বাংলা নিউজ > ময়দান > লর্ডসে বসে ভারতের জয় দেখে কি নস্ট্যালজিক হয়ে পড়লেন? ম্যাচ শেষে কী বললেন সৌরভ?
লর্ডসে বসে পুরো ম্যাচটাই উপভোগ করেছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি: এএনআই
লর্ডসে বসে পুরো ম্যাচটাই উপভোগ করেছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি: এএনআই

লর্ডসে বসে ভারতের জয় দেখে কি নস্ট্যালজিক হয়ে পড়লেন? ম্যাচ শেষে কী বললেন সৌরভ?

  • এই লর্ডসের সঙ্গে বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের বহু স্মৃতি। সবটাই আবেগে ভরা। তবে সবচেয়ে বেশি রঙিন স্মৃতি বোধহয় ২০০২ সালের ১৩ জুলাই। যে দিন ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জিতে এই লর্ডসে ব্যালকনিতে দাঁড়িয়েই জামা উড়িয়ে সেলিব্রেশন করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

লর্ডসে বসে ভারতের নাটকীয় জয় দেখে একেবারে মুগ্ধ বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। হয়তো তখন তিনি ডুবে গিয়েছে ১৯ বছর আগের স্মৃতিতে। এই লর্ডসের সঙ্গে বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের বহু স্মৃতি। সবটাই আবেগে ভরা। তবে সবচেয়ে বেশি রঙিন স্মৃতি বোধহয় ২০০২ সালের ১৩ জুলাই। যে দিন ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জিতে এই লর্ডসে ব্যালকনিতে দাঁড়িয়েই জামা উড়িয়ে সেলিব্রেশন করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সে সময়ে দলের অধিনায়ক ছিলেন সৌরভ। আর সোমবার সেই লর্ডসের গ্যালারিতে বসেই বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় উপভোগ করলেন বিরাট কোহলিদের অবিশ্বাস্য জয়।

ম্যাচ শেষ হওয়ার পরেই সৌরভ টুইটে লিখেছেন, ‘অসাধারণ জয় ভারতের। দলের প্রত্যেকেরে কী লড়াকু মেজাজ, কী সাহস.. এত কাছ থেকে এই জয়টা দেখে সত্যি খুব ভাল লাগছে..’।

এই ম্যাচটা সত্যি নাটকে মোড়া ছিল। প্রতিটা মুহূর্তে ছিল উত্তেজনার পারদ। চতুর্থ দিনের শেষে তো বটেই, পঞ্চম দিনের শুরুতেও রীতিমতো ব্যাকফুটে ছিলেন বিরাট কোহলিরা। রাত গড়াতেই বদলে গেল ছবিটা। প্রথমে সামি, বুমরাহর চমক। তার পরেই ভারতীয় বোলারদের দাপট। ইংল্যান্ডকে ১৫১ রানে হারিয়ে লর্ডসে নতুন এক অধ্যায় লিখলেন কোহলি ব্রিগেড।

চতুর্থ দিনের শেষে ভারত ১৮১ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো চাপে পড়ে গিয়েছিল। পঞ্চম দিনের শুরুতেই ২২ রান করে আউট হয়ে যান ঋষভ পন্ত। তখন দলের রান ১৯৪। পন্ত আউট হওয়ার পর পরই আউট হয়ে যান ইশান্ত শর্মাও (১৬)। তখন ২০৯ রানে ৮ উইকেট পড়ে গিয়েছে। সেখান থেকে দলের মান রক্ষা করেন মহম্মদ সামি এবং জসপ্রীত বুমরাহ। এই দুই ক্রিকেটারের সৌজন্যে ৮ উইকেটে ২৯৮ রানে ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করেন বিরাট কোহলি। সামি অপরাজিত থাকেন ৫৬ রান করে। বুমরাহ ৩৪ রানে নট আউট।

বল হাতে প্রথম দু'ওভারেই দুই ওপেনারকে ফেরান বুমরাহ এবং সামি। প্রথম ওভারে শূন্য রানে রোরি বার্নসকে ফেরান বুমরাহ। তার পরের ওভারে সামি ফেরান ডোম সিবলেকে। শুরুতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়ে গিয়েছিল ভারত। তার পর থেকে ইংল্যান্ড পুরোটাই ড্র করার জন্য ম্যাচ খেলেছে। বেশি সতর্ক হতেই গিয়েই বরং একের পর এক উইকেট হারিয়েছে তারা। কার্যত লাঞ্চের কিছু সময় পর থেকেই ব্যাট করতে নেমেছিল ইংল্যান্ড। তবু ড্র করতে পারলেন না জো রুটরা। 

দ্বিতীয় ইনিংসে বুমরাহ ৩টি উইকেট পেয়েছেন। সামি নিয়েছেন একটি। চারটি উইকেট তুলে নিয়েছেন মহম্মদ সিরাজ। ইশান্ত নিয়েছেন দু'টি উইকেট। মাত্র ১২০ রানে ইংল্যান্ডকে অল আউট করে ১৫১ রানে জয় ছিনিয়ে নেয় ভারত।

বন্ধ করুন