বাংলা নিউজ > ময়দান > ৩০-র পরে ভারতীয় দলে অভিষেক! নিজের উপর থেকে কখনই বিশ্বাস হারননি হার্ষাল প্যাটেল
কখনই বিশ্বাস হারননি হার্ষাল প্যাটেল (ছবি:গেটি ইমেজ)
কখনই বিশ্বাস হারননি হার্ষাল প্যাটেল (ছবি:গেটি ইমেজ)

৩০-র পরে ভারতীয় দলে অভিষেক! নিজের উপর থেকে কখনই বিশ্বাস হারননি হার্ষাল প্যাটেল

অভিষেকেই ম্যান অফ দ্য ম্যাচ! কোথায় ছিল হার্ষাল প্যাটেলের সাফল্যের চাবিকাঠি।

আন্তর্জাতিক মঞ্চে অভিষেক করে সকলকে মুগ্ধ করলেন ভারতের পেসার হার্ষাল প্যাটেল। হার্ষাল তার ৩১ তম জন্মদিনের মাত্র চার দিন আগেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক করলেন। কিন্তু রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের এই পেসার তার আইপিএল ২০২১ মরশুম যেখানে শেষ করেছেন, সেখান থেকেই তিনি নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে শুরু করলেন। ২৫ রানে ২ উইকেটের চিত্তাকর্ষক পারফরমেন্স করলেন। এদিন ভারত সাত উইকেটে জিতল। ২-০ এগিয়ে টি টোয়েন্টি সিরিজ পকেটে তুলল রোহিত অ্যান্ড কোম্পানি। 

ম্যাচের পরে ভার্চুয়াল মিডিয়া কনফারেন্সে হার্ষাল বলেন, ‘আমি জানতাম যে আমি সর্বোচ্চ স্তরে খেলতে পারি। আমি বল এবং ব্যাট দিয়েও সর্বোচ্চ স্তরে ভালো করতে পারি।’ তিনি বলেন, ‘আমি প্রতিনিয়ত উন্নতি করতে চাই এবং সেই সম্ভাবনাকে বাস্তবায়িত করতে চাই। আমি কখনই অনুভব করিনি যে স্বপ্নটি আমার কাছ থেকে পালিয়ে যাচ্ছে।’ হার্ষাল নিজের বোলিং অস্ত্রের কথাও জানান। তিনি বলেন, ‘সুতরাং আমি স্টাম্পের কাছাকাছি থেকে, কিছু ক্রিজের কোণ থেকে ইয়র্কার বোলিং করি এবং যেখানে বল ল্যান্ড করে এবং ব্যাটার কোথায় বল খেলে তার উপর এটি ব্যাপক প্রভাব ফেলে। এটি আমার জন্য একটি বিশাল সুবিধা এবং একটি বিশাল অস্ত্র।’

হার্ষাল জানান যে ঘরোয়া ক্রিকেটে পিষে যাওয়ার পরে তিনি তার সীমাবদ্ধতা উপলব্ধি করেছিলেন এবং তার প্রকৃত সম্ভাবনা নিয়ে কাজ করেছিলেন। ‘একজন ফাস্ট বোলার হওয়ার কারণে আপনি দ্রুত বল করতে চান৷ কিন্তু তারপর আমি বুঝতে পেরেছিলাম যে আমার গতির সর্বোচ্চ সীমা সম্ভবত ঘন্টায় ১৩৫ কিলোমিটার, এবং আমি যদি সত্যিই খুব ভালো ছন্দে থাকি তবে আমি সম্ভবত ১৪০ এর কাছাকাছি হতে পারি৷ কিন্তু আমি কখনই ধারাবাহিকভাবে ১৪০ এর বেশি ধরে রাখতে পারব না। তাই এটি এমন কিছু যা আমি উপলব্ধি করেছি, এবং তারপর আমি অন্যান্য জিনিসের উপর কাজ শুরু করেছি, এই স্তরে ভালো করার জন্য আমার প্রয়োজনীয় অন্যান্য দক্ষতা।’

বন্ধ করুন