনে মেজাজে কোহলি ও পেইন। ছবি- গেটি ইমেজেস।
গনগনে মেজাজে কোহলি ও পেইন। ছবি- গেটি ইমেজেস।

কোহলিদের জন্য আকাশপথ খুলে দিতে পারে অস্ট্রেলিয়া

  • ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ পরিত্যক্ত হলে বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে।

করোনা মহামারির জেরে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক সীমান্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া সরকার। যার ফলে অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-২০ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হওয়া অনিশ্চিত দেখাচ্ছে। তবে টিম ইন্ডিয়া যদি টেস্ট সিরিজের জন্য অজি সফরে উড়ে যেতে রাজি হয়, তবে কোহলিদের জন্য দেশের আকাশপথ খুলে দিতে পারে অস্ট্রেলিয়া সরকার।

আসলে ৩০ সেপ্টেম্বরের পর আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবার উপর থেকে সরকারি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হবে, এমন কোনও নিশ্চয়তা নেই। প্রয়োজন হলে স্থগিতাদেশ বাড়তে পারে অনির্দিষ্টকালের জন্য। তাই যদি হয়, তবে বিশ্বকাপের পাশাপশি ভারতের বিরুদ্ধে স্টিভ স্মিথদের টেস্ট সিরিজের পরিকল্পনাও ভেস্তে যেতে পারে।

সব রকম পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই সরকারের কাছে নিয়ম শিথিল করার আবেদন জানানো হয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে। ক্রিকেট বোর্ডকে বিপুল ক্ষতির হাত থেকে বাঁচাতে সরকারি তরফে এমন প্রস্তাব গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করা হচ্ছে বলেই খবর।

ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ না হলে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডকে প্রায় ৩০০ মিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলার ক্ষতির মুখ দেখতে হবে। করোনা ভাইরাসের জেরে এই মুহূর্তে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া আর্থিক অনটনে রয়েছে বলা মোটেও ভুল হবে না। বোর্ডের ৮০ শতাংশ কর্মচারি কাজ হারিয়েছেন। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামেও ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ আয়োজন করতে পারলে টেলিভিশন স্বত্ব থেকে যে পরিমাণ লভ্যাংশ হাতে আসবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার, তা দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া সম্ভব হবে। অগত্যা দেশের ক্রিকেট বোর্ডের এমন সংকটময় অবস্থায় টিম ইন্ডিয়ার জন্য দেশের আন্তর্জাতিক সীমা খুলে দিতে পারে অস্ট্রেলিয়া।

ইতিমধ্যেই বিসিসিআইকে একটি স্টেডিয়ামে ৫ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলার প্রস্তাব দিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। এটাও শোনা যাচ্ছে যে, অ্যাডিলেডে যদি গোটা সিরিজ খেলা হয়, তবে স্টেডিয়াম সংলগ্ন হোটেলেই কোহলিদের থাকার বন্দোবস্ত করা হবে। এখন দেখার যে, বিসিসিআই আদৌ অজি বোর্ডের প্রস্তাবে রাজি হয়ে এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে অস্ট্রেলিয়ায় দল পাঠাতে রাজি হয় কিনা।

বন্ধ করুন