বাড়ি > ময়দান > হাওড়ার করোনা ও আমফান পীড়িতদের পাশে ধুলাগড় মোহনবাগান ফ্যানস ক্লাব
খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছে ধুলাগড় মোহনবাগান ফ্যানস ক্লাব।
খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছে ধুলাগড় মোহনবাগান ফ্যানস ক্লাব।

হাওড়ার করোনা ও আমফান পীড়িতদের পাশে ধুলাগড় মোহনবাগান ফ্যানস ক্লাব

  • বিপর্যয় মোকাবিলায় তৎপর বাগান সমর্থকরা চাইছেন ইস্টবেঙ্গল ISL খেলুক।

মোহনবাগান শুধু আর মোহনবাগান নেই। এটিকের সঙ্গে জোট বেঁধে নামের সঙ্গে জুড়ে নিয়েছে তিনবারের আইএসএল চ্যাম্পিয়নদের। তবে বাগান সমর্থকদের আবেগ অবিকল আগের মতোই অটুট।

নতুন দল হিসেবে নতুন লিগে আত্মপ্রকাশে ঠিক কী বদল চোখে পড়বে, তা নিয়ে এখনও ধোঁয়াশায় হাওড়ার মোহনবাগান সমর্থকরা। তবে আপাতত ফুটবলের প্রসঙ্গ তাঁদের কাছে প্রাথমিক বিষয় নয়। বরং তাঁদের সামনে বড়সড় চ্যালেঞ্জ করোনা ও আমফানের জোড়া ফলায় বিদ্ধ মানুষের পাশে দাঁড়ানো।

এমনই সংকল্প নিয়ে হাওড়ার ধুলাগড় ও গঙ্গাধরপুর এলাকার কিছু মোহনবাগান সমর্থক তিনটি গ্রামের করোনা ও আমফান দুর্গতদের মধ্যে শুকনো খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করার সিদ্ধান্ত নেয় নিজেদের উদ্যোগে অর্থ সংগ্রহ করে।

ধুলাগড়, গঙ্গাধরপুর ও দেউলপুর, হাওড়ার তিনটি গ্রামে দু'দিন ধরে আলাদা আলাদা অস্থায়ী শিবির করে করোনা ও আমফান পীড়িত মানুষদের হাতে ময়দা, আলু, চিনি, সুজি ও বিস্কুটের মতো শুকনো খাদ্য সামগ্রী তুলে দেয় ধুলাগড় মোহনবাগান ফ্যানস ক্লাব।

বিপর্যয়ের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সামিল হওয়া যদি মোহনবাগান সমর্থক এই তরুণ তুর্কিদের তৃপ্তি এনে দেয়, তবে একটা আশঙ্কাও তাদের গ্রাস করছে। সেটা নিছক ফুটবল ভিত্তিক। বাগান সমর্থক এই তরুণের দলকে চিন্তিত করছে, ইস্টবেঙ্গল যদি আইএসএল না খেলে, তখন ডার্বির কী হবে!

শুধু মাত্র কলকাতা লিগের বড় ম্যাচে দুধের স্বাদ কি যথাযথ পাওয়া যাবে? এই আশঙ্কা থেকেই তাঁরাও চাইছেন ইস্টবেঙ্গল আইএসএল খেলুক। তবেই না দেশের সেরা লিগে দুই প্রধানের সেয়ানে সেয়ানে টক্কর দেখা যাবে। এটিকে যতই লেজুড় হয়ে থাক না কেন, বড় ম্যাচের সময় লড়াই হবে ঘটি-বাঙালের।

সেকারণেই, ইস্টবেঙ্গলের আইএসএল খেলার ব্যবস্থা করা হোক, এই দাবিতে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করে ফেডারেশনে চিঠি লেখার কথা ভাবছে ধুলাগড় মোহনবাগান ফ্যানস ক্লাব।

বন্ধ করুন