বাংলা নিউজ > ময়দান > Dhaka Premier League T20 : ধানমুন্ডির হয়ে প্রথম ম্যাচেই সহজ জয় আশরাফুলদের
শেখ জামাল ধানমুন্ডি ক্লাবের মুখোমুখি খেলাঘর (ছবি: গুগল)
শেখ জামাল ধানমুন্ডি ক্লাবের মুখোমুখি খেলাঘর (ছবি: গুগল)

Dhaka Premier League T20 : ধানমুন্ডির হয়ে প্রথম ম্যাচেই সহজ জয় আশরাফুলদের

  • বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের প্রথম ম্যাচে খেলাঘরকে ২২ রানে হারিয়ে জয় তুলে নিল শেখ জামাল ধানমুন্ডি ক্লাবের মহম্মদ আশরাফুল-নুরুল হাসান সোহানরা।

শুভব্রত মুখার্জি:  মহম্মদ আশরাফুলকে নিশ্চয় ভোলেননি টাইগার সমর্থকরা। বলা‌ ভাল বাংলাদেশ ক্রিকেটার তথাকথিত প্রথম আন্তর্জাতিক 'রকস্টার' যার হাত ধরে অজিদের বিপক্ষে ওয়ানডেতে ঐতিহাসিক জয় ছিনিয়ে এনেছিল বাংলাদেশ। তারপর শৃঙ্খলা জনিত কারণে নিজের ট্যালেন্টের উপর সুবিচার করতে পারেননি আশরাফুল। সেই আশরাফুলকে কয়েকদিন আগেই জাতীয় দলে ফেরানোরও দাবি উঠেছিল। তিনি যে এখনও ফুরিয়ে যাননি তার প্রমাণ দিলেন ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ২০২১ এর প্রথম ম্যাচেই।  খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির দুই ওপেনার দারুণ শুরু করলেও মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের দ্রুত গতিতে রান তোলার সুযোগ দেয়নি শেখ জামাল ধানমুন্ডি ক্লাবের বোলাররা। ফলে বঙ্গবন্ধু ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের প্রথম ম্যাচে খেলাঘরকে ২২ রানে হারিয়ে জয় তুলে নিল মহম্মদ আশরাফুল-নুরুল হাসান সোহানরা। 

এদিন টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু করে শেখ জামাল ধানমুন্ডির দুই ওপেনার আশরাফুল ও সৈকত। শুরু থেকেই আক্রমনাত্বক ব্যাটিং শুরু করেন সৈকত। আর তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দেন আশরাফুল। দু’জনের ব্যাটিংয়ে ৮ ওভারে ৭২ রান তোলে ধানমুন্ডি। নবম ওভারে লেগ বিফোর আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন সৈকত। তিনি ২৫ বলে করেছেন ৩৮ রান। সোহানের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে ফেরেন আশরাফুল। ৩৪ বলে ৩৮ রান করেন আশরাফুল। এদিন কোনও রানই করতে পারেননি নাসির। এরপর দলনায়ক সোহান ভালো শুরু করলেও বড় ইনিংস খেলতে ব্যর্থ। ১৭ বলে ২১ রান করে সাজঘরে ফেরেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। ১৬ বলে ১৭ রান করেন তানভীর হায়দার খান। শেষ দিকে এনামুল হক এনাম ৪ বলে ১৯ রানের এক অসাধারণ ক্যামিও খেলেন ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রানের পুঁজি পায় শেখ জামাল যা শেষ পর্যন্ত দু’দলের ফারাকটা গড়ে দেয়।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ধানমুন্ডি ১৬৬ রান করতে সমর্থ হয়। ১৬৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভাল করেন খেলাঘরের দুই ওপেনার সাদিকুর রহমান ও ইমতিয়াজ হোসেন চৈাধুরি তান্না। দলীয় ৪৪ রানে ইলিয়াস সানির বলে প্যাভিলিয়নে  ফিরে যান সাদিকুর। সানির বলে বোল্ড হওয়া বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান করেন ১৭ বলে ১৭ রান। তান্না ২০ বলে ২৬ রান করে সাজঘরে ফেরেন। এই দুই ক্রিকেটার আউট হওয়ার পর ব্যাটিং বিপর্যয়ের সম্মুখীন হয় খেলাঘর। ফারহাদ হোসেন, মহম্মদ সালমান ও মাসুম খানরা চেষ্টা করলেও তা ম্যাচ জয়ের জন্য যথেষ্ট ছিল না। ফারহাদ ২০, সলমন ২১ ও মাসুম ২২ রান করেন। মেহেদি হাসান মিরাজ করেছেন ২০ বলে ১৪ রান। শেখ জামালের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট নিয়েছেন ইলিয়াস।

বন্ধ করুন