বাংলা নিউজ > ময়দান > দ্রোণাচার্য পুরস্কার পাচ্ছেন রোহিত শর্মা-শার্দুল ঠাকুরের কোচ দীনেশ লাড

দ্রোণাচার্য পুরস্কার পাচ্ছেন রোহিত শর্মা-শার্দুল ঠাকুরের কোচ দীনেশ লাড

রোহিত শর্মা-শার্দুল ঠাকুরের কোচ দীনেশ লাড

রোহিত শর্মার কোচ দীনেশ লাডকে দ্রোণাচার্য পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে। ক্রিকেট কোচ হিসেবে তিনি ষষ্ঠ কোচ হিসেবে দ্রোণাচার্য পুরস্কার পেয়েছেন। রোহিত শর্মার ক্যারিয়ারে লাড স্যারের অবদান অনেক বড়। রোহিতকে তৈরি করার পিছনে তার বড় ভূমিকা রয়েছে।

রোহিত শর্মার কোচ দীনেশ লাডকে দ্রোণাচার্য পুরস্কার ঘোষণা করা হয়েছে। ক্রিকেট কোচ হিসেবে তিনি ষষ্ঠ কোচ হিসেবে দ্রোণাচার্য পুরস্কার পেয়েছেন। রোহিত শর্মার ক্যারিয়ারে লাড স্যারের অবদান অনেক বড়। রোহিতকে তৈরি করার পিছনে তার বড় ভূমিকা রয়েছে। এই সম্মানে এবং ক্রিকেটে তার অবদানের জন্য, দীনেশ লাডের নাম ঘোষণা করা হয়েছে এই বছরের দ্রোণাচার্য পুরস্কারের (লাইফটাইম ক্যাটাগরি) জন্য।

দ্রোণাচার্য পুরস্কার বিজয়ী ক্রিকেট কোচ হলেন দেশ প্রেম আজাদ। দেশ প্রেম আজাদ হলেন কপিল দেবের কোচ। দ্রোণাচার্য পুরস্কার বিজয়ী আর এক ক্রিকেট কোচ হলেন গুরুচরণ সিং। তিনি হলেন মনিন্দর সিং, কীর্তি আজাদ, অজয় ​​জাদেজা কোচ। এ ছাড়াও রমাকান্ত আচরেকারকেও দ্রোণাচার্য পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল। কিংবদন্তি ক্রিকেটার সচিন তেন্ডুলকরের কোচ ছিলেন রমাকান্ত আচরেকার। বিরাট কোহলির কোচ রাজকুমার শর্মাকেও দ্রোণাচার্য পুরস্কার দেওয়া হয়েছিল। 

আরও পড়ুন… জাদেজা কি চেন্নাইতে থাকবেন? CSK কর্তাদের দাবি ধোনি নিজের লিস্ট করে ফেলেছেন

দীনেশ লাড স্যার যিনি রোহিতকে তৈরি করেছেন এবার তাঁকে দ্রোণাচার্য পুরস্কার দেওয়া হবে। রোহিত শর্মার কোচ দীনেশ লাড বহু বছর ধরে ক্রিকেট কোচ হিসেবে কাজ করছেন। ১৯৯৫ সালে, লাড স্যার স্বামী বিবেকানন্দ স্কুলের দল গঠনের জন্য ছেলেদের খুঁজছিলেন। একই অনুসন্ধানের সময় লাড স্যার রোহিত শর্মাকে দেখতে পান। এ সময় লাড স্যার তার বাবা-মাকে স্কুলে নিয়ে আসতে বলেন। পরের দিনই রোহিতের মামা তাঁকে স্কুলে এনে ভর্তি করিয়ে দেন। গুরুত্বপূর্ণভাবে, রোহিত শুরুতে একজন বোলার ছিলেন। কিন্তু পরে স্যার লক্ষ্য করেন তিনিও ভালো ব্যাটিং করেন। তারপর লাড স্যার তাঁকে একটি ম্যাচে ওপেন করতে পাঠান এবং সেখান থেকে রোহিত সাফল্যের প্রতিটি ধাপে আরোহণ করেন।

আরও পড়ুন… হ্যা সত্যি কষ্ট হয়েছে- এশিয়া কাপের পর T20 WC! বাবরের গলায় ট্রফি কাছে গিয়েও শিরোপা না জেতার আক্ষেপ

এরপর মুম্বই দলে নাম লেখান রোহিত শর্মা। তারপর ২০ বছর বয়সে ভারতীয় দলে যোগ দেন। রোহিত ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলেরও সদস্য ছিলেন। পরে ভারতীয় দলে নিজের অবস্থান শক্ত করেন রোহিত। বর্তমানে রোহিত শর্মা তিন ফর্ম্যাটেই ভারতের অধিনায়ক। কিন্তু রোহিতের এই সমস্ত অর্জনের জন্য অনেক কৃতিত্ব লাড স্যারকে দিতে হবে।

শুধু রোহিত শর্মাই নন, শার্দুল ঠাকুর, অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের খেলোয়াড় রঘুবংশীকেও তৈরি করেছিলেন দীনেশ লাড। এ ছাড়াও লাড স্যারের ছেলে সিদ্ধেশ লাড প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলছেন মুম্বইয়ের হয়ে এবং এখন গোয়ার হয়ে খেলেন তিনি। দীনেশ লাড স্যার বহু বছর ধরে বোরিভালির গোরাইয়ের স্বামী বিবেকানন্দ স্কুলে ক্রিকেটের কোচিং করছেন। শুধু তাই নয়, তৃণমূলের ক্রিকেটীয় দক্ষতা তুলে আনতে তিনি অনেক জায়গায় ক্যাম্পও করেন। ভারতীয় ক্রিকেটে এমন কৃতিত্বের জন্যেই রোহিত শর্মার কোচ দীনেশ লাডকে দ্রোণাচার্য পুরস্কার দেওয়া হবে।

বন্ধ করুন