দেশে ফেরার পথে প্রোটিয়া তারকারা। ছবি সৌজন্যে-টুইটার।
দেশে ফেরার পথে প্রোটিয়া তারকারা। ছবি সৌজন্যে-টুইটার।

COVID 19 crisis: নিরাপদে শহর ছাড়লেন প্রোটিয়ারা

  • সিএবি'র তত্ত্বাবধানে সোমবার শহরে হোটেলবন্দি থাকার পর মঙ্গলবার সকালে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে দুবাইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হয় দক্ষিণ আফ্রিকা।

সিরিজ মুলতুবি হয়ে গিয়েছে বেশ কয়েকদিন আগেই। খেলা হয়নি একটিও বল। নেট সেশনে গা ঘামানোর প্রসঙ্গও ছিল না। অখণ্ড অবসর সত্ত্বেও দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল উপভোগ করতে পারেনি এবারের ভারত সফর।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় বিসিসিআই ও ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা আলোচনাক্রমে স্থগিত রেখেছে তিন ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজ। ধরমশালায় সিরিজের প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেস্তে যায়। সরকারি নির্দেশিকা মেনে বিসিসিআই লখনউ ও কলকাতায় পরের দু'টি ম্যাচ দর্শকশূন্য গ্যালারিতে আয়োজনের পরিকল্পনা করে। যদিও পরে তা বাতিল করা হয়। আপাতত স্থগিত রাখা সিরিজ পরবর্তী সময়ে আয়োজনের কথা জানিয়ে দেওয়া হয় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের তরফে।

সিরিজ বাতিল হলেও দক্ষিণ আফ্রিকা দল তড়িঘড়ি দেশে ফিরে যায়নি। লখনউ ঘুরে সোজা কলকাতায় চলে আসেন প্রোটিয়ারা। সিএবি'র তত্ত্বাবধানে সোমবার শহরে হোটেলবন্দি থাকার পর মঙ্গলবার সকালে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে দুবাইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। দুবাই থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় নিজ নিজ গন্তব্যস্থলে উড়ে যাওয়ার কথা প্রোটিয়া তারকাদের।

ডু'প্লেসিরা শহর ছাড়ার পর সিএবি সভাপতি অভিষেক ডালমিয়া জানান, 'দক্ষিণ আফ্রিকা দল সকালেই নিরাপদে দুবাইয়ের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে। দুবাই থেকেই ওরা দেশের বিমান ধরবে। সিএবি'র আতিথেয়তা ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থাপণায় দক্ষিণ আফ্রিকা ভীষণ খুশি।'

লখনউ থেকে দিল্লি হয়ে দেশে ফেরার বিকল্প হাতে থাকলেও প্রোটিয়ারা সেই রাস্তায় হাঁটেননি। দিল্লির তুলনায় কলকাতায় করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা কম হওয়ায় কলকাতাকেই নিরাপদ মনে হয় দক্ষিণ আফ্রিকার। এখনও পর্যন্ত কলকাতায় একটিও করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের পজিটিভ রিপোর্ট না থাকায় শহরের আকাশপথ ধরেই ভারত ছাড়েন কুইন্টন ডি'ককরা।

বন্ধ করুন