বাংলা নিউজ > ময়দান > WTC ফাইনালের নায়ক জেমিসন নাকি লর্ডসে ডাবল সেঞ্চুরি করা ডেভন, কার হাতে উঠবে খেতাব?
ডেভন কনওয়ে, কুইন্টন ডি'কক ও কাইল জেমিসন। ছবি- আইসিসি।
ডেভন কনওয়ে, কুইন্টন ডি'কক ও কাইল জেমিসন। ছবি- আইসিসি।

WTC ফাইনালের নায়ক জেমিসন নাকি লর্ডসে ডাবল সেঞ্চুরি করা ডেভন, কার হাতে উঠবে খেতাব?

  • জুনের সেরা ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়ে শেফালির সঙ্গে রয়েছেন স্নেহ রানাও।

এপ্রিল ও মে মাসের মতোই ছেলেদের বিভাগে জুনের সেরা ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়ে নেই কোনও ভারতীয় তারকা। যদিও মেয়েদের বিভাগে দু'জন ভারতীয় ক্রিকেটার মনোনীত হয়েছেন আইসিসি প্লেয়ার অফ দ্য মনথ পুরস্কারের জন্য।

গত জানুয়ারি থেকে আইসিসি প্রতি মাসের সেরা পুরুষ ও মহিলা ক্রিকেটারকে পুরস্কৃত করার সিদ্ধান্ত নেয়। সেই মতো প্রথম তিন মাসে ছেলেদের বিভাগে এই খেতাব ওঠে তিন ভারতীয় ক্রিকেটারের হাতে। জানুয়ারিতে আইসিসির সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন ঋষভ পন্ত। ফেব্রুয়ারির সেরা ক্রিকেটারের পুরস্কার ওঠে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের হাতে। মার্চে এই খেতাব জেতেন ভুবনেশ্বর কুমার।

এপ্রিল ও মে মাসে ভারতের কোনও আন্তর্জাতিক সিরিজ ছিল না। স্বাভাবিকভাবেই কোনও ভারতীয় ক্রিকেটার মনোনীত হননি গত দু'মাসে। সেই সুযোগে বাবর আজম ও মুশফিকুর রহিম জেতেন এই পুরস্কার। এবার আইসিসির তরফে জুনের সেরা ক্রিকেটারের দৌড়ে থাকা তিন তারকার তালিকা প্রকাশ করা হল।

জুনে ভারত কেবলমাত্র আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল ম্যাচ খেলে। সঙ্গত কারণেই একটি মাত্র ম্যাচের পারফর্ম্যান্সের নিরিখে জুনের সেরা ক্রিকেটারের দৌড়ে নাম লেখানো সম্ভব ছিল না কোনও ভারতীয় ক্রিকেটারের পক্ষে।

ছেলেদের বিভাগে নিউজিল্যান্ডের ডেভন কনওয়ে ও কাইল জেমিসনের সঙ্গে দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি'কক মনোনীত হয়েছেন। ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের পারফর্ম্যান্সের নিরিখে মেয়েদের বিভাগে মনোনীত হয়েছেন দুই ভারতীয় তারকা শেফালি বর্মা ও স্নেহ রানা। তাঁদের সঙ্গে রয়েছেন ইংল্যান্ডের সোফি একলেস্টান।

ডেভন কনওয়ে:- লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট অভিষেকেই ডাবল সেঞ্চুরি করেন কনওয়ে। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্ট এবং ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালেও হাফ-সেঞ্চুরি করেন ডেভন। তিনটি টেস্টে ৬৩.১৬ গড়ে ৩৭৯ রান সংগ্রহ করেন তিনি।

কুইন্টন ডি'কক:- ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে ১৪১ রান করে অপরাজিত থাকেন এবং দ্বিতীয় টেস্টে ৯৬ রানে আউট হন ডি'কক। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তিনটি টি-২০ ম্যাচে তিনি সংগ্রহ করেন সাকুল্যে ১৩৫ রান।

কাইল জেমিসন:- টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন জেমিসন। ম্যাচে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৬১ রানের বিনিময়ে ৭ উইকেট দখল করেন তিনি। জুলাইয়ে ২টি টেস্টে মাঠে নেমে ১০টি উইকেট নিয়েছেন জেমিসন।

শেফালি বর্মা:- ব্রিস্টলে টেস্ট অভিষেকে একাধিক বিশ্বরেকর্ড গড়ে শেফালি দুই ইনিংসে যথাক্রমে ৯৬ ও ৬৩ রান করেন। এছাড়া জুলাইয়ে দু'টি ওয়ান ডে ম্যাচে তিনি ৫৯ রান সংগ্রহ করেন।

স্নেহ রানা:- ব্রিস্টলে টেস্ট অভিষেকে রানা অপরাজিত ৮০ রান করা ছাড়াও ৪ উইকেট দখল করেন। পরে ১টি ওয়ান ডে ম্যাচে ১টি উইকেটও নিয়েছেন তিনি।

সোফি একলেস্টান:- ব্রিস্টল টেস্টের দুই ইনিংস মিলিয়ে ৮টি উইকেট নেন সোফি। পরে দু'টি ওয়ান ডে ম্যাচে ৩টি করে মোট ৬টি উইকেট নিয়েছেন তিনি।

বন্ধ করুন