বাড়ি > ময়দান > বিশ্বকাপে নির্বাচকরা তোকে দলে নেবে না, যুবরাজকে বলেন ধোনি
যুবরাজ সিং ও এমএস ধোনি। ছবি-বিসিসিআই।
যুবরাজ সিং ও এমএস ধোনি। ছবি-বিসিসিআই।

বিশ্বকাপে নির্বাচকরা তোকে দলে নেবে না, যুবরাজকে বলেন ধোনি

  • রায়না ও জাডেজাকে ধোনি বেশি সাপোর্ট করতেন বলেও মনে করেন যুবি। 

২০১১ বিশ্বকাপের নায়ক ছিলেন। তারপরেই ক্যানসারের সঙ্গে অদম্য লড়াই করে প্রত্যাবর্তন। মাঝে চলে গিয়েছে ২০১৫ বিশ্বকাপ। ইচ্ছা ছিল ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ খেলার। কিন্তু তখনই তাঁকে আয়না দেখান মহেন্দ্র সিং ধোনি বলে জানিয়েছেন যুবরাজ সিং। 

এক সাম্প্রতিক সাক্ষাতকারে যুবরাজ জানিয়েছেন, কীভাবে তাঁকে রুঢ় বাস্তবের সঙ্গে পরিচয় করিয়েছিলেন ধোনি। এরজন্য মাহির কাছে তিনি কৃতজ্ঞ বলেও জানান ভারতের প্রাক্তন অলরাউন্ডার। ক্যারিবিয়ান সফরে খারাপ খেলার পর ২০১৭ সালে ওডিআই থেকে বাদ পড়েন যুবরাজ। তখনই ধোনি তাঁকে বলেন যে নির্বাচকরা ২০১৯ বিশ্বকাপে দলে চান না বাঁ-হাতিকে। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতেও যুবরাজ মাত্র ১০৫ রান করেছিলেন চার ইনিংসে। ফলে দলে ফেরা আর সম্ভব হয়নি তাঁর পক্ষে। 

যুবরাজ বলেন যে কোহলি অনেক সাহায্য করেছিলেন তাঁকে কামব্যাক করতে কিন্তু ধোনি তাঁকে সত্যিটা বলেছিলেন। মাহিকে প্রশংসা করে যুবরাজ বলেন যে ও সাধ্যমতো চেষ্টা করেছিল কিন্তু সবসময় সবকিছু করে ওঠা সম্ভব হয় না। 

যুবরাজ বলেন যে ক্যানসার সারিয়ে ফেরার পর তাঁর ওপর আস্থা না রাখার জন্য তিনি কাউকে দোষ দিতে চান না। কারণ তাঁর নিজের ওপর আস্থা ফিরতে কিছুটা সময় লেগেছিল। 

ধোনির সঙ্গে তাঁর পরিবর্তিত সমীকরণ নিয়ে যুবি বলেন যে ২০১১ সাল অবধি মাহি বলতেন যে তুই আমার প্রধান খেলোয়াড়। কিন্তু ক্যানসারের পর তাঁর খেলা বদলে যায় ও দলেও অনেক বদল হয়। প্রসঙ্গত দলে বড় ভূমিকা নিতে শুরু করেন বিরাট কোহলি, সুরেশ রায়না ও রোহিত শর্মা। যুবি বলেন যে এটা কিছু করার নেই। ক্যাপ্টেনদের দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হয়। তাই ২০১৫ বিশ্বকাপ নিয়ে কোনও একটা কারণকে চিহ্নিত করা সম্ভব নয় বাদ পড়ার প্রসঙ্গে। 

যুবরাজ বলেন যে সব ক্যাপ্টেনই কোনও না কোনও প্লেয়ারকে বেশি সমর্থন করেন। এই প্রসঙ্গে ধোনি রায়না ও জাডেজাকে বেশি ব্যাকিং করতে বলেন বলে মনে করেন যুবরাজ। বিরাট কোহলি যেমন কেএল রাহুলকে সাপোর্ট করেন। কিন্তু এই নিয়ে মনে কোনও খেদ পুষে রাখতে চান না যুবরাজ। তিনি মনে করেন যে দলকে জেতানোর জন্য যাদের নির্বাচন করা উচিত বলে অধিনায়ক মনে করেন, তাদের নেওয়া হয়। এর মধ্যে ভুল কিছু নেই। 

আইপিএলে সুযোগ না পেয়ে মন খারাপ লাগলেও  এখন সামনের দিকে এগোতে চান চিনি। পঞ্জাবের মেন্টর হিসাবে এমন খেলোয়াড় তুলতে চান তিনি যারা দেশের হয়ে খেলতে পারে। 

বন্ধ করুন