বাংলা নিউজ > ময়দান > রোনাল্ডোর বিতর্কিত আর্মব্যান্ড কত টাকায় বিক্রি হল জানেন? শুনলে আঁতকে উঠবেন!
বড় অঙ্কের টাকায় ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর ছুঁড়ে ফেলা আর্মব্যান্ডটি বিক্রি হল।
বড় অঙ্কের টাকায় ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর ছুঁড়ে ফেলা আর্মব্যান্ডটি বিক্রি হল।

রোনাল্ডোর বিতর্কিত আর্মব্যান্ড কত টাকায় বিক্রি হল জানেন? শুনলে আঁতকে উঠবেন!

  • তিন দিন নিলামে রাখা ছিল আর্মব্যান্ডটি। এই আর্মব্যান্ড নিলাম করে যে টাকা উঠেছে সেটি একটি ৬ মাসের শিশুর অস্ত্রোপচার ও চিকিৎসার কাজে লাগবে। শিশুটি স্পাইনাল মাসকুলার এট্রোফির মতো দুরারোগ্য অসুখে আক্রান্ত। তার অস্ত্রোপচার এবং চিকিৎসার খরচ খুবই বেশি।

সব খারাপের মধ্যেও বোধহয় কিছু ভাল লুকিয়ে থাকে। ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো যদি মাথা গরম করে তাঁর অধিনায়কের আর্মব্যান্ড না ছুঁড়ে ফেলতেন, তবে কী আর সেটা নিলামে উঠত! নাকি একটি শিশুর প্রাণ বাঁচাতে কাজে লাগত! ওই যে কথায় আছে, ‘যা হয় ভালর জন্যই হয়’।

রোনাল্ডোর সেই ছুঁড়ে ফেলে দেওয়া আর্মব্যান্ড নিলামে তুলেছিল সার্বিয়ার এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। সেই আর্মব্যান্ডটি শেষ পর্যন্ত কত টাকায় বিক্রি হল জানেন? শুনলে আঁতকে উঠবেন! ৬৪,০০০ ইউরো, বা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৫৫লক্ষ ২৪ হাজার টাকায় সেই বিক্রি হয়েছে রোনাল্ডোর ছুঁড়ে ফেলা বিতর্কিত সেই আর্মব্যান্ড। অবাক হচ্ছেন তো! আরে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর ব্যবহার করা আর্মব্যান্ড বলে কথা!

তিন দিন নিলামে রাখা ছিল আর্মব্যান্ডটি। এই আর্মব্যান্ড নিলাম করে যে টাকা উঠেছে সেটি একটি ৬ মাসের শিশুর অস্ত্রোপচার ও চিকিৎসার কাজে লাগবে। শিশুটি স্পাইনাল মাসকুলার এট্রোফির মতো দুরারোগ্য অসুখে আক্রান্ত। তার অস্ত্রোপচার এবং চিকিৎসার খরচ খুবই বেশি। সার্বিয়ার স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা আবার আর্মব্যান্ডটি জোগাড় করেছিলেন মাঠের এক কর্মীর থেকে। যিনি পতুর্গাল-সার্বিয়া ম্যাচের পর মাঠ পরিষ্কার করতে গিয়ে আর্মব্যান্ডটি পেয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে যোগ্যতা অর্জনকারী পর্বের ম্যাচে সার্বিয়ার বিরুদ্ধে পর্তুগালের হয়ে রোনাল্ডোর করা একটি নিশ্চিত গোল বাতিল করেন রেফারি। ম্যাচটি ২-২ থাকা অবস্থায় একেবারে শেষের দিকে ইনজুরি টাইমে গোলটি করেছিলেন পর্তুগালের তারকা স্ট্রাইকার। রেফারি বাতিল করার পর এই নিয়ে রোনাল্ডো প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন। যার জেরে রেফারি তাঁকে সতর্কও করেন। এর পরে ম্যাচ শেষের বাঁশি বাজার সঙ্গে সঙ্গেই অধিনায়কের আর্মব্যান্ড ছুঁড়ে ফেলে সোজা ড্রেসিংরুমে ফিরে গিয়েছিলেন সিআরসেভেন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই বিতর্ক শুরু হয়েছিল। তবে সেই ঘটনাটি না ঘটলে, এই ৬ মাসের শিশুটির চিকিৎসার টাকা জোগাড় করাও কষ্টসাধ্য বিষয় হত।

বন্ধ করুন