টিম ইন্ডিয়ার হেড কোচ রবি শাস্ত্রী। ছবি- রয়টার্স।
টিম ইন্ডিয়ার হেড কোচ রবি শাস্ত্রী। ছবি- রয়টার্স।

লকডাউনের বিশ্রাম কোহলিদের তরতাজা করে মাঠে ফেরাবে, আশাবাদী শাস্ত্রী

  • গত দশ মাসে ভারতীয় দল যে পরিমাণ ক্রিকেট খেলেছে, তাতে মানসিক ক্লান্তি আসা স্বাভাবিক।

করোনার জেরে বাতিল যাবতীয় ক্রীড়াসূচি। খেলা থেকে সম্পূর্ণ মুখ ফিরিয়ে ক্রিকেটাররা সবাই বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন। মহামারীর সময়ে পড়ে পাওয়া এই বিরতিকে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিতে বিবেচনা করছেন টিম ইন্ডিয়ার হেড কোচ রবি শাস্ত্রী। তাঁর মতে, ক্রিকেটারদের জন্য এই বিশ্রামটা প্রয়োজন ছিল। একই কথা প্রযোজ্য ভারতের সাপোর্ট স্টাফদের ক্ষেত্রেও।

স্কাই স্পোর্টসে মাইক আথারটন, নাসের হুসেন ও রব কি'র সঙ্গে আলোচনায় শাস্ত্রী জানান, গত দশ মাসে ভারতীয় দল যে পরিমাণ ক্রিকেট খেলেছে, তাতে মানসিক ক্লান্তি আসা স্বাভাবিক। শাস্ত্রী বলেন, 'এই বিরতিটা ভারতীয় দলের জন্য খুব মন্দ নয়। কারণ, মানসিক ক্লান্তিই হোক কিংবা ফিটনেস বা চোট-আঘাতের প্রসঙ্গ, দলের মধ্যে কোথাও একটা চিড় ধরা পড়ছিল। নিউজিল্যান্ড সফরের পর সেটা প্রকট হয়। গত দশ মাসে আমরা যে পরিমাণ ক্রিকেট খেলছি, তার প্রভাব পড়ছিল খেলায়।'

শাস্ত্রী আরও বলেন, 'দলে বেশ কিছু ক্রিকেটার রয়েছে, যারা তিন ফর্ম্যাটেই খেলে। সুতারং তাদের উপর কতটা চাপ পড়ছিল বোঝাই যাচ্ছে। শুধু এক ফর্ম্যাট থেকে অন্য ফর্ম্যাটে মানিয়ে নেওয়াই নয়, এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ঘুরে বেড়ানোর ধকলটাও থাকে। আমরা বিশ্বকাপ খেলতে ইংল্যান্ডে উড়ে যাই। তার পরেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফিরে এসে ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ। তার পর আবার নিউজিল্যান্ড সফর। সুতরাং ক্রিকেটারদের জন্য খুবই কঠিন সময় কেটেছে। তাই এই বিশ্রামটা ওদের দরকার ছিল।'

সব শেষে শাস্ত্রী জানান যে, সারা দেশে লকডাউনের খবর শুনে প্রাথমিকভাবে অবাক হলেও এমন কিছু যে ঘটতে চলেছে, তা আন্দাজ করেছিলেন তিনি। ভারতীয় ক্রিকেটাররাও বুঝে গিয়েছিলেন কী হতে চলেছে। টিম ইন্ডিয়ার হেড কোচ আশা করছেন, বিশ্রামের পর তরতাজা হয়ে মাঠে ফিরবেন কোহলিরা।

বন্ধ করুন