বাংলা নিউজ > ময়দান > 'কোভিড নাকি চিনা ভাইরাস', চিনে 'আম্মার' প্রয়াণে 'বর্ণবিদ্বেষের' শিকার জোয়ালা
জোয়ালা গুট্টা। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম jwalagutta1)
জোয়ালা গুট্টা। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ইনস্টাগ্রাম jwalagutta1)

'কোভিড নাকি চিনা ভাইরাস', চিনে 'আম্মার' প্রয়াণে 'বর্ণবিদ্বেষের' শিকার জোয়ালা

  • সমাজ হিসেবে কোথা যাচ্ছি? প্রশ্ন ভারতীয় ব্যাডমিন্টন তারকার।

শুভব্রত মুখার্জি

ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় তারকা ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় জোয়ালা গুট্টা। সম্প্রতি তিনি ঠাকুমাকে হারিয়েছেন। ঠাকুমার প্রতি তাঁর অগাধ ভালবাসা। সেই ভালবাসা থেকে তিনি করেছিলেন আবেগঘন এক পোস্ট। আর তারপরে আক্রমণের শিকার হলেন। তাতে অবশ্য থেমে থাকেননি। বরং ওই ব্যক্তিকে একহাত নেন।

চিনে থাকাকালীন করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে মারা যান জোয়ালার ঠাকুমা। জোয়ালা পোস্টে সেকথা উল্লেখ করার পরেই তাকে কদর্য ভাষায় আক্রমণ করে এক নেটিজেন। তাকে আক্রমন করে বলা হয়, করোনা ভাইরাস নয়, ‘চিনা’ ভাইরাস বলুন। উল্লেখ্য, জোয়ালার মা চিনা বংশোদ্ভূত। এই কারণে অতীতেও তাঁকে বর্ণবিদ্বেষের শিকার হতে হয়েছে।

ভারতীয় ব্যাডমিন্টন তারকা টুইট করেছিলেন, 'চিনা নতুন বছরের আগেই চিনে আম্মা শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। মা প্রতি মাসে আম্মার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যেত। করোনার কারণে মা শেষ এক বছরে তোমার সঙ্গে দেখা করতে যেতে পারেনি। কোভিড আমাদেরকে শিখিয়ে দিয়েছে সময় পেলেই কীভাবে একে অপরের পাশে থেকে, একে অপরকে ভালবাসা উজাড় করে দিতে হয়।আপনাদেরকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা।'

সেই টুইটের ১৪ বারের জাতীয় চ্যাম্পিয়ন ‘চিনা ভাইরাস’ টুইটের একটি স্ক্রিনশটও পোস্ট করেন। জানান, ‘বর্ণবিদ্বেষমূলক’ মন্তব্য করলে এরকম উত্তর জুটবে। পরে নিজে একটি টুইটবার্তায় লেখেন, ‘আমি এই মুহূর্তে আমার ঠাকুমার প্রয়াণে ভারাক্রান্ত। যিনি চিনে মারা গিয়েছেন। আমি বিস্মিত, এই ঘটনার পরে আমার বিরুদ্ধে কীভাবে বর্নবিদ্বেষমূলক মন্তব্য করা হচ্ছে। আমায় জিজ্ঞাসা করা হচ্ছে, আমি কেন কোভিড ভাইরাস বলছি, কেন চিনা ভাইরাস বলছি না। সমাজ হিসেবে আমাদের কী হয়েছে! আমরা কোনদিকে যাচ্ছি। লোকে আবার এসবের হয়ে কথা বলছে?’

বন্ধ করুন