বাংলা নিউজ > ময়দান > Deepak Chahar Mankading Warning: ক্রিজের বাইরে স্টাবস, মানকাডিংয়ের ভয় দেখিয়েও ছেড়ে দিলেন চাহার, ভাইরাল ভিডিয়ো
মানকাডিং নিয়ে ভয় দেখিয়ে ছেড়ে দেন চাহার। (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

Deepak Chahar Mankading Warning: ক্রিজের বাইরে স্টাবস, মানকাডিংয়ের ভয় দেখিয়েও ছেড়ে দিলেন চাহার, ভাইরাল ভিডিয়ো

Deepak Chahar Mankading Warning: বল করার আগেই ক্রিজ ছেড়ে এগিয়ে যান স্টাবস। তাঁকে রান আউট করার যথেষ্ট সুযোগ ছিল চাহারের সামনে। কিন্তু তিনি রান আউট না করে স্টাবসকে সতর্ক করেই ছেড়ে দেন‌।

শুভব্রত মুখার্জি: ইন্দোরে তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছে ভারত এবং দক্ষিণ আফ্রিকা। ম্যাচে এদিন প্রথমে ব্যাট করতে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা। তাদের ইনিংসের ১৬ তম ওভারেই ফিরে আসে দীপ্তি শর্মার স্মৃতি। নন-স্ট্রাইকার এন্ডে ছিলেন ত্রিস্তান স্টাবস। স্ট্রাইকে ছিলেন বাঁ-হাতি ব্যাটার রিলি রসউ। দীপক চাহার বল করতে এগিয়ে আসছিলেন।

বল করার আগেই ক্রিজ ছেড়ে এগিয়ে যান স্টাবস। তাঁকে রান আউট করার যথেষ্ট সুযোগ ছিল চাহারের সামনে। কিন্তু তিনি রান আউট না করে স্টাবসকে সতর্ক করেই ছেড়ে দেন‌।

প্রসঙ্গত কয়েকদিন আগে ইংল্যান্ড মহিলা দলের বিরুদ্ধে ভারতীয় দলের ম্যাচে প্রায় এক ঘটনার সাক্ষী ছিল ক্রিকেট বিশ্ব। সেই সিরিজের শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ড ম্যাচ জেতার জন্য ব্যাট করছিল। বল করছিলেন বাংলার বোলার দীপ্তি শর্মা। তিনি বল‌ ডেলিভারি করার আগেই ক্রিজ ছেড়ে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছিলেন ইংল্যান্ড ব্যাটার চার্লি ডিন। রান নেওয়ার ক্ষেত্রে অতিরিক্ত সুবিধা নিতে গিয়ে বিপদে পড়ে গিয়েছিলেন চার্লি। তাঁকে রান আউট করে দিয়েছিলেন দীপ্তি। সে পদ্ধতিতে সেদিন দীপ্তি চার্লিকে আউট করে প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখিয়েছিলেন, তা ইতিমধ্যেই আইনগতভাবে আইসিসির স্বীকৃত।

আরও পড়ুন: IND vs SA 3rd T20I Live: সূর্যকুমার আউট, ৫ উইকেট হারিয়ে ১০০ টপকাল ভারত

তবে সেদিন দীপ্তি করলেও আজ দীপক চাহার ইন্দোরে কিন্তু এক পথে হাঁটলেন না। সুযোগ থাকলেও তিনি আউট করলেন না স্টাবসকে। শুধুমাত্র সতর্ক করেই ছেড়ে দেন। ফলো থ্রু'তেই দাঁড়িয়ে পড়েন চাহার। সতর্ক করে দেন স্টাবসকে। বুঝিয়ে দেন, এটাই শেষবার। এরপর ফের চেষ্টা করলে তাঁকে রান আউট করে প্যাভিলিয়নে পাঠাতে তার হাত এতটুকুও কাঁপবে না।

উল্লেখ্য, এদিন দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথমে ব্যাট করে ২২৭ রান তুলতে সমর্থ হয়। রিলি রসউ অনবদ্য অপরাজিত একটি শতরান করেন। যা তাঁর কেরিয়ারে প্রথম আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি শতরান।