বাংলা নিউজ > ময়দান > তরুণ ক্রিকেটারদের এটা করতে মানা করছেন দীপ দাশগুপ্ত
প্রাক্তন উইকেটরক্ষক দীপ দাশগুপ্ত (ছবি : ইনস্টাগ্রাম)
প্রাক্তন উইকেটরক্ষক দীপ দাশগুপ্ত (ছবি : ইনস্টাগ্রাম)

তরুণ ক্রিকেটারদের এটা করতে মানা করছেন দীপ দাশগুপ্ত

  • তরুণ ক্রিকেটারদের সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকার বার্তা দলেন প্রাক্তন উইকেটরক্ষক দীপ দাশগুপ্ত। অলি রবিনসন বিতর্ক সকলকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, যে অতীতে যদি কেউ কোনও ভুল করে থাকে তাহলে ভবিষ্যৎ তাকে ছেড়ে কথা বলেনা।

তরুণ ক্রিকেটারদের সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকার বার্তা দলেন প্রাক্তন উইকেটরক্ষক দীপ দাশগুপ্ত। অলি রবিনসন বিতর্ক সকলকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, যে অতীতে যদি কেউ কোনও ভুল করে থাকে তাহলে ভবিষ্যৎ তাকে ছেড়ে কথা বলেনা। ফলে অলি রবিনসন বিতর্ক সকলকে জানিয়ে দিচ্ছে কেউ যেন ভবিষ্যতে কোনও ভুল করার আগে দশবার ভাবে। এর পাশাপাশি প্রাক্তন এই ক্রিকেটার মনে করেন তৃণমূল পর্যায় থেকে বোর্ড পদক্ষেপ নিক। খেলোয়াড়দের বিষয় বোর্ড আর বেশি সংবেদনশীল হোক। 

প্রায় আট বছর আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিক পোস্ট করেছিলেন ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার অলি রবিনসন। প্রচারের আলো থেকে বেশ দূরে থাকা ১৮ বছরের সেই তরুণ রবিনসন নিজের সোশ্যাল মিডিয়া তখন নিজের অ্যাকাউন্টে একাধিক বর্ণ ও লিঙ্গ বৈষম্যমূলক মন্তব্য করেছিলেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আঙিনায় পা রাখতেই হঠাৎ করে তার সেই পোস্টগুলি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। এবং তাঁকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মঞ্চে নায়ক থেকে খলনায়ক বানিয়ে দিয়েছে। 

ভারতের তরুণ ক্রিকেটারদের সঙ্গে এমন ঘটনা না ঘটে তার জন্যই এগিয়ে এলেন দীপ। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে তিনি জানান, ‘আমরা সারাক্ষণ শুনে থাকি যে বর্ণ বৈষম্যমূলক মন্তব্যে কোনও ছাড় দেওয়া যাবেনা, ফুটবলে আমরা দেখেছি খেলোয়াড়রা হাঁটু দিয়ে কথা বলেন। এই সব ভাবতেই ভাললাগে, কিন্তু এর কিছুই কী নিচু স্তরে পালন করা হয়? আটাই হল আসল কথা। ইসিবি, বিসিসিআই এবং আইসিসির মতো এই ক্রীড়া সংস্থা গুলির নিরাপদ রক্ষক হিসাবে কাজ করার জায়গা এখান থেকেই শুরু। ওদের আরও তৃণমূল পর্যায় থেকে কাজ করতে হবে। এই সময় থেকে বর্ণ বৈষম্যবাদের মন্তব্য যে কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া যায়না সেটা বোঝাতে হবে। কিন্তু এটা তৃণমূল পর্যায় থেকে শুরু করতে হবে এটাই আগে প্রয়োজন।’

তরুণ ক্রিকেটারদের আরও বেশি করে শিক্ষিত করতে হবে। বর্ণ ও লিঙ্গ বৈষম্যমূলক বিষয়ে তরুণ ক্রিকেটারদের আরও বেশি করে শিক্ষিত করতে হবে ও জানাতে হবে বলে মনে করেন দীপ দাশগুপ্ত।

বন্ধ করুন