বাংলা নিউজ > ময়দান > জকোভিচ ভ্যাকসিন বিতর্কে বোমা ফাটালেন রাফায়েল নাদাল
জকোভিচ ও নাদাল
জকোভিচ ও নাদাল

জকোভিচ ভ্যাকসিন বিতর্কে বোমা ফাটালেন রাফায়েল নাদাল

অস্ট্রেলিয়া সরকারের বিরুদ্ধে আইনি পথে জকোভিচ! ভ্যাকসিনের পক্ষে দাঁড়ালেন নাদাল।

সিডনি মর্নিং হেরাল্ডের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, জকোভিচ মেলবোর্ন বিমানবন্দরে আট ঘন্টা কাটিয়েছেন। যেখানে তিনি সীমান্ত কর্মকর্তাদের কাছে নিজের যুক্তি উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হন। বিশ্বের এক নম্বর নোভাক জকোভিচ অস্ট্রেলিয়ার বৈধভাবে তার ভিসা বাতিলকে চ্যালেঞ্জ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বৃহস্পতিবার বলেছেন যে জকোভিচ একটি বিশেষ ক্ষেত্রে নয় এবং একই নিয়ম সবার জন্য প্রযোজ্য হবে। জকোভিচের ভিসা বাতিল করা হয়েছে। নিয়ম হল নিয়ম, বিশেষ করে যখন এটা আমাদের সীমানার কথা আসে। তাদের উপরে কেউ নয়।

অস্ট্রেলিয়ান বর্ডার ফোর্সকে অস্ট্রেলিয়ায় প্রবেশের উপযুক্ত প্রমাণ দিতে ব্যর্থ হন ডিফেন্ডিং অস্ট্রেলিয়ান ওপেন চ্যাম্পিয়ন। অস্ট্রেলিয়া সরকারের তরফ থেকে জকোভিচকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মেলবোর্ন ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নির্দেশিকা অনুসারে, কোভিড-১৯-এর টিকা দেওয়া হয়নি এমন লোকদের অস্ট্রেলিয়াতে প্রবেশ করতে দেওয়া হবেনা। অস্ট্রেলিয়া বৃহস্পতিবার বিশ্বের এক নম্বর নোভাক জকোভিচের দেশে প্রবেশের জন্য ভিসা বাতিল করা হয়। দেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী গ্রেগ হান্ট নিশ্চিত করেছেন। এর আগে, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলার জন্য চিকিৎসা ছাড়ের বরাত দিয়ে অস্ট্রেলিয়া পৌঁছেছিলেন জকোভিচ। জকোভিচ যে নির্দিষ্ট ভ্যাকসিন ছাড়ের কথা উল্লেখ করেছেন তা বিতর্কের জন্ম দিয়েছে।  

এদিকে জকোভিচের সতীর্থ টেনিস তারকা রাফায়েল নাদাল এখন জকোভিচের ভিসা বাতিল হওয়া এবং সার্বিয়ানদের টিকা না নেওয়া নিয়ে নিজের মতামত রেখেছেন। নাদাল বলেন, ‘আচ্ছা, আমি জানি না আসল ঘটনাটি কী। অবশ্যই, যা ঘটছে তা আমার মতে কখনই ভালো নয়। কিন্তু সত্যি বলতে আমি সব বিষয়ে স্পষ্ট মতামত দিতে পারি না, কারণ আমার কাছে সব তথ্য নেই। দিনের শেষে, আমি বলতে পারি যে আমরা খুব চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছি এবং অতিমারী নিয়ে গত দুই বছরে অনেক পরিবার অনেক কষ্ট পেয়েছে। আমি বলতে পারি যে, ওষুধ সম্পর্কে যারা জানেন, তারা যা বলে আমি তাতে বিশ্বাস করি। সেই লোকেরা যদি বলে যে আমাদের টিকা নেওয়া দরকার, তাহলে আমি মনে করি আমাদের ভ্যাকসিন নেওয়া দরকার। আমার মতে সকলের নিয়ম মানা দরকার।’

জকোভিচ নিয়ে বলতে গিয়ে নাদাল বলেন, ‘আমি মনে করি, সে চাইলে অস্ট্রেলিয়ায় কোনও সমস্যা ছাড়াই খেলতে পারত। সে অন্য পথ অনুসরণ করেছে। সে তার নিজের সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এবং প্রত্যেকে তাদের নিজস্ব সিদ্ধান্ত নিতে স্বাধীন। কিন্তু তারপর কিছু পরিণতি আছে। অবশ্যই, বর্তমানে যে পরিস্থিতি ঘটছে তা আমি পছন্দ করি না। আমি তার জন্য দুঃখিত। তবে একই সাথে, তিনি অনেক মাস আগে শর্তগুলি জানতেন, তাই তিনি সবকিছু জেনেই নিজের সিদ্ধান্ত নিজে নিয়েছেন।’

বন্ধ করুন