বাড়ি > ময়দান > এক বছর আগেই টেনেছিলেন লক্ষ্মণরেখা, করোনা প্রসঙ্গে মনে করালেন অশ্বিন
বাটলারকে অশ্বিনের মানকাড়িংয়ের মুহূর্ত। ছবি- টুইটার।
বাটলারকে অশ্বিনের মানকাড়িংয়ের মুহূর্ত। ছবি- টুইটার।

এক বছর আগেই টেনেছিলেন লক্ষ্মণরেখা, করোনা প্রসঙ্গে মনে করালেন অশ্বিন

  • ইঙ্গিতটা স্পষ্ট। লকডাউনে বাইরে বেরোলে বিপদে পড়তে পারেন। অর্থাৎ করোনা থেকে বাঁচতে ভিতরে থাকাই সব থেকে নিরাপদ।

করোনা ভাইরাস নিয়ে সংকটময় পরিস্থিতিতে সরকারি লকডাউন উপেক্ষা করলে কী ফল হতে পারে, তার আদর্শ উদাহরণ তুলে ধরলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। টিম ইন্ডিয়ার তারকা অফ-স্পিনার সোশ্যাল মিডিয়ায় দেশবাসীকে সতর্ক করতে অভিনব পন্থা অবলম্বন করলেন।

গত বছর আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের জোস বাটলারকে অশ্বিনের মানকাড়িং নিয়ে বিতর্ক হয়েছিল বিস্তর। বিষয়টি ক্রিকেটের স্পিরিট বিরোধী বলে অশ্বিনের সমালোচনা করেছিলেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ।

এক বছর আগেই সেই ঘটনাকেই রবিচন্দ্রন তুলে ধরলেন অনুরাগীদের সচেতন করতে। টুইটারে বাটলারকে মানকাড়িংয়ের মুহূর্তের ছবি পোস্ট করে অশ্বিন লেখেন, 'কেউ একজন আমাকে এটা পাঠিয়ে মনে করিয়ে দেয় ঠিক একবছর আগে এই রান আউটটি করেছিলাম। যেহেতু সারা দেশে লকডাউন চলছে, তাই এই মুহূর্তে দেশবাসীর জন্য এটা যথাযথ উহাদরণ হতে পারে। বাইরে ঘোরাঘুরি করবেন না। ভিতরে থাকুন, নিরাপদে থাকুন।'

অশ্বিনের ইঙ্গিতটা স্পষ্ট। লকডাউনে বাইরে বেরোলে বিপদে পড়তে পারেন। অর্থাৎ করোনা থেকে বাঁচতে ভিতরে থাকাই সব থেকে নিরাপদ।

ক্রিকেটে মানকাড়িং আউট নিয়ে বিকর্ক চলে বরাবর। তবে বিষয়টি আইসিসির নিয়মবিরুদ্ধ নয়। ১৯৪৮ সালের অস্ট্রেলিয়া সফরে ভিনু মানকড় প্রথম এভাবে নন-স্ট্রাইকার প্রান্তে রান-আউট করেছিলেন বিল ব্রাউনকে। সেই থেকে এই রান-আউট মানকাড়িং বলে পরিচিত।

বন্ধ করুন