বাংলা নিউজ > ময়দান > জানেন কি সচিনকে বল করতে গিয়ে সাময়িক ‘সংজ্ঞাহীন’ হয়ে গিয়েছিলেন এই ক্রিকেটার!
সচিন তেন্ডুলকর (ছবি:গেটি ইমেজ)
সচিন তেন্ডুলকর (ছবি:গেটি ইমেজ)

জানেন কি সচিনকে বল করতে গিয়ে সাময়িক ‘সংজ্ঞাহীন’ হয়ে গিয়েছিলেন এই ক্রিকেটার!

  • স্মৃতিচারণ করতে গিয়েই মর্কেল জানান সচিনের বিরুদ্ধে অভিষেক ম্যাচে পোলক যখন তার হাতে বল তুলে দেন তখন নিজেকে 'অসাড়' বলে মনে হয়েছিল।

শুভব্রত মুখার্জি: কিংবদন্তি ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে খেলাটা এমনিতেই কঠিন। তার উপরে যদি ম্যাচটি হয় আপনার অভিষেক ম্যাচ তাহলে আপনার নার্ভাসনেস যে একটু হলেও বাড়বে তা স্বাভাবিক। ঠিক এমন ঘটনাই ঘটেছিল প্রাক্তন প্রোটিয়া পেসার মর্নে মর্কেলের সঙ্গে। ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার ২০০৬/০৭ সিরিজে অভিষেক হয়েছিল মর্নের। চলতি ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা চলাকালীন স্মৃতিচারণের সময় সামনে এল সেই ঘটনা।

প্রসঙ্গত ব্যাট হাতে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে বেশ কিছু ভালো ইনিংস খেলেছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। তার ক্যারিয়ারে টেস্টে ৫০তম শতরান এসেছে এই দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতেই। সুপারস্পোর্টস পার্কের সেই শতরান ছাড়াও ১৯৯২ সালে জোহানেসবার্গে ১১১ রান করার পাশাপাশি ১৯৯৬ সালে কেপটাউনে তিনি ১৬৯ রানের ইনিংসও খেলেছিলেন। ২০০১ সালে জোহানেসবার্গে ১৫৫ রানের এক অনবদ্য ইনিংস খেলেন তিনি। ২০০৬/০৭ মরশুমে সচিন দুটি শতরান করেছিলেন। মর্নে মর্কেল ২০০৬/০৭ সিরিজে ভারতের বিরুদ্ধে অভিষেক করেছিলেন। প্রোটিয়াদের অন্যতম সেরা পেসার মর্কেল। তিনি চলতি ভারত বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে ধারাভাষ্যকার হিসেবে কাজ করছেন। দ্বিতীয় দিনের খেলা বৃষ্টিবিঘ্নিত হয়। সেই সময়তেই স্মৃতিচারণ করতে গিয়েই মর্কেল জানান সচিনের বিরুদ্ধে অভিষেক ম্যাচে পোলক যখন তার হাতে বল তুলে দেন তখন নিজেকে 'অসাড়' বলে মনে হয়েছিল।

মর্কেল জানান ‘আমি আপনাদেরকে জানাচ্ছি ২০০৬ সালে যখন আমার অভিষেক হয় সেই সময়ের একটা ঘটনা ঘটেছিল। আমি নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম বল সচিনকে করেছিলাম। আমার মনে আছে পলি (শন পোলক) আমার হাতে বল দেওয়ার পরে নিজেকে অসাড় বলে মনে হয়েছিল। আমি নিজেকে পরে বুঝিয়েছিলাম হ্যাঁ এবার বলটা আমাকে করতে হবে। সেই টেস্টের প্রথম দিন খুব বৃষ্টি হয়েছিল। আমরা ভারতকে ১৩০ রানের আশেপাশে অল আউট করে দিয়েছিলাম।’

বন্ধ করুন