বাংলা নিউজ > ময়দান > স্বপ্নভঙ্গ নাদালের, রোলাঁ গারোর সেমিতে প্রথম বার জোকোভিচের কাছে হারলেন
প্রথম বার ফ্রেঞ্চ ওপেনের সেমিতে নাদালকে হারালেন জোকার। ছবি: পিটিআই
প্রথম বার ফ্রেঞ্চ ওপেনের সেমিতে নাদালকে হারালেন জোকার। ছবি: পিটিআই

স্বপ্নভঙ্গ নাদালের, রোলাঁ গারোর সেমিতে প্রথম বার জোকোভিচের কাছে হারলেন

  • রোলাঁ গারোর সেমিফাইনালে মোট সাত বার নাদালের মুখোমুখি হয়েছেন জোকোভিচ। একবারও জিততে পারেননি। এই প্রথম সেমিফাইনালে নাদালকে হারানোর স্বাদ পেলেন তিনি। তবে ২০১৫ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালে এক বার জোকোভিচের কাছে পরাস্ত হয়েছিলেন নাদাল।

এই বারের রোলাঁ গারোতে রজার ফেডেরারকে টপকে যাওয়ার সুযোগ ছিল তাঁর সামনে। রেকর্ড গড়ার হাতছানি ছিল। ইতিহাস তৈরি করতে পারতেন রাফায়েল নাদাল। কিন্তু তাঁর সব স্বপ্ন একেবারে ভেঙে গুড়িয়ে দিলেন নোভক জোকোভিচ। প্রথম বার রোলাঁ গারোর সেমিফাইনালে হারলেন নাদাল। পুরুষদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বার গ্র্যান্ডস্লাম জয়ের রেকর্ড আর করা হল না তাঁর। ২০টি গ্র্যান্ডস্লাম জিতে ফেডেক্সের সঙ্গে একই আসনে থাকলেন তিনি। 

ফ্রেঞ্চ ওপেনের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ম্যাচটি বোধহয় শুক্রবার বেশি রাতেই হয়ে গেল। ছেলেদের সিঙ্গলসের দ্বিতীয় সেমিফাইনাল ম্যাচেই ফাইনালের স্বাদ পেলেন টেনিস ভক্তরা। এই ম্যাচ নিয়ে এমনিতেই তুমুল উত্তেজনা ছিল। দুই যুযুধান প্রতিপক্ষের লড়াই বলে কথা! ৪ ঘণ্টা ১১ মিনিটের ম্যারাথন লড়াই চলে রাফা-জোকারের মধ্যে। শেষ হাসি হাসেন সার্বিয়ার তারকা প্লেয়ার। ৩-৬, ৬-৩, ৭-৬, ৬-২ সেটে নাদালকে হারান জোকোভিচ। এর আগে রোলাঁ গারোর সেমিফাইনালে মোট সাত বার নাদালের মুখোমুখি হয়েছেন জোকোভিচ। একবারও জিততে পারেননি। এই প্রথম সেমিফাইনালে নাদালকে হারানোর স্বাদ পেলেন তিনি। তবে ২০১৫ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালে এক বার জোকোভিচের কাছে পরাস্ত হয়েছিলেন নাদাল।

শুরুটা নাদাল খারাপ করেননি। প্রথম সেট ৬-৩ জিতেও যান। কিন্তু দ্বিতীয় সেট থেকে বেকায়দায় পড়ে যান তিনি। জোকোভিচ ঘুরে দাঁড়িয়ে দ্বিতীয় সেট ৬-৩ জেতেন। তৃতীয় সেটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হলেও শেষ সেটে আর জোকারের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লড়াই করতে পারেননি স্প্যানিশ তারকা। এমনিতেই সেমিফাইনালে উঠলেও গোটা টুর্নামেন্টেই চেনা ছন্দে ছিলেন না রাফা। এ দিনও ম্যাচ যত গড়াতে থাকে, তত যেন ক্লান্ত মনে হচ্ছিল নাদালকে। ম্যাচের মাঝে পায়ের চোটের শুশ্রুষাও করাতে দেখা যায় তাঁকে। এর প্রভাব কিন্তু খেলাতেও পড়েছে। এই নিয়ে রোলাঁ গারোয় তৃতীয়বার কোনও ম্যাচে হারলেন নাদাল। এই টুর্নামেন্টে ১০৮টি ম্যাচ খেলে নাদালের মাত্র তিনবার হেরেছেন। মোট ১৩ বার ফ্রেঞ্চ ওপেন জিতেছেন স্প্যানিশ সুপারস্টার।

ফাইনালে জোকোভিচ মুখোমুখি হবেন গ্রিসের স্টিফানোস চিচিপাসের। প্রথম বার কোনএ গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালে উঠেছেন চিচিপাস। শুধু তাই নয়, তাঁর দেশের কোনও প্লেয়ার এই প্রথবার কোনও গ্র্যান্ডস্লামের ফাইনালে উঠেছেন। স্বভাবতই এই টুর্নামেন্ট জিতে ইতিহাস লিখতে চাইবেন গ্রিসের তরুণ তারকা। এ দিকে জোকোভিচও কোনও ভাবেই এই টুর্নামেন্ট হাতছাড়া করতে চাইবেন না। আশা করা যায়, রবিবারের ফাইনালটাও উত্তেজনারই হবে।

বন্ধ করুন