দুই ভূমিকায় দেশ সেবা যোগিন্দরের। ছবি- টুইটার।
দুই ভূমিকায় দেশ সেবা যোগিন্দরের। ছবি- টুইটার।

জীবনের পিচেও হিরো: ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপ জয়ী যোগিন্দরের করোনার বিরুদ্ধে লড়াইকে কুর্নিশ আইসিসির

  • ফাইনালের শেষ ওভারে মিসবা উল হককে আউট করে ভারতের হাতে প্রথম ও একমাত্র টি-২০ বিশ্বকাপের ট্রফি তুলে দেন যোগিন্দর।

একসময় বিশ্বকাপের হিরো হিসেবে সারা দেশের প্রশংসা কুড়িয়েছেন যোগিন্দর শর্মা। এবার করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলর কুর্নিশ আদায় করে নিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার।

১৩ বছর আগেই সেই স্মৃতি আজও টাটকা ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। সম্ভবত মহেন্দ্র সিং ধোনির ক্যাপ্টেন্সি কেরিয়ারের সব থেকে বড় চমক ছিল উদ্বোধনী টি-২০ বিশ্বকাপ খেতাবি লড়াইয়ে। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ফাইনালের শেষ ওভারে যোগিন্দর শর্মার হাতে বল তুলে দেন মাহি। বাকিটা ইতিহাস। মিসবা উল হককে আউট করে ভারতের হাতে প্রথম ও একমাত্র টি-২০ বিশ্বকাপের ট্রফি তুলে দেন যোগিন্দর।

খেলা ছাড়ার পর যোগিন্দর এখন হরিয়ানা পুলিশের ডিএসপি। করোনা মোকাবিলায় সারা দেশে জারি হওযা ২১ দিনের লকডাউনের সময় রাস্তায় নেমে পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই চালাচ্ছেন তিনি। স্বাভাবিকভাবেই প্রাক্তন ক্রিকেটারের এমন ভূমিকায় আপ্লুত দেশের মানুষ। তবে বিষয়টা নজর এড়ায়নি আইসিসিরও। একদা তাদের ফ্ল্যাগশিপ টুর্নামেন্টের নায়ককে এভাবে মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই চালাতে দেখে প্রশংসা না করে পারল না আন্তর্জাতিক ক্রিকেট সংস্থা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় যোগিন্দর শর্মার লড়াইকে কুর্নিশ জানায় আইসিসি। বোলার যোগিন্দর ও পুলিশ আধিকারির যোগিন্দরের দুটি ছবি পাশাপাশি পোস্ট করে আইসিসি লেখে, '২০০৭: টি-২০ বিশ্বকাপের হিরো, ২০২০: বিশ্বের প্রকৃত হিরো। বিশ্বজুড়ে এমন স্বাস্থ্য সংকটের মাঝে যাঁরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন, খেলা ছাড়ার পর পুলিশের চাকরি করা যোগিন্দর তাঁদের মধ্যে একজন।'

বন্ধ করুন